ঢাকা ০৩:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

স্বামীর বাড়ীর দুই’শ গজ দূরে স্ত্রীর আগুনে পোড়া মরদেহ উদ্ধার

আবু সাঈদ, শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি
  • Update Time : ০৩:৪৭:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৭০ Time View

গাজীপুরের শ্রীপুরে স্বামীর বাড়ীর দুই’শ গজ দূরে কলা বাগান থেকে কাঠ মিস্ত্রীর স্ত্রী মালেকা বেগমের (৩৫) আগুনে পোড়া মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সে উপজেলার গাজীপুর ইউনিনের গোতার বাজার (স্কয়ার প্রজেক্ট) সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা কাঠ মিস্ত্রি বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী। বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১ টায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত নারীর বড় ছেলে মানিক (১৮) জানান তিনি শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুর এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। গতকাল রাতে তার নাইট শিফটে ডিউটি ছিলো। ভোর ৪ টার দিকে তার বাবা তাকে ফোন দিয়ে জানায় তার মাকে কোথাও খোঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কারখানা ছুটি হলে বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে বাড়িতে এসে তার মায়ের আগুনে পোড়া মরদেহ বাড়ীর ২০০ গজ দূরে কলা বাগানে দেখতে পান।

নিহত নারীর বাবা পাশের দক্ষিন ধনুয়া গ্রামের বাসিন্দা মমতাজ উদ্দিন জানান, বিয়ের পর থেকেই মালেকার স্বামী তাকে নির্যাতন করতো। তার মেয়ের দুই লাখ টাকা তার (বাবার) কাছে রক্ষিত ছিল। ওই টাকা এনে দেয়ার জন্য তার স্বামী তাকে নির্যাতন করতো। বাচ্চু মিয়া আমার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর আগুনে পুড়িয়ে স্কয়ার কোম্পানির (কলাবাগানের) প্রজেক্টে মরদেহ রাতের কোনো এক সময় ফেলে রেখেছে।

স্থানীয়রা জানান, কাঠ মিস্ত্রি বাচ্চু মিয়া নারী লোভী ছিল। সে বাহিরের মেয়ে বাড়ীতে এনে ফুর্তি করতো। এ নিয়ে তার স্ত্রীর সাথে প্রায়ই স্বামীর ঝগড়া লেগে থাকতো। তাছাড়া, সংসারে অভাব-অনটন নিয়েও তাদের মধ্যে বিবাদ লেগে থাকতো। ধারনা করা হচ্ছে ঝগড়ার এক পর্যায়ে সে তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর রাতের কোনো এক সময় গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে লাশ বাড়ীর পাশের কলা বাগানে ফেলে রাখে হত্যাকে আত্বহত্যা বলে প্রচারের চেষ্টা করছে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান জানান, এখনো কিছু বুঝা যাচ্ছে না। পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সিআইডি’র ক্রাইম সিনে ইউনিটের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছেন। নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ ও রহস্য নিশ্চিত হওয়া যাবে।

Please Share This Post in Your Social Media

স্বামীর বাড়ীর দুই’শ গজ দূরে স্ত্রীর আগুনে পোড়া মরদেহ উদ্ধার

Update Time : ০৩:৪৭:০০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

গাজীপুরের শ্রীপুরে স্বামীর বাড়ীর দুই’শ গজ দূরে কলা বাগান থেকে কাঠ মিস্ত্রীর স্ত্রী মালেকা বেগমের (৩৫) আগুনে পোড়া মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সে উপজেলার গাজীপুর ইউনিনের গোতার বাজার (স্কয়ার প্রজেক্ট) সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা কাঠ মিস্ত্রি বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী। বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১ টায় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত নারীর বড় ছেলে মানিক (১৮) জানান তিনি শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুর এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। গতকাল রাতে তার নাইট শিফটে ডিউটি ছিলো। ভোর ৪ টার দিকে তার বাবা তাকে ফোন দিয়ে জানায় তার মাকে কোথাও খোঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। কারখানা ছুটি হলে বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে বাড়িতে এসে তার মায়ের আগুনে পোড়া মরদেহ বাড়ীর ২০০ গজ দূরে কলা বাগানে দেখতে পান।

নিহত নারীর বাবা পাশের দক্ষিন ধনুয়া গ্রামের বাসিন্দা মমতাজ উদ্দিন জানান, বিয়ের পর থেকেই মালেকার স্বামী তাকে নির্যাতন করতো। তার মেয়ের দুই লাখ টাকা তার (বাবার) কাছে রক্ষিত ছিল। ওই টাকা এনে দেয়ার জন্য তার স্বামী তাকে নির্যাতন করতো। বাচ্চু মিয়া আমার মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর আগুনে পুড়িয়ে স্কয়ার কোম্পানির (কলাবাগানের) প্রজেক্টে মরদেহ রাতের কোনো এক সময় ফেলে রেখেছে।

স্থানীয়রা জানান, কাঠ মিস্ত্রি বাচ্চু মিয়া নারী লোভী ছিল। সে বাহিরের মেয়ে বাড়ীতে এনে ফুর্তি করতো। এ নিয়ে তার স্ত্রীর সাথে প্রায়ই স্বামীর ঝগড়া লেগে থাকতো। তাছাড়া, সংসারে অভাব-অনটন নিয়েও তাদের মধ্যে বিবাদ লেগে থাকতো। ধারনা করা হচ্ছে ঝগড়ার এক পর্যায়ে সে তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর রাতের কোনো এক সময় গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে লাশ বাড়ীর পাশের কলা বাগানে ফেলে রাখে হত্যাকে আত্বহত্যা বলে প্রচারের চেষ্টা করছে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান জানান, এখনো কিছু বুঝা যাচ্ছে না। পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, সিআইডি’র ক্রাইম সিনে ইউনিটের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছেন। নারীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ ও রহস্য নিশ্চিত হওয়া যাবে।