ঢাকা ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হাইকোর্টে ক্ষমা চাইলেন রাজউক চেয়ারম্যান

Reporter Name
  • Update Time : ০৮:১৯:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩
  • / ১০৭ Time View

রাজউক চেয়ারম্যান মো. আনিছুর রহমান মিঞা। ফাইল ফটো।

প্লট বরাদ্দ নিয়ে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে পালন না করায় হাইকোর্টে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) চেয়ারম্যান মো. আনিছুর রহমান মিঞা। ভবিষ্যতে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

বিচারপতি মাহমুদুল হক ও বিচারপতি মাহমুদ হাসান তালুকদার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে আজ বৃহস্পতিবার হাজির হয়ে তিনি নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনাসহ এই প্রতিশ্রুতি দেন। পরে আনিছুর রহমান মিঞাকে অভিযোগ থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়।

রাজউক চেয়ারম্যান আদালতকে জানান, রিটকারীর প্লট সংক্রান্ত বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশ তাকে সংশ্লিষ্টরা যথাযথভাবে অবহিত করেননি। ভবিষ্যতে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন করা হবে।

আদালতে রাজউক চেয়ারম্যানের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শেখ গোলাম রসূল ও ব্যারিস্টার নুরুল আজিম। আর রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কে এম মাছুদ রুমি।

এর আগে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন না করায় গত মঙ্গলবার রাজউকের চেয়ারম্যানকে তলব করেন হাইকোর্ট। তাকে বৃহস্পতিবার (১৮ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় সশরীরে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। তলবের আদেশটি বিশেষ বার্তার মাধ্যমে রাজউক চেয়ারম্যানকে পাঠাতে বলা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ আদালতে সশরীরে হাজির হয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন রাজউক চেয়ারম্যান।

আইনজীবী সূত্রে জানা যায়, প্লট বরাদ্দ সংক্রান্ত জটিলতার কারণে হাইকোর্টে রিট করেন রাজধানীর নিকুঞ্জের বাসিন্দা খালিদ মাহমুদ। পরে ওই রিটের শুনানি নিয়ে খালিদ মাহমুদের প্লটের বিষয়ে রাজউক চেয়ারম্যানকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এ আদেশ যথাযথভাবে পালন না করায় রাজউক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

হাইকোর্টে ক্ষমা চাইলেন রাজউক চেয়ারম্যান

Update Time : ০৮:১৯:৩২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০২৩

প্লট বরাদ্দ নিয়ে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে পালন না করায় হাইকোর্টে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) চেয়ারম্যান মো. আনিছুর রহমান মিঞা। ভবিষ্যতে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

বিচারপতি মাহমুদুল হক ও বিচারপতি মাহমুদ হাসান তালুকদার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে আজ বৃহস্পতিবার হাজির হয়ে তিনি নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনাসহ এই প্রতিশ্রুতি দেন। পরে আনিছুর রহমান মিঞাকে অভিযোগ থেকে অব্যহতি দেওয়া হয়।

রাজউক চেয়ারম্যান আদালতকে জানান, রিটকারীর প্লট সংক্রান্ত বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশ তাকে সংশ্লিষ্টরা যথাযথভাবে অবহিত করেননি। ভবিষ্যতে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন করা হবে।

আদালতে রাজউক চেয়ারম্যানের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী শেখ গোলাম রসূল ও ব্যারিস্টার নুরুল আজিম। আর রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কে এম মাছুদ রুমি।

এর আগে আদালতের আদেশ যথাযথভাবে প্রতিপালন না করায় গত মঙ্গলবার রাজউকের চেয়ারম্যানকে তলব করেন হাইকোর্ট। তাকে বৃহস্পতিবার (১৮ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় সশরীরে আদালতে হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়। তলবের আদেশটি বিশেষ বার্তার মাধ্যমে রাজউক চেয়ারম্যানকে পাঠাতে বলা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় আজ আদালতে সশরীরে হাজির হয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন রাজউক চেয়ারম্যান।

আইনজীবী সূত্রে জানা যায়, প্লট বরাদ্দ সংক্রান্ত জটিলতার কারণে হাইকোর্টে রিট করেন রাজধানীর নিকুঞ্জের বাসিন্দা খালিদ মাহমুদ। পরে ওই রিটের শুনানি নিয়ে খালিদ মাহমুদের প্লটের বিষয়ে রাজউক চেয়ারম্যানকে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এ আদেশ যথাযথভাবে পালন না করায় রাজউক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করা হয়।