ঢাকা ১২:৩৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
লন্ডনে ‘ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ অগ্রযাত্রায় আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত সিলেটে বন্যায় ৭ লাখ ৭২ হাজার শিশু ক্ষতিগ্রস্ত হাঁড়িভাঙ্গা আম ও সবজি সংরক্ষণের মিঠাপুকুরে বিশেষায়িত হিমাগার স্থাপিত হবে – কৃষিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর ভারত-চীন সফরেই তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের পথ সুগম করার দাবি সৈয়দপুর হিউম্যানিটি ইন ডিস্ট্রেস (হিড) এর কোরবানি প্রোগ্রামে ১৪,৩৯,০০০ টাকার দুর্নীতির অভিযোগ নামাজ-পড়ালেখা নিয়ে শাসন করায় ফাঁস নিল কিশোরী ১ম বঙ্গবন্ধু ইন্দো-বাংলা ফুটসাল সিরিজের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত দেশে নয়টি ড্রেজিং স্টেশন তৈরি করা হচ্ছে : সিলেটে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে জনদুর্ভোগ অব্যাহত; পানি কোথাও কমছে কোথাও বাড়ছে তিস্তার পানি কমতে শুরু করেছে, বাড়ছে নদীভাঙন

রংপুর সদরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ

কামরুল হাসান টিটু, রংপুর ব‌্যু‌রো
  • Update Time : ১০:১০:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪
  • / ৩৪ Time View

রংপুর সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী ইকবাল হোসেনের (আনারস প্রতীক) ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। তার প্রতিদ্বন্দ্বী মহানগর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ডা. দেলোয়ার হোসেনের (হেলিকপ্টার প্রতীক) কর্মী-সমর্থকরা এ হামলা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ইকবাল হোসেন।

বুধবার (২৯ মে) দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ন্যায় বিচার ও ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে প্রার্থী ইকবাল হোসেন কেন্দ্রের সামনে ঘণ্টাব্যাপী প্রতীকী অনশন করেন।

আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ইকবাল হোসেন বলেন, দুপুরে আমি মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন গেলে হেলিকপ্টার প্রতীকের কর্মী-সমর্থকরা প্রশাসনের সামনে আমার ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে কেন্দ্র থেকে বের করে দেন। এ কেন্দ্রের ভোটারদের রাস্তায় আটকে রাখা হয়। তাদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দেওয়া হয়। নির্বাচনের পরিবেশ ফিরে না আসায় আমি এখানে অবস্থান নিয়েছি।

মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান বলেন, চেয়ারম্যান প্রার্থী কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে উত্তেজনা দেখা দেয়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। খবর পেয়ে বিজিবির সদস্যরাও উপস্থিত হয়েছে।

চেয়ারম্যান প্রার্থী ডা. দেলোয়ার হোসেন হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, নির্বাচনে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা রটিয়ে ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা চলছে। মূলত ওই চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘটনাস্থলে দীর্ঘ সময় ধরে অবস্থান করায় অন্য প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকরা উত্তেজিত হলে সেখানে হট্টগোল শুরু হয়। আমার জানা মতে সেখানে হামলার কোনো ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে রংপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের সাতজন ও জাতীয় পার্টির একজন লড়ছেন।

এ ছাড়াও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পাঁচটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এই উপজেলায় মোট ভোটার ১ লাখ ৩৭ হাজার ৭১০ জন। এখানে ৬১টি ভোটকেন্দ্রের ৩৬৩টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

রংপুর সদরে চেয়ারম্যান প্রার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ

Update Time : ১০:১০:২৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

রংপুর সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থী ইকবাল হোসেনের (আনারস প্রতীক) ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। তার প্রতিদ্বন্দ্বী মহানগর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ডা. দেলোয়ার হোসেনের (হেলিকপ্টার প্রতীক) কর্মী-সমর্থকরা এ হামলা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ইকবাল হোসেন।

বুধবার (২৯ মে) দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ন্যায় বিচার ও ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে প্রার্থী ইকবাল হোসেন কেন্দ্রের সামনে ঘণ্টাব্যাপী প্রতীকী অনশন করেন।

আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী ইকবাল হোসেন বলেন, দুপুরে আমি মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন গেলে হেলিকপ্টার প্রতীকের কর্মী-সমর্থকরা প্রশাসনের সামনে আমার ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে কেন্দ্র থেকে বের করে দেন। এ কেন্দ্রের ভোটারদের রাস্তায় আটকে রাখা হয়। তাদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দেওয়া হয়। নির্বাচনের পরিবেশ ফিরে না আসায় আমি এখানে অবস্থান নিয়েছি।

মোবারক হোসেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মোস্তাফিজার রহমান বলেন, চেয়ারম্যান প্রার্থী কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে উত্তেজনা দেখা দেয়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়েছে। খবর পেয়ে বিজিবির সদস্যরাও উপস্থিত হয়েছে।

চেয়ারম্যান প্রার্থী ডা. দেলোয়ার হোসেন হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, নির্বাচনে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা কথা রটিয়ে ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা চলছে। মূলত ওই চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘটনাস্থলে দীর্ঘ সময় ধরে অবস্থান করায় অন্য প্রার্থীদের কর্মী সমর্থকরা উত্তেজিত হলে সেখানে হট্টগোল শুরু হয়। আমার জানা মতে সেখানে হামলার কোনো ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে রংপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ১৯ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের সাতজন ও জাতীয় পার্টির একজন লড়ছেন।

এ ছাড়াও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। পাঁচটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত এই উপজেলায় মোট ভোটার ১ লাখ ৩৭ হাজার ৭১০ জন। এখানে ৬১টি ভোটকেন্দ্রের ৩৬৩টি কক্ষে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।