ঢাকা ০২:৩০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রংপুরে কলেজছাত্র হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪

কামরুল হাসান টিটু, রংপুর ব্যুরো
  • Update Time : ০৫:৫১:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩
  • / ৯৪ Time View

রংপুরের কাউনিয়ায় ফুটবল খেলার মাঠের বাগবিতন্ডাকে কেন্দ্র করে আশিকুর রহমান আশিক নামের কলেজপড়ুয়া এক ছাত্রকে হত্যার ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২০ মে) সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে ঘটনার দিন শুক্রবার রাতে আরও একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তাররা হলেন; উপজেরার বালাপাড়া ইউনিয়নের নিজপাড়া গ্রামের মৃত খায়রুল ইসলাম কালুর ছেলে আতিকুর রহমান (১৯), সাহাবাজ গ্রামের নুরুল ইসলাম ছেলে আল মামুন (২১), গঙ্গানারায়ণ গ্রামের শাহ্ আলমের ছেলে রেজাউল হাসান রাহি (২১) ও মৃত মফিজ উদ্দিনের বাবু মিয়া (৩০)।

রোববার(২১ মে) বিকেলে কাউনিয়া থানা পুলিশে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, মামলার তদন্তকাজ সঠিক নিয়মে চলছে। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

গত ১৯ মে শুক্রবার রাতে আশিকুর রহমান ওরফে আশিক খুন হয়। সে উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের হরিশ্বর স্টেশন দলাপাড়া গ্রামের তফেল উদ্দিনের ছেলে। কাউনিয়া কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল সে।

আশিকের মৃত্যুর ঘটনায় শনিবার বিকেলে তার মা আবেদা খাতুন বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ কাউনিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এতে আর ৪-৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

নিহতের মা আবেদা খাতুন বলেন, আমার ছেলেকে যারা ডেকে নিয়ে গিয়ে নৃর্শংসভাবে হত্যা করেছে। তার আমি দৃষ্টান্ত শাস্তি চাই। আর যেন কোন মায়ের বুক খালি না হয়।

জানা গেছে, শুক্রবার (১৯ মে) বিকেলে উপজেলার কাউনিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় কিছু কিশোর ফুটবল খেলার আয়োজন করে। ফুটবল খেলা চলাকালে আতিকুর ও আশিকুরের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। খেলা শেষে আশিকুর বাড়ি ফিরে বিশ্রাম শেষে সন্ধ্যায় উপজেলার সদর বাসস্ট্যান্ড মোড় এলাকায় আসলে আতিকুরসহ আরও কয়েকজন কিশোর সংঘবদ্ধভাবে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তার উপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়। হামলায় মাথায় আঘাত পেয়ে আশিকুর রাস্তার ওপর পড়ে যান।

স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় চিকিৎসক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে দশটার দিকে আশিকুর রহমান মারা যায়।

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়, ধারালো কিংবা ভারী কোন কিছু দিয়ে আশিকুরের মাথায় আঘাত করা হয়েছে। আঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়।

কাউনিয়া থানা পুলিশে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, ফুটবল খেলার মাঠের দ্বন্দ্ব থেকে সংঘর্ষে আশিকুর নামে এক কিশোর আহত হয়। শুক্রবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

শনিবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে আশিকুরের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। ওই মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে মাঠে কাজ করছে পুলিশ।

Please Share This Post in Your Social Media

রংপুরে কলেজছাত্র হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪

Update Time : ০৫:৫১:৫১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩

রংপুরের কাউনিয়ায় ফুটবল খেলার মাঠের বাগবিতন্ডাকে কেন্দ্র করে আশিকুর রহমান আশিক নামের কলেজপড়ুয়া এক ছাত্রকে হত্যার ঘটনায় আরও তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২০ মে) সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে ঘটনার দিন শুক্রবার রাতে আরও একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তাররা হলেন; উপজেরার বালাপাড়া ইউনিয়নের নিজপাড়া গ্রামের মৃত খায়রুল ইসলাম কালুর ছেলে আতিকুর রহমান (১৯), সাহাবাজ গ্রামের নুরুল ইসলাম ছেলে আল মামুন (২১), গঙ্গানারায়ণ গ্রামের শাহ্ আলমের ছেলে রেজাউল হাসান রাহি (২১) ও মৃত মফিজ উদ্দিনের বাবু মিয়া (৩০)।

রোববার(২১ মে) বিকেলে কাউনিয়া থানা পুলিশে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, মামলার তদন্তকাজ সঠিক নিয়মে চলছে। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

গত ১৯ মে শুক্রবার রাতে আশিকুর রহমান ওরফে আশিক খুন হয়। সে উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের হরিশ্বর স্টেশন দলাপাড়া গ্রামের তফেল উদ্দিনের ছেলে। কাউনিয়া কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল সে।

আশিকের মৃত্যুর ঘটনায় শনিবার বিকেলে তার মা আবেদা খাতুন বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখ কাউনিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এতে আর ৪-৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

নিহতের মা আবেদা খাতুন বলেন, আমার ছেলেকে যারা ডেকে নিয়ে গিয়ে নৃর্শংসভাবে হত্যা করেছে। তার আমি দৃষ্টান্ত শাস্তি চাই। আর যেন কোন মায়ের বুক খালি না হয়।

জানা গেছে, শুক্রবার (১৯ মে) বিকেলে উপজেলার কাউনিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় কিছু কিশোর ফুটবল খেলার আয়োজন করে। ফুটবল খেলা চলাকালে আতিকুর ও আশিকুরের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। খেলা শেষে আশিকুর বাড়ি ফিরে বিশ্রাম শেষে সন্ধ্যায় উপজেলার সদর বাসস্ট্যান্ড মোড় এলাকায় আসলে আতিকুরসহ আরও কয়েকজন কিশোর সংঘবদ্ধভাবে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তার উপর অতর্কিত ভাবে হামলা চালায়। হামলায় মাথায় আঘাত পেয়ে আশিকুর রাস্তার ওপর পড়ে যান।

স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় চিকিৎসক তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে দশটার দিকে আশিকুর রহমান মারা যায়।

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানায়, ধারালো কিংবা ভারী কোন কিছু দিয়ে আশিকুরের মাথায় আঘাত করা হয়েছে। আঘাতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়।

কাউনিয়া থানা পুলিশে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোন্তাছের বিল্লাহ বলেন, ফুটবল খেলার মাঠের দ্বন্দ্ব থেকে সংঘর্ষে আশিকুর নামে এক কিশোর আহত হয়। শুক্রবার রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

শনিবার বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে আশিকুরের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় একটি মামলা হয়েছে। ওই মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে মাঠে কাজ করছে পুলিশ।