ঢাকা ১২:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
লন্ডনে ‘ডিজিটাল থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ অগ্রযাত্রায় আমাদের করণীয়’ শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত সিলেটে বন্যায় ৭ লাখ ৭২ হাজার শিশু ক্ষতিগ্রস্ত হাঁড়িভাঙ্গা আম ও সবজি সংরক্ষণের মিঠাপুকুরে বিশেষায়িত হিমাগার স্থাপিত হবে – কৃষিমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর ভারত-চীন সফরেই তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের পথ সুগম করার দাবি সৈয়দপুর হিউম্যানিটি ইন ডিস্ট্রেস (হিড) এর কোরবানি প্রোগ্রামে ১৪,৩৯,০০০ টাকার দুর্নীতির অভিযোগ নামাজ-পড়ালেখা নিয়ে শাসন করায় ফাঁস নিল কিশোরী ১ম বঙ্গবন্ধু ইন্দো-বাংলা ফুটসাল সিরিজের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত দেশে নয়টি ড্রেজিং স্টেশন তৈরি করা হচ্ছে : সিলেটে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী সিলেটে জনদুর্ভোগ অব্যাহত; পানি কোথাও কমছে কোথাও বাড়ছে তিস্তার পানি কমতে শুরু করেছে, বাড়ছে নদীভাঙন
এক চোরাকারবারি আটক

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে একটি বাড়ি থেকে ১২ কোটি রুপির স্বর্ণ জব্দ

কোলকাতা সংবাদদাতা
  • Update Time : ০৫:৩৩:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪
  • / ৪৩ Time View

ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্ত এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ জব্দ করেছে বিএসএফ। উদ্ধার স্বর্ণের মূল্য প্রায় ১২ কোটি রূপি।

দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তের বিএসএফের ডিআইজি (মুখপাত্র) এ.কে.আর্য জানান, ২৫ মে সীমান্ত চৌকি গুনারমঠের সৈন্যরা সীমান্ত গ্রামের হালদারপাড়ের একটি বাড়িতে স্বর্ণের বিশাল চালানের খবর পেয়ে বিশেষ অভিযান চালায়। একসময় গ্রামের সন্দেহজনক বাড়িটি চারদিক থেকে ঘিরে ফেলা হয়। এরপর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়।

তল্লাশির সময় অলোক পাল (নাম পরিবর্তিত) একটি কাপড়ের বেল্টে লুকিয়ে রাখা স্বর্ণের বারসহ ধরা পড়েন। কাপড়ের বেল্ট খুললে বিভিন্ন সাইজের ৮৯টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। চোরাকারবারি এই স্বর্ণের চালানটি বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাচার করার পর পরবর্তী ডেলিভারির আগে নিজের বাড়িতে লুকিয়ে রেখেছিলেন। জব্দ করা স্বর্ণের মোট ওজন ১৬.০৬৭ কেজি এবং আনুমানিক বাজার মূল্য ১১ কোটি ৭০ লাখ রুপি।

এরপর পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ওই ব্যক্তিকে স্বর্ণের চালানসহ সীমান্ত চৌকি কল্যাণীতে নিয়ে আসা হয়।

আটক ভারতীয় পাচারকারীর নাম অলোক পাল (নাম পরিবর্তিত), বাসিন্দা হালদারপাদা, গুনারমাঠ, থানা বনগাঁ, জেলা উত্তর ২৪ পরগনা।

জিজ্ঞাসাবাদে অলোক পাল (নাম পরিবর্তিত) জানান, গত মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহে তিনি বাংলাদেশ থেকে একজন স্বর্ণ চোরাকারবারির সংস্পর্শে এসেছিলেন। তিনি আশ্বাস দিয়েছিলেন যে তার স্বর্ণের চালান বাড়িতে লুকিয়ে রাখার জন্য, তিনি তাকে প্রতিদিন ৪০০ টাকা দেবেন। যার জন্য তিনি রাজি হয়ে এ কাজে যোগ দেন। এরপর অজ্ঞাত চোরাকারবারি তার বাড়িতে স্বর্ণের চালান নিয়ে আসতে থাকেন। গতকাল শনিবার রাত ১২টা ৪০ মিনিটের দিকে একজন অজ্ঞাত চোরাকারবারি তাকে বাড়িতে লুকানোর জন্য বিভিন্ন আকারের ৮৯ টি স্বর্ণের বার দেন। বিএসএফ সেই খবর পেয়ে বিশেষ অভিযান চালিয়ে তল্লাশির সময় স্বর্ণের চালানসহ তাকে আটক করে।

এর আগে স্বর্ণের চোরাচালানের দায়ে এক মাস জেলও খেটেছিলেন তিনি এবং সেই মামলা এখনও বনগাঁ আদালতে চলছে।

গ্রেফতার চোরাকারবারীকে এবং জব্দ স্বর্ণের চালান পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়ার জন্য কলকাতার রাজস্ব গোয়েন্দা পরিচালকের (ডিআরআই) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

এক চোরাকারবারি আটক

ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে একটি বাড়ি থেকে ১২ কোটি রুপির স্বর্ণ জব্দ

Update Time : ০৫:৩৩:২৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪

ভারত-বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্ত এলাকা থেকে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ জব্দ করেছে বিএসএফ। উদ্ধার স্বর্ণের মূল্য প্রায় ১২ কোটি রূপি।

দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তের বিএসএফের ডিআইজি (মুখপাত্র) এ.কে.আর্য জানান, ২৫ মে সীমান্ত চৌকি গুনারমঠের সৈন্যরা সীমান্ত গ্রামের হালদারপাড়ের একটি বাড়িতে স্বর্ণের বিশাল চালানের খবর পেয়ে বিশেষ অভিযান চালায়। একসময় গ্রামের সন্দেহজনক বাড়িটি চারদিক থেকে ঘিরে ফেলা হয়। এরপর গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়।

তল্লাশির সময় অলোক পাল (নাম পরিবর্তিত) একটি কাপড়ের বেল্টে লুকিয়ে রাখা স্বর্ণের বারসহ ধরা পড়েন। কাপড়ের বেল্ট খুললে বিভিন্ন সাইজের ৮৯টি স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। চোরাকারবারি এই স্বর্ণের চালানটি বাংলাদেশ থেকে ভারতে পাচার করার পর পরবর্তী ডেলিভারির আগে নিজের বাড়িতে লুকিয়ে রেখেছিলেন। জব্দ করা স্বর্ণের মোট ওজন ১৬.০৬৭ কেজি এবং আনুমানিক বাজার মূল্য ১১ কোটি ৭০ লাখ রুপি।

এরপর পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ওই ব্যক্তিকে স্বর্ণের চালানসহ সীমান্ত চৌকি কল্যাণীতে নিয়ে আসা হয়।

আটক ভারতীয় পাচারকারীর নাম অলোক পাল (নাম পরিবর্তিত), বাসিন্দা হালদারপাদা, গুনারমাঠ, থানা বনগাঁ, জেলা উত্তর ২৪ পরগনা।

জিজ্ঞাসাবাদে অলোক পাল (নাম পরিবর্তিত) জানান, গত মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহে তিনি বাংলাদেশ থেকে একজন স্বর্ণ চোরাকারবারির সংস্পর্শে এসেছিলেন। তিনি আশ্বাস দিয়েছিলেন যে তার স্বর্ণের চালান বাড়িতে লুকিয়ে রাখার জন্য, তিনি তাকে প্রতিদিন ৪০০ টাকা দেবেন। যার জন্য তিনি রাজি হয়ে এ কাজে যোগ দেন। এরপর অজ্ঞাত চোরাকারবারি তার বাড়িতে স্বর্ণের চালান নিয়ে আসতে থাকেন। গতকাল শনিবার রাত ১২টা ৪০ মিনিটের দিকে একজন অজ্ঞাত চোরাকারবারি তাকে বাড়িতে লুকানোর জন্য বিভিন্ন আকারের ৮৯ টি স্বর্ণের বার দেন। বিএসএফ সেই খবর পেয়ে বিশেষ অভিযান চালিয়ে তল্লাশির সময় স্বর্ণের চালানসহ তাকে আটক করে।

এর আগে স্বর্ণের চোরাচালানের দায়ে এক মাস জেলও খেটেছিলেন তিনি এবং সেই মামলা এখনও বনগাঁ আদালতে চলছে।

গ্রেফতার চোরাকারবারীকে এবং জব্দ স্বর্ণের চালান পরবর্তী আইনি প্রক্রিয়ার জন্য কলকাতার রাজস্ব গোয়েন্দা পরিচালকের (ডিআরআই) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।