ঢাকা ০৮:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
সন্তানদের নতুন জামা পরিয়ে রাতে ঘর থেকে বের হয়ে আর ফিরলেন না বাবা প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স নীতির ফলে দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মুল হয়েছেঃ সিলেটে আইজিপি বড় পরিসরে আর. কে. মিশন রোডে ব্র্যাক ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন সৌদিতে প্রথমবারের মতো সুইমস্যুট পরে র‌্যাম্পে হাঁটলেন মডেলরা ‘আয়রনম্যান’ চরিত্রে ফিরতে ‘আপত্তি নেই’ রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের বাংলাদেশের গণতন্ত্র ধ্বংসের জন্য ভারত সরকার দায়ী : কর্নেল অলি বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সিরিজ নিয়ে শঙ্কা কাঠালিয়ায় ডাকাতের গুলিতে আহত ২ বিএনপি একটা জালিয়ত রাজনৈতিক দল : পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেয়র তাপস মনগড়া ও অসত্য বক্তব্য দিচ্ছেন : সাঈদ খোকন

হজের প্রথম ফ্লাইট ৯ মে

স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : ১২:৫৬:০৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৫৫ Time View

চলতি মৌসুমে হজযাত্রীদের নিয়ে প্রথম হজ ফ্লাইট সৌদি আরবের উদ্দেশে রওয়ানা দেবে ৯ মে। এবার সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালন করতে যাবেন ৮৩ হাজার ২০২ জন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন ৪ হাজার ৩০৭ জন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন ৭৮ হাজার ৮৯৫ জন। হজ ফ্লাইটের সময়সূচি অনুযায়ী বাকি আছে মাত্র ১৪ দিন। কিন্তু এখনো ঘোষণা হয়নি ফ্লাইট শিডিউল। ঢাকা হজ অফিসের পরিচালক মুহম্মদ কামরুজ্জামান ৯ মে হজ ফ্লাইট চালু হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, এখনো শিডিউল ঘোষণা হয়নি। তবে দ্রুত এই শিডিউল যাত্রীদের জানানো হবে।

এদিকে চলতি বছর হজের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে ততই সংকট ঘনীভূত হচ্ছে। এজন্য হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) এবং ধর্ম মন্ত্রণালয় একে অপরকে দোষারোপ করছে। যে কারণে এখনো ঘাষণা হয়নি ফ্লাইট শিডিউল। এমন অবস্থায় চলতি মৌসুমে হজ ব্যবস্থাপনায় সব প্রতিবন্ধকতা দ্রুত নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করে সংবাদ সম্মেলন করেছে হজ এজেন্সির মালিকরা। তাদের অভিযোগ, সময়মতো মুনাজ্জিম ভিসা না পাওয়া ও মক্কায় বাংলাদেশ হজ মিশনের ব্যর্থতার কারণে এবারে হজে বিশৃঙ্খলা তৈরির আশঙ্কা রয়েছে। এজন্য এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে এই দাবি জানান তারা।

তাদের আরও দাবি হলো: অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে বাংলাদেশি সব হাজির মিনার জোন নির্ধারণ করে ই-হজ সিস্টেমে আপডেট করা, দ্রুত ফ্লাইট শিডিউল ঘোষণা ও অপারেটিং সব এজেন্সির হজযাত্রী অনুপাতে টিকিট নিশ্চিত করা। এছাড়া অপারেটিং এজেন্সির মোনাজ্জেমদের জন্য মোনাজ্জেম ভিসার দ্রুত ব্যবস্থা করা, অথবা মিশন ভিসা শুধু বাড়ি ভাড়ার কাজে ব্যবহারের ঘোষণা দিয়ে পরে অন্যান্য বছরের ন্যায় মোনাজ্জেমদের জন্য বারকোড ভিসার বিষয়টিও নিশ্চিত করার দাবি জানান তারা।

হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীর বাসা ভাড়ার জন্য কোনো সহযোগিতা করছে না ধর্ম মন্ত্রণালয়। তারা জানান, বাড়ি ভাড়ার জন্য এজেন্সি প্রতিনিধি মোনাজ্জেমদের (পবিত্র হজের সময় নিবন্ধিত হজ এজেন্সির মালিকের পক্ষে দায়িত্ব পালনকারী) ভিসা দিচ্ছে না সৌদি দূতাবাস। ফলে মোনাজ্জেমরা হজযাত্রীদের জন্য বাড়ি ভাড়া করতে সৌদি আরবে যেতে পারছেন না। যে কারণে এখনো সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়ার টাকা পাঠাতে পারেননি এজেন্সির অনেক মালিক। হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিমের অভিযোগ, এ জায়গায়ও সহায়তা করছে না মন্ত্রণালয়। সবচেয়ে বড় সংকট তৈরি হয়েছে প্রায় ২৮ হাজার হজযাত্রীর মুজদালিফায় অবস্থান নিয়ে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় বলছে, হজ এজেন্সির মালিকরা বেশি মুনাফার আশায় (মুজদালিফার খরচ কমানো) সৌদি আরবের রিফাত নামে কালো তালিকাভুক্ত কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছে। ফলে প্রায় ২৮ হাজার হজযাত্রীর মুজদালিফায় অবস্থান নিয়ে সংকট দেখা দিয়েছে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ১৬ জুন পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। প্রতি বছর ঈদের এক মাস আগে থেকেই শুরু হয় হজ ফ্লাইট। তার আগে হজযাত্রীদের ভিসা, ফ্লাইট শিডিউল সংক্রান্ত কাজ শেষ করে ধর্ম মন্ত্রণালয় ও এয়ারলাইন্সগুলো।

Please Share This Post in Your Social Media

হজের প্রথম ফ্লাইট ৯ মে

Update Time : ১২:৫৬:০৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪

চলতি মৌসুমে হজযাত্রীদের নিয়ে প্রথম হজ ফ্লাইট সৌদি আরবের উদ্দেশে রওয়ানা দেবে ৯ মে। এবার সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালন করতে যাবেন ৮৩ হাজার ২০২ জন। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন ৪ হাজার ৩০৭ জন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন ৭৮ হাজার ৮৯৫ জন। হজ ফ্লাইটের সময়সূচি অনুযায়ী বাকি আছে মাত্র ১৪ দিন। কিন্তু এখনো ঘোষণা হয়নি ফ্লাইট শিডিউল। ঢাকা হজ অফিসের পরিচালক মুহম্মদ কামরুজ্জামান ৯ মে হজ ফ্লাইট চালু হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, এখনো শিডিউল ঘোষণা হয়নি। তবে দ্রুত এই শিডিউল যাত্রীদের জানানো হবে।

এদিকে চলতি বছর হজের সময় যতই ঘনিয়ে আসছে ততই সংকট ঘনীভূত হচ্ছে। এজন্য হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) এবং ধর্ম মন্ত্রণালয় একে অপরকে দোষারোপ করছে। যে কারণে এখনো ঘাষণা হয়নি ফ্লাইট শিডিউল। এমন অবস্থায় চলতি মৌসুমে হজ ব্যবস্থাপনায় সব প্রতিবন্ধকতা দ্রুত নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করে সংবাদ সম্মেলন করেছে হজ এজেন্সির মালিকরা। তাদের অভিযোগ, সময়মতো মুনাজ্জিম ভিসা না পাওয়া ও মক্কায় বাংলাদেশ হজ মিশনের ব্যর্থতার কারণে এবারে হজে বিশৃঙ্খলা তৈরির আশঙ্কা রয়েছে। এজন্য এমন আশঙ্কা প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি হস্তক্ষেপ কামনা করেন তারা।

বুধবার রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে এই দাবি জানান তারা।

তাদের আরও দাবি হলো: অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে বাংলাদেশি সব হাজির মিনার জোন নির্ধারণ করে ই-হজ সিস্টেমে আপডেট করা, দ্রুত ফ্লাইট শিডিউল ঘোষণা ও অপারেটিং সব এজেন্সির হজযাত্রী অনুপাতে টিকিট নিশ্চিত করা। এছাড়া অপারেটিং এজেন্সির মোনাজ্জেমদের জন্য মোনাজ্জেম ভিসার দ্রুত ব্যবস্থা করা, অথবা মিশন ভিসা শুধু বাড়ি ভাড়ার কাজে ব্যবহারের ঘোষণা দিয়ে পরে অন্যান্য বছরের ন্যায় মোনাজ্জেমদের জন্য বারকোড ভিসার বিষয়টিও নিশ্চিত করার দাবি জানান তারা।

হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীর বাসা ভাড়ার জন্য কোনো সহযোগিতা করছে না ধর্ম মন্ত্রণালয়। তারা জানান, বাড়ি ভাড়ার জন্য এজেন্সি প্রতিনিধি মোনাজ্জেমদের (পবিত্র হজের সময় নিবন্ধিত হজ এজেন্সির মালিকের পক্ষে দায়িত্ব পালনকারী) ভিসা দিচ্ছে না সৌদি দূতাবাস। ফলে মোনাজ্জেমরা হজযাত্রীদের জন্য বাড়ি ভাড়া করতে সৌদি আরবে যেতে পারছেন না। যে কারণে এখনো সৌদি আরবে বাড়ি ভাড়ার টাকা পাঠাতে পারেননি এজেন্সির অনেক মালিক। হাবের সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিমের অভিযোগ, এ জায়গায়ও সহায়তা করছে না মন্ত্রণালয়। সবচেয়ে বড় সংকট তৈরি হয়েছে প্রায় ২৮ হাজার হজযাত্রীর মুজদালিফায় অবস্থান নিয়ে।

ধর্ম মন্ত্রণালয় বলছে, হজ এজেন্সির মালিকরা বেশি মুনাফার আশায় (মুজদালিফার খরচ কমানো) সৌদি আরবের রিফাত নামে কালো তালিকাভুক্ত কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করেছে। ফলে প্রায় ২৮ হাজার হজযাত্রীর মুজদালিফায় অবস্থান নিয়ে সংকট দেখা দিয়েছে।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ১৬ জুন পালিত হবে পবিত্র ঈদুল আজহা। প্রতি বছর ঈদের এক মাস আগে থেকেই শুরু হয় হজ ফ্লাইট। তার আগে হজযাত্রীদের ভিসা, ফ্লাইট শিডিউল সংক্রান্ত কাজ শেষ করে ধর্ম মন্ত্রণালয় ও এয়ারলাইন্সগুলো।