ঢাকা ০২:৫৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সারা রাত ঘুমাতে পারিনি, শুধু চুমুর বিষয়টা মাথায় ঘুরছিল : শিরিন শিলা

নওরোজ বিনোদন ডেস্ক
  • Update Time : ০৯:৩৪:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মে ২০২৩
  • / ২৩৫ Time View

শুটিং করছিলেন অভিনেত্রী শিরিন শিলা। পুলিশের পোশাক পরে শুটিং করছিলেন। এ সময় এক ছিন্নমূল কিশোর এগিয়ে আসে, শিরিন শিলাকে জড়িয়ে ধরে। নেহাত শিশু ভেবেই অভিনেত্রী তাকে বুকে স্থান দেন, জড়িয়ে ধরেন।

একসময় শিরিন শিলাকে ওই কিশোর বলে, ‘আমাকে নিয়ে যাও, আমি পড়াশোনা করব’ বলেই আবার জড়িয়ে ধরে। শেষদিকে কিশোরটি শিরিন শিলার গালে চুম্বন দেয়।

এমন একটি ভিডিও গত দুই দিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল। তবে সেই কিশোর সম্পর্কে যখন জানতে পারলেন, সে রাত আর ঘুমাতে পারেননি এ অভিনেত্রী। জানালেন সে একজন রিকশাচালক।

তিনি বলেন,  সারা রাত ঘুমাতে পারিনি, শুধু ওই চুমু দেওয়ার বিষয়টা মাথায় ঘুরছিল। ভোরে উঠেই ওই ছেলেকে খুঁজে বের করেছিলাম। আমার বিশ্বাসটাই ভেঙে দিয়েছে ওই ছেলে।

তিনি বলেন, ও একটা প্রতারক, ‘সে বিবাহিত। ৯ দিন আগে বিয়ে করেছে। সে আমাকে যা যা বলেছে সব মিথ্যা বলেছে।’

এদিন সকালে শিরিন ফেসবুকে একটি ভিডিও আপলোড দেন। যেখানে দেখা যায়, ছেলেটি শিরিন শিলার পা ধরে মাফ চাইছে। শুটিং ইউনিটের কেউ কেউ তাকে পুলিশে দেওয়ার কথাও বলছিলেন। শেষ পর্যন্ত তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

শিরিন শিলা বলেন, ‘ছেলেটিকে আমি একজন ছিন্নমূল শিশু ভেবে মমতা দেখিয়েছিলাম। কিন্তু সে এটার অপব্যবহার করেছে। বিষয়টি ভেবে সারা রাত আমি ঘুমাতে পারিনি। গতকাল ভোরে উঠেই তার খোঁজ করতে শুরু করি। যেহেতু ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে। সেহেতু সবাই তাকে চিনে ফেলেছে। তার বাসায় গিয়ে দেখি, তার স্ত্রী রয়েছে। মা রয়েছে। অথচ সে আমাকে বলেছিল সে তার মাকে দেখেনি।’

অভিনেত্রী আরো বলেন, ‘এই ঘটনা আমাকে খুবই ধাক্কা দিয়েছে। আমি ভাবতে পারিনি মানুষ এভাবেও প্রতারণা করে। তাকে পুলিশে দেওয়া উচিত ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ছেড়ে দিয়েছি।’

ঘটনার সূত্রপাত সম্পর্কে শিরিন শিলা বলেন, “সকালে ‘দ্য রাইটার’ সিনেমার আউটডোরে শুটিং করার জন্য ধামরাইয়ের একটি এলাকায় যাই। শুটিং স্পটে উপস্থিত একটি ছেলে আমাকে দেখে এগিয়ে আসে এবং কথা বলতে চায়। আমি তাকে কাছে টেনে কথা বলি। ওই ছেলে তখন আবেগী কণ্ঠে আমাকে বলে, তার নাকি মা-বাবা নেই; তাকে কেউ ভালোবাসে না। শিলা বলেন, ওই ছেলের এ কথায় তার প্রতি মায়া জন্মে আমার। এ কারণে তার কাঁধে হাত রেখে তাকে আদর করি। তখন সে বলে তার খিদে লেগেছে, তাই আমি তাকে খাওয়ার জন্য কিছু টাকাও দিই। এর পরই সে আমাকে জড়িয়ে ধরে। বিষয়টি স্বাভাবিকভাবেই নিয়েছি। আমার কাছে তাকে মানসিক ভারসাম্যহীন মনে হয়েছে।”

অভিনেত্রী আরো বলেন, ‘সে আমাকে আরো জানায়, সে নাকি কখনো গাড়িতে ওঠেনি। এ কারণে আমার সঙ্গে গাড়িতে উঠবে। এই বলেই আমাকে ফের জড়িয়ে ধরে হঠাৎ গালে চুমু দেওয়ার চেষ্টা করে। তার এ ঘটনায় হতভম্ব হয়ে যাই আমি। পরে শুটিংয়ে থাকা লোকজন তাকে সরিয়ে নিলে আমি গাড়িতে করে ফিরে আসি।’

শিরিন শিলার এই ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। নানা প্রতিক্রিয়ায় ফেসবুক সরগরম হয়ে উঠেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

সারা রাত ঘুমাতে পারিনি, শুধু চুমুর বিষয়টা মাথায় ঘুরছিল : শিরিন শিলা

Update Time : ০৯:৩৪:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মে ২০২৩

শুটিং করছিলেন অভিনেত্রী শিরিন শিলা। পুলিশের পোশাক পরে শুটিং করছিলেন। এ সময় এক ছিন্নমূল কিশোর এগিয়ে আসে, শিরিন শিলাকে জড়িয়ে ধরে। নেহাত শিশু ভেবেই অভিনেত্রী তাকে বুকে স্থান দেন, জড়িয়ে ধরেন।

একসময় শিরিন শিলাকে ওই কিশোর বলে, ‘আমাকে নিয়ে যাও, আমি পড়াশোনা করব’ বলেই আবার জড়িয়ে ধরে। শেষদিকে কিশোরটি শিরিন শিলার গালে চুম্বন দেয়।

এমন একটি ভিডিও গত দুই দিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল। তবে সেই কিশোর সম্পর্কে যখন জানতে পারলেন, সে রাত আর ঘুমাতে পারেননি এ অভিনেত্রী। জানালেন সে একজন রিকশাচালক।

তিনি বলেন,  সারা রাত ঘুমাতে পারিনি, শুধু ওই চুমু দেওয়ার বিষয়টা মাথায় ঘুরছিল। ভোরে উঠেই ওই ছেলেকে খুঁজে বের করেছিলাম। আমার বিশ্বাসটাই ভেঙে দিয়েছে ওই ছেলে।

তিনি বলেন, ও একটা প্রতারক, ‘সে বিবাহিত। ৯ দিন আগে বিয়ে করেছে। সে আমাকে যা যা বলেছে সব মিথ্যা বলেছে।’

এদিন সকালে শিরিন ফেসবুকে একটি ভিডিও আপলোড দেন। যেখানে দেখা যায়, ছেলেটি শিরিন শিলার পা ধরে মাফ চাইছে। শুটিং ইউনিটের কেউ কেউ তাকে পুলিশে দেওয়ার কথাও বলছিলেন। শেষ পর্যন্ত তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

শিরিন শিলা বলেন, ‘ছেলেটিকে আমি একজন ছিন্নমূল শিশু ভেবে মমতা দেখিয়েছিলাম। কিন্তু সে এটার অপব্যবহার করেছে। বিষয়টি ভেবে সারা রাত আমি ঘুমাতে পারিনি। গতকাল ভোরে উঠেই তার খোঁজ করতে শুরু করি। যেহেতু ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেছে। সেহেতু সবাই তাকে চিনে ফেলেছে। তার বাসায় গিয়ে দেখি, তার স্ত্রী রয়েছে। মা রয়েছে। অথচ সে আমাকে বলেছিল সে তার মাকে দেখেনি।’

অভিনেত্রী আরো বলেন, ‘এই ঘটনা আমাকে খুবই ধাক্কা দিয়েছে। আমি ভাবতে পারিনি মানুষ এভাবেও প্রতারণা করে। তাকে পুলিশে দেওয়া উচিত ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ছেড়ে দিয়েছি।’

ঘটনার সূত্রপাত সম্পর্কে শিরিন শিলা বলেন, “সকালে ‘দ্য রাইটার’ সিনেমার আউটডোরে শুটিং করার জন্য ধামরাইয়ের একটি এলাকায় যাই। শুটিং স্পটে উপস্থিত একটি ছেলে আমাকে দেখে এগিয়ে আসে এবং কথা বলতে চায়। আমি তাকে কাছে টেনে কথা বলি। ওই ছেলে তখন আবেগী কণ্ঠে আমাকে বলে, তার নাকি মা-বাবা নেই; তাকে কেউ ভালোবাসে না। শিলা বলেন, ওই ছেলের এ কথায় তার প্রতি মায়া জন্মে আমার। এ কারণে তার কাঁধে হাত রেখে তাকে আদর করি। তখন সে বলে তার খিদে লেগেছে, তাই আমি তাকে খাওয়ার জন্য কিছু টাকাও দিই। এর পরই সে আমাকে জড়িয়ে ধরে। বিষয়টি স্বাভাবিকভাবেই নিয়েছি। আমার কাছে তাকে মানসিক ভারসাম্যহীন মনে হয়েছে।”

অভিনেত্রী আরো বলেন, ‘সে আমাকে আরো জানায়, সে নাকি কখনো গাড়িতে ওঠেনি। এ কারণে আমার সঙ্গে গাড়িতে উঠবে। এই বলেই আমাকে ফের জড়িয়ে ধরে হঠাৎ গালে চুমু দেওয়ার চেষ্টা করে। তার এ ঘটনায় হতভম্ব হয়ে যাই আমি। পরে শুটিংয়ে থাকা লোকজন তাকে সরিয়ে নিলে আমি গাড়িতে করে ফিরে আসি।’

শিরিন শিলার এই ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। নানা প্রতিক্রিয়ায় ফেসবুক সরগরম হয়ে উঠেছে।