ঢাকা ০৬:২৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
পাঁচ কোটি টাকার বিনিয়োগ হারালেন আয়ামান সাদিক নোয়াখালীতে নকল ক্যাবল বিক্রির দায়ে জরিমানা কোটা সংস্কার আন্দোলনে যাওয়ায় ইবি শিক্ষার্থীকে বেধরক মারধর  পিবিআই এর দুই কর্মকর্তার বদলী জনিত বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত মোটরসাইকেল নিয়ে বিরোধ: নোয়াখালীতে বসতঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে সওজের জায়গায় অবৈধ দখলে থাকা দোকানপাট উচ্ছেদ দুই বঙ্গকন্যা ব্রিটিশ মন্ত্রীসভায় স্থান পাওয়ায় বঙ্গবন্ধু লেখক-সাংবাদিক ফোরামের আনন্দ সভা নতুন আশ্রয়ণের ঘর নির্মাণে খুশী গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষ গ্যাস সংকটে চার মাস ধরে শাহজালাল সার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ সুবর্ণচরে বৃদ্ধকে জবাই করে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩

হারিয়ে যাওয়া ১৫ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে দিল নীলফামারী থানা পুলিশ

আল-আমিন, নীলফামারী
  • Update Time : ১০:০১:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ জুন ২০২৩
  • / ৩২৭ Time View

নীলফামারীতে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে ব্যবসায়ীর হারিয়ে যাওয়া পনেরো লাখ টাকার ব্যাগ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১০ জুন) সন্ধায় সদর থানায় ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের হাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( নীলফামারী সার্কেল) মোঃ মোস্তফা মঞ্জুর (পিপিএম সেবা) ১৫ লক্ষ টাকা তুলে দেন । এসময় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোহাম্মদ শাহরিয়ার, পরিদর্শক তদন্ত পলাশ চন্দ্র মন্ডল উপস্থিত ছিলেন।

ব্যবসায়ী মোঃ রফিকুল ইসলাম বগুড়া ধুনট চৌকিবাড়ি এলাকার মৃতআমীর হামজার ছেলে। তিনি নীলফামারী এলাকায় ভুট্টা কিনতে এসেছিলেন।

পুলিশ জানায়, সকাল ১১ টার দিকে এক ব্যবসায়ী জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে জানায় সদর উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের কানাইকাটা এলাকায় চায়ের দোকানে ভুলে ব্যাগ রেখে আসেন। পরে ব্যাগটি আর খুজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। হারিয়ে যাওয়া ব্যাগে পনেরো লাখ টাকাসহ অফিসিয়াল গুরুত্বপূর্ণ কিছু ডকুমেন্টও ছিল।

সংবাদটি পাওয়া মাত্র নীলফামারী সদর থানার মোবাইল টিমের দায়িত্ব থাকা এসআই রনি ও কয়েকজন পুলিশ সদস্য সঙ্গে নিয়ে তাৎক্ষণিক উক্ত এলাকার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি শুরু করে। পরে বিকেল ৩ টার দিকে চায়ের দোকানদার জবেদ আলীর বাড়ি থেকে টাকার ব্যাগটি সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে সবার উপস্থিতিতে টাকার প্রকৃত মালিককে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম বলেন, এই টাকাটা আমাদের ভুট্টা কিনার টাকা। হারানোর পর ৯৯৯-এ ফোন করি। পুলিশের তাৎক্ষণিক পদক্ষেপে হারানো টাকা ফিরে পেয়েছি। এজন্য নীলফামারী সদর থানার ওসি ও পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।

জানতে চাইলে নীলফামারী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নীলফামারী সার্কেল) মোঃ মোস্তফা মঞ্জুর(পিপিএম সেবা) বলেন, ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে তৎক্ষনাৎ আমরা একটি টিম পাঠাই৷ ৪ ঘন্টা বিভিন্ন যায়গায় তল্লাশি চালিয়ে টাকা উদ্ধার করি। পরে সন্ধায় সকলের সামনে প্রকৃত মালিক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের হাতে সম্পুর্ন টাকা তুলে দেই।

Please Share This Post in Your Social Media

হারিয়ে যাওয়া ১৫ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে দিল নীলফামারী থানা পুলিশ

আল-আমিন, নীলফামারী
Update Time : ১০:০১:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১০ জুন ২০২৩

নীলফামারীতে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে ব্যবসায়ীর হারিয়ে যাওয়া পনেরো লাখ টাকার ব্যাগ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১০ জুন) সন্ধায় সদর থানায় ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের হাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( নীলফামারী সার্কেল) মোঃ মোস্তফা মঞ্জুর (পিপিএম সেবা) ১৫ লক্ষ টাকা তুলে দেন । এসময় সদর থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোহাম্মদ শাহরিয়ার, পরিদর্শক তদন্ত পলাশ চন্দ্র মন্ডল উপস্থিত ছিলেন।

ব্যবসায়ী মোঃ রফিকুল ইসলাম বগুড়া ধুনট চৌকিবাড়ি এলাকার মৃতআমীর হামজার ছেলে। তিনি নীলফামারী এলাকায় ভুট্টা কিনতে এসেছিলেন।

পুলিশ জানায়, সকাল ১১ টার দিকে এক ব্যবসায়ী জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন করে জানায় সদর উপজেলার পলাশবাড়ী ইউনিয়নের কানাইকাটা এলাকায় চায়ের দোকানে ভুলে ব্যাগ রেখে আসেন। পরে ব্যাগটি আর খুজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। হারিয়ে যাওয়া ব্যাগে পনেরো লাখ টাকাসহ অফিসিয়াল গুরুত্বপূর্ণ কিছু ডকুমেন্টও ছিল।

সংবাদটি পাওয়া মাত্র নীলফামারী সদর থানার মোবাইল টিমের দায়িত্ব থাকা এসআই রনি ও কয়েকজন পুলিশ সদস্য সঙ্গে নিয়ে তাৎক্ষণিক উক্ত এলাকার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি শুরু করে। পরে বিকেল ৩ টার দিকে চায়ের দোকানদার জবেদ আলীর বাড়ি থেকে টাকার ব্যাগটি সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে সবার উপস্থিতিতে টাকার প্রকৃত মালিককে হস্তান্তর করা হয়েছে।

ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম বলেন, এই টাকাটা আমাদের ভুট্টা কিনার টাকা। হারানোর পর ৯৯৯-এ ফোন করি। পুলিশের তাৎক্ষণিক পদক্ষেপে হারানো টাকা ফিরে পেয়েছি। এজন্য নীলফামারী সদর থানার ওসি ও পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।

জানতে চাইলে নীলফামারী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নীলফামারী সার্কেল) মোঃ মোস্তফা মঞ্জুর(পিপিএম সেবা) বলেন, ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে তৎক্ষনাৎ আমরা একটি টিম পাঠাই৷ ৪ ঘন্টা বিভিন্ন যায়গায় তল্লাশি চালিয়ে টাকা উদ্ধার করি। পরে সন্ধায় সকলের সামনে প্রকৃত মালিক ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলামের হাতে সম্পুর্ন টাকা তুলে দেই।