ঢাকা ০৪:০৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সুদানফেরতদের সহায়তা দেওয়া হবে: প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

Reporter Name
  • Update Time : ০৮:৫০:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩
  • / ৭৮ Time View

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ (পাঞ্জাবি পরিহিত)।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, সংঘাতপূর্ণ সুদানের খার্তুম থেকে দেশে ফেরা ১৩৬ বাংলাদেশিকে মন্ত্রণালয় থেকে কিছু আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে।

তিনি বলেছেন, আপনারা সব কিছু হারিয়েছেন। দেশে ফিরেছেন কিন্তু ওখান থেকে খালি হাতে এসেছেন। আজকে আমরা যা কিছু দেই না কেন, আইওএম আমাদের সঙ্গে আছে। তাদের সাহায্য ছাড়া এই কাজটা অত তাড়াতাড়ি হতো না। আজকে আইএমও আপনাদের কিছু আর্থিক সাহায্য দেবে। আমরা মন্ত্রণালয়ের কল্যাণ বোর্ড থেকে আপনাদের জন্য কিছু আর্থিক সাহায্য দেব।

সোমবার সকালে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে ১৩৬ বাংলাদেশিকে স্বাগত জানান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এয়ার ফোর্স ওখানে ৩টি প্লেন রেডি করে দিয়েছিল, আপনারা রেডি হলেই আমরা প্লেন ছাড়তে পারব। ওখানে হ-য-ব-র-ল অবস্থা। আজকে আসার কথা ছিল ২৫০ জন আর আপনারা আসতে পেরেছেন ১৩৬ জন।

মন্ত্রী বলেন, প্রথম তালিকা ছিল ৫০০ জনের, এরপর হয়ে গেল ৪০০ জন। এদের সবাইকে যে আমরা ইমিডিয়েট আনতে পারিনি এটার জন্য আমি দুঃখিত। আপনারা আশ্বস্ত হতে পারেন বাকিদেরও শিগগির দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। দেশে ফেরা বাংলাদেশিদের নিবন্ধন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, পরবর্তীতে কীভাবে আপনাদের এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি এটা ঠিক করতে নাম-ঠিকানার প্রয়োজন হবে।

উল্লেখ্য, পোর্ট সুদান থেকে প্রথম দফায় ৭০ বাংলাদেশি নাগরিককে নিয়ে সৌদি এয়ারফোর্সের বিশেষ ফ্লাইট রোববার দুপুরে জেদ্দা বিমানবন্দরে পৌঁছায়। এদের মধ্যে নারী, শিশু ও অসুস্থ যাত্রীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। পরে দ্বিতীয় দফায় বিকালে সৌদি এয়ারফোর্সের আরেকটি বিশেষ ফ্লাইট ৬৬ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে জেদ্দায় পৌঁছায়।

Please Share This Post in Your Social Media

সুদানফেরতদের সহায়তা দেওয়া হবে: প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী

Update Time : ০৮:৫০:৫১ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, সংঘাতপূর্ণ সুদানের খার্তুম থেকে দেশে ফেরা ১৩৬ বাংলাদেশিকে মন্ত্রণালয় থেকে কিছু আর্থিক সহায়তা দেওয়া হবে।

তিনি বলেছেন, আপনারা সব কিছু হারিয়েছেন। দেশে ফিরেছেন কিন্তু ওখান থেকে খালি হাতে এসেছেন। আজকে আমরা যা কিছু দেই না কেন, আইওএম আমাদের সঙ্গে আছে। তাদের সাহায্য ছাড়া এই কাজটা অত তাড়াতাড়ি হতো না। আজকে আইএমও আপনাদের কিছু আর্থিক সাহায্য দেবে। আমরা মন্ত্রণালয়ের কল্যাণ বোর্ড থেকে আপনাদের জন্য কিছু আর্থিক সাহায্য দেব।

সোমবার সকালে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছালে ১৩৬ বাংলাদেশিকে স্বাগত জানান মন্ত্রী ইমরান আহমেদ।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এয়ার ফোর্স ওখানে ৩টি প্লেন রেডি করে দিয়েছিল, আপনারা রেডি হলেই আমরা প্লেন ছাড়তে পারব। ওখানে হ-য-ব-র-ল অবস্থা। আজকে আসার কথা ছিল ২৫০ জন আর আপনারা আসতে পেরেছেন ১৩৬ জন।

মন্ত্রী বলেন, প্রথম তালিকা ছিল ৫০০ জনের, এরপর হয়ে গেল ৪০০ জন। এদের সবাইকে যে আমরা ইমিডিয়েট আনতে পারিনি এটার জন্য আমি দুঃখিত। আপনারা আশ্বস্ত হতে পারেন বাকিদেরও শিগগির দেশে ফিরিয়ে আনা হবে। দেশে ফেরা বাংলাদেশিদের নিবন্ধন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, পরবর্তীতে কীভাবে আপনাদের এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি এটা ঠিক করতে নাম-ঠিকানার প্রয়োজন হবে।

উল্লেখ্য, পোর্ট সুদান থেকে প্রথম দফায় ৭০ বাংলাদেশি নাগরিককে নিয়ে সৌদি এয়ারফোর্সের বিশেষ ফ্লাইট রোববার দুপুরে জেদ্দা বিমানবন্দরে পৌঁছায়। এদের মধ্যে নারী, শিশু ও অসুস্থ যাত্রীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। পরে দ্বিতীয় দফায় বিকালে সৌদি এয়ারফোর্সের আরেকটি বিশেষ ফ্লাইট ৬৬ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে জেদ্দায় পৌঁছায়।