ঢাকা ০২:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
নোয়াখালীতে নকল ক্যাবল বিক্রির দায়ে জরিমানা কোটা সংস্কার আন্দোলনে যাওয়ায় ইবি শিক্ষার্থীকে বেধরক মারধর  পিবিআই এর দুই কর্মকর্তার বদলী জনিত বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত মোটরসাইকেল নিয়ে বিরোধ: নোয়াখালীতে বসতঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে সওজের জায়গায় অবৈধ দখলে থাকা দোকানপাট উচ্ছেদ দুই বঙ্গকন্যা ব্রিটিশ মন্ত্রীসভায় স্থান পাওয়ায় বঙ্গবন্ধু লেখক-সাংবাদিক ফোরামের আনন্দ সভা নতুন আশ্রয়ণের ঘর নির্মাণে খুশী গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষ গ্যাস সংকটে চার মাস ধরে শাহজালাল সার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ সুবর্ণচরে বৃদ্ধকে জবাই করে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩ নোয়াখালীতে নৈশ প্রহরীকে উলঙ্গ করে বেঁধে ১১ দোকানে ডাকাতি

সিলেটে বন্যার কিছুটা উন্নতি, তিনদিন পর বিপৎসীমার নিচে সুরমার পানি

মো.মুহিবুর রহমান, সিলেট
  • Update Time : ০৩:৫৬:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪
  • / ৩২ Time View

সিলেটে চলমান বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। ভারী বৃষ্টি না হওয়ায় কমেছে সুরমার  সিলেট পয়েন্টের পানি। যার ফল  তিনদিন  পর বিপৎসীমার নিচে নেমেছে এই পয়েন্টের পানি। তবে এখনো বিপৎসীমার উপরে সুরমার কানাইঘাট পয়েন্টের পানি। এছাড়া এখনো বিপৎসীমার উপরে কুশিয়ারার সবকটি পয়েন্টের পানি। সিলেটের মধ্য দিয়ে বয়ে চলা নদ নদীর পানি গত ৭২ ঘন্টায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম থাকায়  ৩ থেকে ৬ সেন্টি মিটার করে কমেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর ৫টি পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সকাল পর্যন্ত এই দুই নদীর ৬টি পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ৬৪ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া কুশিয়ারার পানি আমলশীদ পয়েন্টে ১৩০ সে.মি, শেওলা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও শেরপুর পয়েন্টে পানি ৩৮, ১০১ ও ৪ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। কমেছে লোভা, সারি ও ডাউকি নদীর পানিও।

জেলা প্রশাসন জানায়, জেলার ১৩ উপজেলায় ১০১টি ইউনিয়ন বন্যায় প্লাবিত। ১ হাজার ১৮০টি গ্রামের ৬ লাখ ২৬ হাজার ১৩৮ জন মানুষ বন্যায় আক্রান্ত। জেলার ৬৫০টি আশ্রয় কেন্দ্রে এখন পর্যন্ত ৯ হাজার ৩২৯ জন মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট দপ্তর বলছেন,  সিলেটের মধ্য দিয়ে বয়েচলা প্রায় সকল নদী পানিতে পরিপূর্ণ থাকায় উজানের পানি ধীর গতিতে প্রবাহিত হচ্ছে। মূলত নদী ও হাওরগুলো পানিতে পরিপূর্ণ থাকায় দীর্ঘস্থায়ী রূপ নিচ্ছে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি। যার ফলে পানিবন্দি এলাকাগুলোতে মানুষের দুর্ভোগ ও ভোগান্তি আরো বেড়েছে।

সিলেট আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে  সিলেটে গত ২৪ ঘন্টায় ২৫.৬ মি.মি. বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। তবে জুলাই মাস জুড়েই  সিলেটে থেমে থেমে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি চলতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক রঞ্জন দাস জানান, গত কয়েকদিন ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বৃষ্টি হয়নি। সিলেটের নদীগুলো পানিতে পরিপূর্ণ থাকায় উজানের পানি ধীর গতিতে প্রবাহিত হচ্ছে। চলমান বন্যায় সিলেটের ২৫ কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যা মেরামতে ১৮ কোটি টাকা ব্যয় হবে। তবে বন্যার পানি পুরোপুরি না নামলে এসব বাঁধের কাজ করা যাবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

সিলেটে বন্যার কিছুটা উন্নতি, তিনদিন পর বিপৎসীমার নিচে সুরমার পানি

মো.মুহিবুর রহমান, সিলেট
Update Time : ০৩:৫৬:৪৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪

সিলেটে চলমান বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। ভারী বৃষ্টি না হওয়ায় কমেছে সুরমার  সিলেট পয়েন্টের পানি। যার ফল  তিনদিন  পর বিপৎসীমার নিচে নেমেছে এই পয়েন্টের পানি। তবে এখনো বিপৎসীমার উপরে সুরমার কানাইঘাট পয়েন্টের পানি। এছাড়া এখনো বিপৎসীমার উপরে কুশিয়ারার সবকটি পয়েন্টের পানি। সিলেটের মধ্য দিয়ে বয়ে চলা নদ নদীর পানি গত ৭২ ঘন্টায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম থাকায়  ৩ থেকে ৬ সেন্টি মিটার করে কমেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর ৫টি পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সকাল পর্যন্ত এই দুই নদীর ৬টি পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ৬৪ সে.মি. উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া কুশিয়ারার পানি আমলশীদ পয়েন্টে ১৩০ সে.মি, শেওলা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও শেরপুর পয়েন্টে পানি ৩৮, ১০১ ও ৪ সে.মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। কমেছে লোভা, সারি ও ডাউকি নদীর পানিও।

জেলা প্রশাসন জানায়, জেলার ১৩ উপজেলায় ১০১টি ইউনিয়ন বন্যায় প্লাবিত। ১ হাজার ১৮০টি গ্রামের ৬ লাখ ২৬ হাজার ১৩৮ জন মানুষ বন্যায় আক্রান্ত। জেলার ৬৫০টি আশ্রয় কেন্দ্রে এখন পর্যন্ত ৯ হাজার ৩২৯ জন মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন।

সংশ্লিষ্ট দপ্তর বলছেন,  সিলেটের মধ্য দিয়ে বয়েচলা প্রায় সকল নদী পানিতে পরিপূর্ণ থাকায় উজানের পানি ধীর গতিতে প্রবাহিত হচ্ছে। মূলত নদী ও হাওরগুলো পানিতে পরিপূর্ণ থাকায় দীর্ঘস্থায়ী রূপ নিচ্ছে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি। যার ফলে পানিবন্দি এলাকাগুলোতে মানুষের দুর্ভোগ ও ভোগান্তি আরো বেড়েছে।

সিলেট আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে  সিলেটে গত ২৪ ঘন্টায় ২৫.৬ মি.মি. বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। তবে জুলাই মাস জুড়েই  সিলেটে থেমে থেমে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টি চলতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক রঞ্জন দাস জানান, গত কয়েকদিন ভারতের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বৃষ্টি হয়নি। সিলেটের নদীগুলো পানিতে পরিপূর্ণ থাকায় উজানের পানি ধীর গতিতে প্রবাহিত হচ্ছে। চলমান বন্যায় সিলেটের ২৫ কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যা মেরামতে ১৮ কোটি টাকা ব্যয় হবে। তবে বন্যার পানি পুরোপুরি না নামলে এসব বাঁধের কাজ করা যাবে না।