ঢাকা ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হজে গিয়ে ১০ বাংলাদেশির মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : ১০:৫৯:৪৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ জুন ২০২৩
  • / ১৬৯ Time View

চলতি বছর পবিত্র হজপালনে সৌদি আরবে গিয়ে দশজন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। এদের মধ্যে পুরুষ আটজন এবং নারী দুইজন। এরা সবাই মক্কায় মারা গেছেন।

আজ রবিবার (১১ জুন) বিকেলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ ম্যানেজমেন্ট পোর্টাল পিলগ্রিমের ডেথ নিউজে এসব তথ্য জানা গেছে।

ডেথ সার্টিফিকেট সংযুক্ত ও তারিখ উল্লেখ করে পোর্টালে বলা হয়েছে, আমরা অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, উক্ত হাজি … তারিখে ইন্তেকাল করেন।

পিলগ্রিম সূত্রে জানা যায়, ৩১ মে মারা যান মো. আব্দুল ওয়াহেদ (৪৬), গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে; ২ জুন শাহানারা বেগম (৬৪) ও ড. মো. শফিকুল ইসলাম (৫৮), তাদের বাড়ি যথাক্রমে ঢাকার বাটামারা ও পাবনার সদরে; ৩ জুন মো. আলী হোসেন (৬৭), তার বাড়ি শেরপুরের ঝিনাইগাতিতে; ৪ জুন মো. আয়ুব খান (৪৮), তার বাড়ি ঢাকার খিলগাওয়ে; ৬ জুন মো. শহিদুল আলম (৬৭), তার বাড়ি পঞ্চগড়ের রাধানগরে; ৭ জুন রোকেয়া বেগম (৬২), তার বাড়ি বগুড়ার সান্তাহারে; ৮ জুন মো. আদম উদ্দিন মণ্ডল (৭১) ও মো. আমজাদ হোসেন প্রধান (৫৭), তাদের বাড়ি যথাক্রমে নওগাঁর আত্রাই ও গাইবান্ধার বোনারপাড়া এবং ৯ জুন মারা যান মো. মতিউর রহমান (৬৮), তার বাড়ি রংপুরের সদরে।

সৌদি আরেবের আইন অনুযায়ী, কোন ব্যক্তি হজ করতে গিয়ে যদি মৃত্যুবরণ করেন তাহলে তার মরদেহ সৌদি আরবে দাফন করা হয়। মৃতদেহ তার নিজ দেশে নিতে দেয়া হয় না। এমনকি পরিবার-পরিজনের কোনো আপত্তি গ্রাহ্য করা হয় না।

গত ২১ মে থেকে হজযাত্রীদের ফ্লাইট শুরু হয়। সৌদি আরবে যাওয়ার শেষ ফ্লাইট ২২ জুন। হজ শেষে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২ জুলাই এবং শেষ হবে ২ আগস্ট। আগামী ২৭ জুন চাঁদ দেখা সাপেক্ষে হজ অনুষ্ঠিত হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

হজে গিয়ে ১০ বাংলাদেশির মৃত্যু

Update Time : ১০:৫৯:৪৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ জুন ২০২৩

চলতি বছর পবিত্র হজপালনে সৌদি আরবে গিয়ে দশজন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। এদের মধ্যে পুরুষ আটজন এবং নারী দুইজন। এরা সবাই মক্কায় মারা গেছেন।

আজ রবিবার (১১ জুন) বিকেলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ ম্যানেজমেন্ট পোর্টাল পিলগ্রিমের ডেথ নিউজে এসব তথ্য জানা গেছে।

ডেথ সার্টিফিকেট সংযুক্ত ও তারিখ উল্লেখ করে পোর্টালে বলা হয়েছে, আমরা অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে, উক্ত হাজি … তারিখে ইন্তেকাল করেন।

পিলগ্রিম সূত্রে জানা যায়, ৩১ মে মারা যান মো. আব্দুল ওয়াহেদ (৪৬), গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে; ২ জুন শাহানারা বেগম (৬৪) ও ড. মো. শফিকুল ইসলাম (৫৮), তাদের বাড়ি যথাক্রমে ঢাকার বাটামারা ও পাবনার সদরে; ৩ জুন মো. আলী হোসেন (৬৭), তার বাড়ি শেরপুরের ঝিনাইগাতিতে; ৪ জুন মো. আয়ুব খান (৪৮), তার বাড়ি ঢাকার খিলগাওয়ে; ৬ জুন মো. শহিদুল আলম (৬৭), তার বাড়ি পঞ্চগড়ের রাধানগরে; ৭ জুন রোকেয়া বেগম (৬২), তার বাড়ি বগুড়ার সান্তাহারে; ৮ জুন মো. আদম উদ্দিন মণ্ডল (৭১) ও মো. আমজাদ হোসেন প্রধান (৫৭), তাদের বাড়ি যথাক্রমে নওগাঁর আত্রাই ও গাইবান্ধার বোনারপাড়া এবং ৯ জুন মারা যান মো. মতিউর রহমান (৬৮), তার বাড়ি রংপুরের সদরে।

সৌদি আরেবের আইন অনুযায়ী, কোন ব্যক্তি হজ করতে গিয়ে যদি মৃত্যুবরণ করেন তাহলে তার মরদেহ সৌদি আরবে দাফন করা হয়। মৃতদেহ তার নিজ দেশে নিতে দেয়া হয় না। এমনকি পরিবার-পরিজনের কোনো আপত্তি গ্রাহ্য করা হয় না।

গত ২১ মে থেকে হজযাত্রীদের ফ্লাইট শুরু হয়। সৌদি আরবে যাওয়ার শেষ ফ্লাইট ২২ জুন। হজ শেষে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২ জুলাই এবং শেষ হবে ২ আগস্ট। আগামী ২৭ জুন চাঁদ দেখা সাপেক্ষে হজ অনুষ্ঠিত হবে।