ঢাকা ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
নোয়াখালীতে নকল ক্যাবল বিক্রির দায়ে জরিমানা কোটা সংস্কার আন্দোলনে যাওয়ায় ইবি শিক্ষার্থীকে বেধরক মারধর  পিবিআই এর দুই কর্মকর্তার বদলী জনিত বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত মোটরসাইকেল নিয়ে বিরোধ: নোয়াখালীতে বসতঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে সওজের জায়গায় অবৈধ দখলে থাকা দোকানপাট উচ্ছেদ দুই বঙ্গকন্যা ব্রিটিশ মন্ত্রীসভায় স্থান পাওয়ায় বঙ্গবন্ধু লেখক-সাংবাদিক ফোরামের আনন্দ সভা নতুন আশ্রয়ণের ঘর নির্মাণে খুশী গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষ গ্যাস সংকটে চার মাস ধরে শাহজালাল সার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ সুবর্ণচরে বৃদ্ধকে জবাই করে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩ নোয়াখালীতে নৈশ প্রহরীকে উলঙ্গ করে বেঁধে ১১ দোকানে ডাকাতি

রংপুরে জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১৩২০ জন

কামরুল হাসান টিটু, রংপুর ব‌্যু‌রো
  • Update Time : ১১:১৬:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ জুন ২০২৪
  • / ৩২ Time View

রংপুরে জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর জেলা রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, রংপুর জেলার মোট জনসংখ্যা ৩১ লক্ষ ৬৯ হাজার ৬১৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৯.৫০ শতাংশ এবং নারী ৫০.৫০ শতাংশ। জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১ হাজার ৩২০ জন। আর সাক্ষরতার হার ৭০.৭৩ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর জেলা রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রংপুরের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. আবু জাফর। রংপুর জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার বলেন, ২০২২ সালে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনশুমারি ও গৃহগণনা অনুষ্ঠিত হয়। তথ্য সংগ্রহে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহৃত হওয়ায় এই জনশুমারি ও গৃহগণনার রিপোর্ট অনেকাংশে নির্ভুল। সরকারি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও সম্পদের সুষম বণ্টনে নির্ভুল পরিসংখ্যানের কোনো বিকল্প নেই।

তথ্যকে শক্তি হিসাবে উল্লেখ করে মো. আবু জাফর বলেন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন ও উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে সঠিক পরিকল্পনা গ্রহণে জনশুমারির তথ্যকে কাজে লাগাতে হবে। জনশুমারির তথ্যের উপর ভিত্তি করে সরকারি দপ্তরসমূহকে সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও তা বাস্তবায়নের জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে রংপুর বিভাগীয় পরিসংখ্যান কার্যালয়ের যুগ্মপরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর জেলা রিপোর্ট বিষয়ে একটি তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন। তথ্যচিত্রে তিনি জনশুমারি ও গৃহগণনার তথ্য সংগ্রহ পদ্ধতি, ডিজিটাল শুমারিতে ব্যবহৃত টেকনোলজি ও রংপুর জেলার জনমিতিক বৈশিষ্ট্য উপস্থাপন করেন।

রংপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিচালক এইচ এম ফিরোজ, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সাংবাদিক ও এনজিও প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

রংপুরে জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১৩২০ জন

কামরুল হাসান টিটু, রংপুর ব‌্যু‌রো
Update Time : ১১:১৬:১৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ জুন ২০২৪

রংপুরে জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর জেলা রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, রংপুর জেলার মোট জনসংখ্যা ৩১ লক্ষ ৬৯ হাজার ৬১৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৪৯.৫০ শতাংশ এবং নারী ৫০.৫০ শতাংশ। জনসংখ্যার ঘনত্ব প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১ হাজার ৩২০ জন। আর সাক্ষরতার হার ৭০.৭৩ শতাংশ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর জেলা রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রংপুরের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. আবু জাফর। রংপুর জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার বলেন, ২০২২ সালে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে ডিজিটাল পদ্ধতিতে জনশুমারি ও গৃহগণনা অনুষ্ঠিত হয়। তথ্য সংগ্রহে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহৃত হওয়ায় এই জনশুমারি ও গৃহগণনার রিপোর্ট অনেকাংশে নির্ভুল। সরকারি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও সম্পদের সুষম বণ্টনে নির্ভুল পরিসংখ্যানের কোনো বিকল্প নেই।

তথ্যকে শক্তি হিসাবে উল্লেখ করে মো. আবু জাফর বলেন, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন ও উন্নত বাংলাদেশ বিনির্মাণে সঠিক পরিকল্পনা গ্রহণে জনশুমারির তথ্যকে কাজে লাগাতে হবে। জনশুমারির তথ্যের উপর ভিত্তি করে সরকারি দপ্তরসমূহকে সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও তা বাস্তবায়নের জন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে রংপুর বিভাগীয় পরিসংখ্যান কার্যালয়ের যুগ্মপরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২-এর জেলা রিপোর্ট বিষয়ে একটি তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন। তথ্যচিত্রে তিনি জনশুমারি ও গৃহগণনার তথ্য সংগ্রহ পদ্ধতি, ডিজিটাল শুমারিতে ব্যবহৃত টেকনোলজি ও রংপুর জেলার জনমিতিক বৈশিষ্ট্য উপস্থাপন করেন।

রংপুরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোবাশ্বের হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর পরিচালক এইচ এম ফিরোজ, সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সাংবাদিক ও এনজিও প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।