ঢাকা ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাকে লাঞ্ছিত করার বিচার না করলে আত্মহত্যার হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি
  • Update Time : ১১:২১:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ মে ২০২৩
  • / ৮৪ Time View

মাকে অপমান ও লাঞ্ছিত করে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার বিচার দাবি করেছেন সন্দ্বীপ উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক ফজলুল করিম মিনহাজ। অন্যথায় ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা করবেন বলে হুমকি দিয়েছেন তিনি।

শনিবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ হুমকি দেন মিনহাজ।

মিনহাজ লেখেন, ‘গত ২৫ মে সন্দ্বীপ পৌরসভা ৯ নম্বর ওয়ার্ডে আমার আম্মার ওপর নির্যাতনের বিষয়টি কেউ যদি বিচার না করে তাহলে বিচারের জন্য প্রয়োজনে অনেক দূর যাব। তারপরও যদি বিচার না পাই, তাহলে খোদার কসম খেয়ে বললাম আত্মহত্যা মহাপাপ জেনেও আপনাদের সামনে ফেসবুক লাইভে এসে নিজেকে বিলিয়ে দেব। কারণ যে সন্তান নিজের মায়ের ওপর সন্ত্রাসী নির্যাতনের প্রতিবাদ করতে পারবে না সে সন্তানের এ দেশে বেঁচে থাকার কোনো অধিকার নেই। মরার আগে বলে যাব ২০১৩ থেকে শুরু করে আমিও একজন ছাত্রলীগ এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মী। একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক। আর সেই স্বাধীন দেশে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে ভোট দিতে গিয়ে আমার মাকে মারধর ও নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে। বিচার দিয়ে যাব জাতির কাছে।’

মিনহাজের এ স্ট্যাটাস মুহূর্তে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ মিনহাজের মায়ের লাঞ্ছিতকারী কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এ ঘটনা সন্দ্বীপজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, মিনহাজের মা গত ২৫ মে সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে ভোট দিতে কেন্দ্রে যান। কেন্দ্রে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে নৌকা মার্কার একজন এজেন্ট তাকে কেন্দ্র থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। মিনহাজের মা এর প্রতিবাদ করায় ওই এজেন্ট তাকে থাপ্পড় তুলতে উদ্যত হন। এরপরও তিনি ভোট দেওয়ার জন্য প্রতিবাদ করলে তাকে বেশ কয়েকটি লাথি দিয়ে কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়। কেন্দ্র থেকে বের হয়ে মিনহাজের মা পুরো ঘটনাটি সাংবাদিকদের জানান।

মিনহাজ সন্দ্বীপ থানা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের কাছে এর বিচার দাবি করেও কোনো প্রতিকার পাননি। বাধ্য হয়ে তিনি বিচারের দাবিতে ফেসবুকে আত্মহত্যার হুমকি দেন।

Please Share This Post in Your Social Media

মাকে লাঞ্ছিত করার বিচার না করলে আত্মহত্যার হুমকি ছাত্রলীগ নেতার

Update Time : ১১:২১:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ মে ২০২৩

মাকে অপমান ও লাঞ্ছিত করে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়ার বিচার দাবি করেছেন সন্দ্বীপ উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের সহসম্পাদক ফজলুল করিম মিনহাজ। অন্যথায় ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা করবেন বলে হুমকি দিয়েছেন তিনি।

শনিবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এ হুমকি দেন মিনহাজ।

মিনহাজ লেখেন, ‘গত ২৫ মে সন্দ্বীপ পৌরসভা ৯ নম্বর ওয়ার্ডে আমার আম্মার ওপর নির্যাতনের বিষয়টি কেউ যদি বিচার না করে তাহলে বিচারের জন্য প্রয়োজনে অনেক দূর যাব। তারপরও যদি বিচার না পাই, তাহলে খোদার কসম খেয়ে বললাম আত্মহত্যা মহাপাপ জেনেও আপনাদের সামনে ফেসবুক লাইভে এসে নিজেকে বিলিয়ে দেব। কারণ যে সন্তান নিজের মায়ের ওপর সন্ত্রাসী নির্যাতনের প্রতিবাদ করতে পারবে না সে সন্তানের এ দেশে বেঁচে থাকার কোনো অধিকার নেই। মরার আগে বলে যাব ২০১৩ থেকে শুরু করে আমিও একজন ছাত্রলীগ এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শের কর্মী। একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক। আর সেই স্বাধীন দেশে একজন মুক্তিযোদ্ধাকে ভোট দিতে গিয়ে আমার মাকে মারধর ও নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে। বিচার দিয়ে যাব জাতির কাছে।’

মিনহাজের এ স্ট্যাটাস মুহূর্তে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ মিনহাজের মায়ের লাঞ্ছিতকারী কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এ ঘটনা সন্দ্বীপজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, মিনহাজের মা গত ২৫ মে সন্দ্বীপ উপজেলা পরিষদ উপনির্বাচনে ভোট দিতে কেন্দ্রে যান। কেন্দ্রে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে নৌকা মার্কার একজন এজেন্ট তাকে কেন্দ্র থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। মিনহাজের মা এর প্রতিবাদ করায় ওই এজেন্ট তাকে থাপ্পড় তুলতে উদ্যত হন। এরপরও তিনি ভোট দেওয়ার জন্য প্রতিবাদ করলে তাকে বেশ কয়েকটি লাথি দিয়ে কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়া হয়। কেন্দ্র থেকে বের হয়ে মিনহাজের মা পুরো ঘটনাটি সাংবাদিকদের জানান।

মিনহাজ সন্দ্বীপ থানা আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের কাছে এর বিচার দাবি করেও কোনো প্রতিকার পাননি। বাধ্য হয়ে তিনি বিচারের দাবিতে ফেসবুকে আত্মহত্যার হুমকি দেন।