ঢাকা ০৮:১৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

মদ খাওয়াকে কেন্দ্র করে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন

Reporter Name
  • Update Time : ০৬:১৩:৪১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩
  • / ১২৫ Time View

নিহত রফিকুল ইসলাম

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রামে ঘুরতে এসে মদ খাওয়াকে কেন্দ্র করে এক বন্ধুর হাতে অন্য বন্ধু খুন হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ আইয়ুব আলী নামে একজনকে আটক করেছে। তবে হত্যাকান্ডের ঘটনা এখনও জানা যায়নি।

শুক্রবার (১২ মে) রাত একটার দিকে দহগ্রাম ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রামের দক্ষিনে তিস্তা নদীর চরে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে খবর পেয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বন্ধু আইউব আলীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত রফিকুল ইসলাম (২৩) দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ থানার লাটেরহাট ইউনিয়নের বাসিন্দা রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে। আটক আইয়ুব আলী (২৬) একই এলাকার ইনসান আলীর ছেলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নেশা করার জন্য দুই বন্ধু তিস্তার চরে যায়। সেখানে উভয়ে ভারতীয় মদ পান করে এবং উভয়ের মধ্যে নেশা করার বিষয়কে কেন্দ্র করে একপর্যায়ে আইউব প্লাস্টিক এর রশি দিয়ে রফিকুলকে গলায় পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যা করার পরে আইউব আলী রফিকুল এর মৃতদেহ তিস্তা নদীর চরে বালুতে পুতে রাখে।

আইউব এর সৎ ভাইয়ের বাড়ি দহগ্রাম গুচ্ছগ্রাম বাজারে। সে দহগ্রামে বিবাহ করেছিলেন এবং মাঝে মধ্যে শ্বশুর বাড়ি আসে। ঘটনার ৬ ঘন্টা আগে আইউব দিনাজপুর হতে দহগ্রামে আসে এবং তার সৎ ভাই জুলফিকার আলি ভূট্টুর বাড়িতে অবস্থান করে।

তারা দু’জনেই দিনাজপুর বীরগঞ্জ হতে নিজের অটো ইজিবাইক নিয়ে দুপুর বেলায় দহগ্রামে আসে। নিহত রফিকুল ইসলাম তার অটোটি এক পরিচিত বাড়িতে চার্জ দেয়। দহগ্রামে আসার পরে তারা হোটেলে খাওয়া দাওয়া করে নদীর চরে মদ নিয়ে যায় সেখানেই পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে ঘাতক আইউব আলী।

পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহত ব্যক্তির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। নিহত রফিকুলের বড় ভাই আমজাদ হোসেন বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

মদ খাওয়াকে কেন্দ্র করে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন

Update Time : ০৬:১৩:৪১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩

মোঃ ইউনুস আলী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার দহগ্রামে ঘুরতে এসে মদ খাওয়াকে কেন্দ্র করে এক বন্ধুর হাতে অন্য বন্ধু খুন হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ আইয়ুব আলী নামে একজনকে আটক করেছে। তবে হত্যাকান্ডের ঘটনা এখনও জানা যায়নি।

শুক্রবার (১২ মে) রাত একটার দিকে দহগ্রাম ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রামের দক্ষিনে তিস্তা নদীর চরে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে খবর পেয়ে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বন্ধু আইউব আলীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নিহত রফিকুল ইসলাম (২৩) দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ থানার লাটেরহাট ইউনিয়নের বাসিন্দা রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে। আটক আইয়ুব আলী (২৬) একই এলাকার ইনসান আলীর ছেলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নেশা করার জন্য দুই বন্ধু তিস্তার চরে যায়। সেখানে উভয়ে ভারতীয় মদ পান করে এবং উভয়ের মধ্যে নেশা করার বিষয়কে কেন্দ্র করে একপর্যায়ে আইউব প্লাস্টিক এর রশি দিয়ে রফিকুলকে গলায় পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। হত্যা করার পরে আইউব আলী রফিকুল এর মৃতদেহ তিস্তা নদীর চরে বালুতে পুতে রাখে।

আইউব এর সৎ ভাইয়ের বাড়ি দহগ্রাম গুচ্ছগ্রাম বাজারে। সে দহগ্রামে বিবাহ করেছিলেন এবং মাঝে মধ্যে শ্বশুর বাড়ি আসে। ঘটনার ৬ ঘন্টা আগে আইউব দিনাজপুর হতে দহগ্রামে আসে এবং তার সৎ ভাই জুলফিকার আলি ভূট্টুর বাড়িতে অবস্থান করে।

তারা দু’জনেই দিনাজপুর বীরগঞ্জ হতে নিজের অটো ইজিবাইক নিয়ে দুপুর বেলায় দহগ্রামে আসে। নিহত রফিকুল ইসলাম তার অটোটি এক পরিচিত বাড়িতে চার্জ দেয়। দহগ্রামে আসার পরে তারা হোটেলে খাওয়া দাওয়া করে নদীর চরে মদ নিয়ে যায় সেখানেই পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে ঘাতক আইউব আলী।

পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ ওমর ফারুক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহত ব্যক্তির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। নিহত রফিকুলের বড় ভাই আমজাদ হোসেন বাদী হয়ে স্থানীয় থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।