ঢাকা ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
কিশোরগঞ্জে ২০ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল প্রেস কাউন্সিল সাংবাদিকতার মান উন্নয়নে কাজ করছেঃ সিলেটে বিচারপতি মো. নিজামুল হক গাইবান্ধায় তৈরি হচ্ছে পরিবেশবান্ধব কংক্রিটের ইট গাইবান্ধায় মামলা প্রত্যাহার ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন সিলেট প্রেসক্লাব নির্বাচনে সভাপতি ইকরামুল কবির, সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম ঝালকাঠিতে ট্রাকচাপায় ১৪ জন নিহতের ঘটনায় চালক-হেলপার কারাগারে সূর্যের প্রখরতা আর ভ্যাপসা গরমে জনজীবন অতিষ্ঠ বিএনপির লক্ষ্য একাত্তর মুছে সাত চল্লিশে ফিরে যাওয়া: শাহরিয়ার কবির  হানিমুনে যাওয়া হলো না নবদম্পতির, একই পরিবারের ৬ জন নিহত ঝালকাঠিতে ট্রাকচাপায় নিহত ১৪ জনের মরদেহ হস্তান্তর

রংপুর অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবি

কামরুল হাসান টিটু, রংপুর ব্যুরো
  • Update Time : ১১:৪৮:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ জুন ২০২৩
  • / ১০২ Time View

পিছিয়ে পড়া রংপুর অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে আসন্ন বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবি জানিয়েছেন রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

বৃহস্পতিবার (০১ জুন) জাতীয় সংসদে উত্থাপিত ২০২৩-২৪ অর্থবছরের ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানান সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সংগঠক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ সরকারি বেসরকারি চাকরিজীবীগণ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রংপুর অঞ্চলের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে হলে শিল্পায়নের কোনো বিকল্প নেই। শিল্পায়নের দিক দিয়ে রংপুর অনেক পিছিয়ে। হাতে গোনা দু–চারটি ক্ষুদ্র শিল্প ছাড়া শিল্পায়ন বলতে রংপুরে কিছুই নেই। তাই শিল্পায়ন ও বাণিজ্যে বিনিয়োগ ও কর্মস্থান তৈরিতে বাজেটে আলাদা বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানান তারা। এছাড়া তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে এ বাজেটেই বিশেষ বরাদ্দ দেয়াসহ শিক্ষা বাজেটে পিছিয়ে থাকা রংপুরের জন্য বরাদ্দ বাড়ানো ও সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে বাজেটকে জনবান্ধব করার আহ্বান সকলের।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) রংপুর মহানগরের সভাপতি খন্দকার ফখরুল আনাম বেঞ্জু বলেন, ‘পিছিয়ে পড়া রংপুর অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে সরকারকে ‘থোক’ বরাদ্দ দিতে হবে। এ অঞ্চলে কোনো শিল্পায়ন গড়ে ওঠেনি, ইন্ডাস্ট্রি গড়ে ওঠেনি। এখানে বিনিয়োগের তেমন সুযোগ না থাকায় কেউ বিনিয়োগ করতে চাচ্ছে না। সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। এ বাজেটকে জনবান্ধব করতে হবে।

তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি নজরুল ইসলাম হাক্কানি বলেন, সরকার নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু তৈরি করতে পারলে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারবে না কেনো। আমরা চাই এ বাজেটে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য একটি আলাদা বরাদ্দ রাখা হোক।

রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী বলেন,অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে হলে শিল্পায়নের কোনো বিকল্প নেই। শিল্পায়নের দিক দিয়ে রংপুর অনেক পিছিয়ে। হাতে গোনা দু–চারটি ক্ষুদ্র শিল্প ছাড়া শিল্পায়ন বলতে রংপুরে কিছুই নেই। তাই শিল্পায়ন ও বাণিজ্যে বিনিয়োগের পাশাপাশি কর্মস্থান তৈরিতে বাজেটে আলাদা বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানাচ্ছি।

Please Share This Post in Your Social Media

রংপুর অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবি

Update Time : ১১:৪৮:৩৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ জুন ২০২৩

পিছিয়ে পড়া রংপুর অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে আসন্ন বাজেটে বিশেষ বরাদ্দের দাবি জানিয়েছেন রংপুরের বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ।

বৃহস্পতিবার (০১ জুন) জাতীয় সংসদে উত্থাপিত ২০২৩-২৪ অর্থবছরের ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া জানান সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সংগঠক, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ সরকারি বেসরকারি চাকরিজীবীগণ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রংপুর অঞ্চলের অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে হলে শিল্পায়নের কোনো বিকল্প নেই। শিল্পায়নের দিক দিয়ে রংপুর অনেক পিছিয়ে। হাতে গোনা দু–চারটি ক্ষুদ্র শিল্প ছাড়া শিল্পায়ন বলতে রংপুরে কিছুই নেই। তাই শিল্পায়ন ও বাণিজ্যে বিনিয়োগ ও কর্মস্থান তৈরিতে বাজেটে আলাদা বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানান তারা। এছাড়া তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে এ বাজেটেই বিশেষ বরাদ্দ দেয়াসহ শিক্ষা বাজেটে পিছিয়ে থাকা রংপুরের জন্য বরাদ্দ বাড়ানো ও সাধারণ মানুষের কথা মাথায় রেখে বাজেটকে জনবান্ধব করার আহ্বান সকলের।

সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) রংপুর মহানগরের সভাপতি খন্দকার ফখরুল আনাম বেঞ্জু বলেন, ‘পিছিয়ে পড়া রংপুর অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে সরকারকে ‘থোক’ বরাদ্দ দিতে হবে। এ অঞ্চলে কোনো শিল্পায়ন গড়ে ওঠেনি, ইন্ডাস্ট্রি গড়ে ওঠেনি। এখানে বিনিয়োগের তেমন সুযোগ না থাকায় কেউ বিনিয়োগ করতে চাচ্ছে না। সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। এ বাজেটকে জনবান্ধব করতে হবে।

তিস্তা বাঁচাও নদী বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি নজরুল ইসলাম হাক্কানি বলেন, সরকার নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু তৈরি করতে পারলে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পারবে না কেনো। আমরা চাই এ বাজেটে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য একটি আলাদা বরাদ্দ রাখা হোক।

রংপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী বলেন,অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে হলে শিল্পায়নের কোনো বিকল্প নেই। শিল্পায়নের দিক দিয়ে রংপুর অনেক পিছিয়ে। হাতে গোনা দু–চারটি ক্ষুদ্র শিল্প ছাড়া শিল্পায়ন বলতে রংপুরে কিছুই নেই। তাই শিল্পায়ন ও বাণিজ্যে বিনিয়োগের পাশাপাশি কর্মস্থান তৈরিতে বাজেটে আলাদা বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানাচ্ছি।