ঢাকা ১২:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
লন্ডনে ‘ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ অগ্রযাত্রায় আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত সিলেটে বন্যায় ৭ লাখ ৭২ হাজার শিশু ক্ষতিগ্রস্ত হাঁড়িভাঙ্গা আম ও সবজি সংরক্ষণের মিঠাপুকুরে বিশেষায়িত হিমাগার স্থাপিত হবে – কৃষিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর ভারত-চীন সফরেই তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের পথ সুগম করার দাবি সৈয়দপুর হিউম্যানিটি ইন ডিস্ট্রেস (হিড) এর কোরবানি প্রোগ্রামে ১৪,৩৯,০০০ টাকার দুর্নীতির অভিযোগ নামাজ-পড়ালেখা নিয়ে শাসন করায় ফাঁস নিল কিশোরী ১ম বঙ্গবন্ধু ইন্দো-বাংলা ফুটসাল সিরিজের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত দেশে নয়টি ড্রেজিং স্টেশন তৈরি করা হচ্ছে : সিলেটে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে জনদুর্ভোগ অব্যাহত; পানি কোথাও কমছে কোথাও বাড়ছে তিস্তার পানি কমতে শুরু করেছে, বাড়ছে নদীভাঙন
অধিকাংশ ভোটাররা নৌকায় ভোট কেন্দ্রে যান

সিলেটের কানাইঘাট ও জকিগঞ্জে বন্যার মধ্যে ভোট গ্রহন সম্পন্ন

মো.মুহিবুর রহমান,সিলেট
  • Update Time : ০৮:৩১:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪
  • / ২৫ Time View

সিলেটে উজানের ঢলে সৃষ্ট বন্যায় সবচেয়ে আক্রান্ত উপজেলাগুলোর দুটি কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ। এই দুটি উপজেলায়ই আজ বুধবার ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

বন্যার মধ্যে ভোটের আয়োজনে দুর্ভোগে পড়েছেন ভোটাররা। সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের নৌকায় করে আসতে দেখা গেছে। তেেব বেশিভোগ কেন্দ্রেই ভোটার উপস্থিতি একেবারেই কম।

জকিগঞ্জের কোনাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, পুরুষ ভোটারদের কক্ষের সামনে পাঁচ থেকে ছয়জন দাঁড়ানো। নারী ভোটারদের কক্ষের সামনে দুজন ছিলেন। এ ছাড়া প্রেমনগর গ্রামের পুরুষ ভোটারদের ২ নম্বর কক্ষে পৌনে দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে দুটি।

উপজেলার বারহাল ইউনিয়নের কোনাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আসার সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় নৌকায় করে অনেক ভোটারকে কেন্দ্রে আসতে দেখা যায়।এই কেন্দ্রের ভোটার রজত দেব বলেন, বন্যার কারণে সড়ক ডুবে গেছে। ঘর থেকে বের হওয়ারই উপায় নেই। প্রার্থীর লোকজন বাড়িতে নৌকা পাঠিয়েছেন। তাই ভোট দিতে আসছি। এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা জ্যোতিষ মজুমদার জানান, বন্যার কারণে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা কম। এছাড়া সকাল থেকে বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি থামলে ভোটার উপস্থিতি বাড়তে পারে।

সিলেট জেলা প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী, বন্যায় সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়ন প্লাবিত রয়েছে। এ উপজেলার ১১৩টি গ্রাম এখন পর্যন্ত প্লাবিত রয়েছে। এসব এলাকায় বন্যা কবলিত মানুষের সংখ্যা ১ লাখ ৫৬ হাজার ১৪৭ জন। উপজেলার ৫৫ আশ্রয়কেন্দ্রে ৪০৮ জন মানুষ অবস্থান করছেন।

অন্যদিকে কানাইঘাট উপজেলাতেও পৌরসভা ও ৮টি ইউনিয়ন প্লাবিত রয়েছে। বন্যায় এই উপজেলায় ১৯০টি গ্রাম এখনও প্লাবিত। এসব এলাকায় বন্যা কবলিত মানুষের সংখ্যা ৮০ হাজার ৬১০ জন। বুধবার পর্যন্ত ৩২টি আশ্রয়কেন্দ্রে ৪১ জন অবস্থান করছেন।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, কানাইঘাট উপজেলায় ২ লাখ ৮ হাজার ৯৯৯ জন ভোটার রয়েছেন। এছাড়া জকিগঞ্জে মোট ভোটার ১ লাখ ৯১ হাজার ৫১৩ জন। দুই উপজেলায় ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। এর মধ্যে জকিগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন।

অন্যদিকে কানাইঘাট উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যন পদে ৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রের ইমরুল হাসান জানান,পানি উঠে যাওয়ায় জকিগঞ্জের ৫টি ও কানাইঘাটের ৪টি ভোটকেন্দ্র পরিবর্তন করা হয়েছে। বাকীগুলোতে কোন সমস্যা নেই। শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

অধিকাংশ ভোটাররা নৌকায় ভোট কেন্দ্রে যান

সিলেটের কানাইঘাট ও জকিগঞ্জে বন্যার মধ্যে ভোট গ্রহন সম্পন্ন

Update Time : ০৮:৩১:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪

সিলেটে উজানের ঢলে সৃষ্ট বন্যায় সবচেয়ে আক্রান্ত উপজেলাগুলোর দুটি কানাইঘাট ও জকিগঞ্জ। এই দুটি উপজেলায়ই আজ বুধবার ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে।

বন্যার মধ্যে ভোটের আয়োজনে দুর্ভোগে পড়েছেন ভোটাররা। সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের নৌকায় করে আসতে দেখা গেছে। তেেব বেশিভোগ কেন্দ্রেই ভোটার উপস্থিতি একেবারেই কম।

জকিগঞ্জের কোনাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, পুরুষ ভোটারদের কক্ষের সামনে পাঁচ থেকে ছয়জন দাঁড়ানো। নারী ভোটারদের কক্ষের সামনে দুজন ছিলেন। এ ছাড়া প্রেমনগর গ্রামের পুরুষ ভোটারদের ২ নম্বর কক্ষে পৌনে দুই ঘণ্টায় ভোট পড়েছে দুটি।

উপজেলার বারহাল ইউনিয়নের কোনাগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে আসার সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় নৌকায় করে অনেক ভোটারকে কেন্দ্রে আসতে দেখা যায়।এই কেন্দ্রের ভোটার রজত দেব বলেন, বন্যার কারণে সড়ক ডুবে গেছে। ঘর থেকে বের হওয়ারই উপায় নেই। প্রার্থীর লোকজন বাড়িতে নৌকা পাঠিয়েছেন। তাই ভোট দিতে আসছি। এই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা জ্যোতিষ মজুমদার জানান, বন্যার কারণে ভোটার উপস্থিতি কিছুটা কম। এছাড়া সকাল থেকে বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি থামলে ভোটার উপস্থিতি বাড়তে পারে।

সিলেট জেলা প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী, বন্যায় সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়ন প্লাবিত রয়েছে। এ উপজেলার ১১৩টি গ্রাম এখন পর্যন্ত প্লাবিত রয়েছে। এসব এলাকায় বন্যা কবলিত মানুষের সংখ্যা ১ লাখ ৫৬ হাজার ১৪৭ জন। উপজেলার ৫৫ আশ্রয়কেন্দ্রে ৪০৮ জন মানুষ অবস্থান করছেন।

অন্যদিকে কানাইঘাট উপজেলাতেও পৌরসভা ও ৮টি ইউনিয়ন প্লাবিত রয়েছে। বন্যায় এই উপজেলায় ১৯০টি গ্রাম এখনও প্লাবিত। এসব এলাকায় বন্যা কবলিত মানুষের সংখ্যা ৮০ হাজার ৬১০ জন। বুধবার পর্যন্ত ৩২টি আশ্রয়কেন্দ্রে ৪১ জন অবস্থান করছেন।

নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, কানাইঘাট উপজেলায় ২ লাখ ৮ হাজার ৯৯৯ জন ভোটার রয়েছেন। এছাড়া জকিগঞ্জে মোট ভোটার ১ লাখ ৯১ হাজার ৫১৩ জন। দুই উপজেলায় ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। এর মধ্যে জকিগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন।

অন্যদিকে কানাইঘাট উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, ভাইস চেয়ারম্যন পদে ৪ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২ জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

এই নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিলেটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রের ইমরুল হাসান জানান,পানি উঠে যাওয়ায় জকিগঞ্জের ৫টি ও কানাইঘাটের ৪টি ভোটকেন্দ্র পরিবর্তন করা হয়েছে। বাকীগুলোতে কোন সমস্যা নেই। শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়।