ঢাকা ০৭:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
সন্তানদের নতুন জামা পরিয়ে রাতে ঘর থেকে বের হয়ে আর ফিরলেন না বাবা প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স নীতির ফলে দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মুল হয়েছেঃ সিলেটে আইজিপি বড় পরিসরে আর. কে. মিশন রোডে ব্র্যাক ব্যাংকের শাখা উদ্বোধন সৌদিতে প্রথমবারের মতো সুইমস্যুট পরে র‌্যাম্পে হাঁটলেন মডেলরা ‘আয়রনম্যান’ চরিত্রে ফিরতে ‘আপত্তি নেই’ রবার্ট ডাউনি জুনিয়রের বাংলাদেশের গণতন্ত্র ধ্বংসের জন্য ভারত সরকার দায়ী : কর্নেল অলি বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সিরিজ নিয়ে শঙ্কা কাঠালিয়ায় ডাকাতের গুলিতে আহত ২ বিএনপি একটা জালিয়ত রাজনৈতিক দল : পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেয়র তাপস মনগড়া ও অসত্য বক্তব্য দিচ্ছেন : সাঈদ খোকন

শ্বশুরবাড়িতে জামাইকে হত্যা, স্ত্রী-শ্বশুরসহ গ্রেপ্তার ৪

জাহাঙ্গীর আকন্দ
  • Update Time : ০৭:৪০:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪
  • / ১৮ Time View

শ্বশুরবাড়িতে স্বামীকে হত্যার অভিযোগে নিহতের স্ত্রী, শ্বশুর, শ্যালকসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

অভিযুক্ত আসামিরা নিহতের বাহুতে কামড় দিয়ে চোখ, মুখ ও বিশেষ অঙ্গে আঘাত করে হত্যা করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। শনিবার গাজীপুরের মেট্রোপলিটন পুলিশের পূবাইল থানা পুলিশ এই তথ্য নিশ্চিত করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- রবিউলের স্ত্রী কারিমা বেগম (২২), শ্বশুর আবুল কালাম আজাদ (৪৫), শ্যালক হুমায়ুন কবির (১৯) ও প্রতিবেশী লিটন মিয়া (৪৬)।

প্রথম তিনজনের স্থায়ী বাড়ি শেরপুরের শ্রীবর্দী থানার বালুঘাট গ্রামে। লিটনের স্থায়ী বাড়ি শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানার আইটপাড়া গ্রামে। তারা সবাই পূবাইলের সাতানিপাড়া এলাকায় থাকতেন।

জানা যায়, গত রবিবার (৫ মে) গাজীপুরের পূবাইল এলাকার সাতানিপাড়া গ্রামে রবিউল ইসলাম (২৮) নামে একজনকে শ্বশুরবাড়িতে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়।

রবিউল টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার দুই নাম্বার ব্লকের তুহিন তালুকদারের ছেলে। এরপর আহতকে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শুক্রবার তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

পুলিশ জানায়, প্রায় এক বছর আগে গাজীপুরের পূবাইল থানার সাতানিপাড়া এলাকার কালাম মিয়ার মেয়ে করিমার সঙ্গে বিয়ে হয়।

গত রবিবার স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন রবিউল। ওই দিন রাতেই স্ত্রী করিমার সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয় রবিউলের। একপর্যায়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন সবাই মিলে তাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এ সময় বাঁশের মোটা লাঠি দিয়ে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে।

পুলিশ আরো জানায়, আসামিরা নিহতের বিশেষ অঙ্গে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। তারা তার ডান হাতের বাহুতে কামড় দিয়ে জখম করে এবং দুই চোখে আঘাত করে রক্তাক্ত করে ঘরে ফেলে রাখে। পরে আহত অবস্থায় রবিউলকে টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার নিজ বাড়িতে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে আবার তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পূবাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, সুরতহাল শেষে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা মো. তুহিন তালুকদার (৬০) বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলার এজাহারে থাকা চার আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

শ্বশুরবাড়িতে জামাইকে হত্যা, স্ত্রী-শ্বশুরসহ গ্রেপ্তার ৪

Update Time : ০৭:৪০:২৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০২৪

শ্বশুরবাড়িতে স্বামীকে হত্যার অভিযোগে নিহতের স্ত্রী, শ্বশুর, শ্যালকসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

অভিযুক্ত আসামিরা নিহতের বাহুতে কামড় দিয়ে চোখ, মুখ ও বিশেষ অঙ্গে আঘাত করে হত্যা করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। শনিবার গাজীপুরের মেট্রোপলিটন পুলিশের পূবাইল থানা পুলিশ এই তথ্য নিশ্চিত করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- রবিউলের স্ত্রী কারিমা বেগম (২২), শ্বশুর আবুল কালাম আজাদ (৪৫), শ্যালক হুমায়ুন কবির (১৯) ও প্রতিবেশী লিটন মিয়া (৪৬)।

প্রথম তিনজনের স্থায়ী বাড়ি শেরপুরের শ্রীবর্দী থানার বালুঘাট গ্রামে। লিটনের স্থায়ী বাড়ি শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া থানার আইটপাড়া গ্রামে। তারা সবাই পূবাইলের সাতানিপাড়া এলাকায় থাকতেন।

জানা যায়, গত রবিবার (৫ মে) গাজীপুরের পূবাইল এলাকার সাতানিপাড়া গ্রামে রবিউল ইসলাম (২৮) নামে একজনকে শ্বশুরবাড়িতে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়।

রবিউল টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার দুই নাম্বার ব্লকের তুহিন তালুকদারের ছেলে। এরপর আহতকে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শুক্রবার তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

পুলিশ জানায়, প্রায় এক বছর আগে গাজীপুরের পূবাইল থানার সাতানিপাড়া এলাকার কালাম মিয়ার মেয়ে করিমার সঙ্গে বিয়ে হয়।

গত রবিবার স্ত্রীকে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন রবিউল। ওই দিন রাতেই স্ত্রী করিমার সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয় রবিউলের। একপর্যায়ে শ্বশুরবাড়ির লোকজন সবাই মিলে তাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এ সময় বাঁশের মোটা লাঠি দিয়ে মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করে।

পুলিশ আরো জানায়, আসামিরা নিহতের বিশেষ অঙ্গে আঘাত করে গুরুতর জখম করে। তারা তার ডান হাতের বাহুতে কামড় দিয়ে জখম করে এবং দুই চোখে আঘাত করে রক্তাক্ত করে ঘরে ফেলে রাখে। পরে আহত অবস্থায় রবিউলকে টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে টঙ্গীর এরশাদনগর এলাকার নিজ বাড়িতে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে আবার তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পূবাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান বলেন, সুরতহাল শেষে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা মো. তুহিন তালুকদার (৬০) বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলার এজাহারে থাকা চার আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।