ঢাকা ১০:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার সন্দেহে যুবকে পিটিয়ে হত্যা

Reporter Name
  • Update Time : ১০:১৮:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩
  • / ৭০ Time View

রাজধানীর খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়া এলাকায় মো. ইমরান হোসেন নামের এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ২টা ৩০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ইমরান টাইলসের মিস্ত্রী হিসেবে কাজ করতেন।

নিহতের বড় ভাই মো. হানিফ এ ঘটনায় মেরাদিয়া এলাকার শহিদ,সবুজ, ইব্রাহিমসহ চার জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে খিলগাঁও থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মো. হানিফ জানান, গত বৃহস্পতিবার মেরাদিয়া নয়াপাড়া এলাকায় রিকশার গ্যারেজে ইয়াবা সেবন ও জুয়া খেলার সময় পুলিশের কাছে আটক হয় শহিদসহ কয়েকজন জুয়ারি। ঐ রাতেই থানা থেকে তারা মুক্ত হন। গত শুক্রবার সকালে পুলিশকে সংবাদ দেওয়ার অভিযোগ এনে ইমরানকে লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন শহিদ ও তার লোকজন। পরে স্থানীয়রা ইমরানকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে তিনি মারা যান।

খিলগাঁও থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবু তালেব জানান, গত শুক্রবার নয়াপাড়া এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জেরে স্থানীয় শহিদসহ আসামিরা টাইলস মিস্ত্রী মো. ইমরানকে লোহার পাইপ দিয়ে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতাল ভর্তি করে। সেখানে ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে তিনি মারা যান। গতকাল ময়নাতদন্তের শেষে বিকেলে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ইমরান কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার কালীবাজার কৃষ্ণপুর গ্রামের বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি মেরাদিয়া নয়াপাড়ায় পরিবার নিয়ে থাকতেন।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার সন্দেহে যুবকে পিটিয়ে হত্যা

Update Time : ১০:১৮:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩

রাজধানীর খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়া এলাকায় মো. ইমরান হোসেন নামের এক যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ২টা ৩০ মিনিটে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ইমরান টাইলসের মিস্ত্রী হিসেবে কাজ করতেন।

নিহতের বড় ভাই মো. হানিফ এ ঘটনায় মেরাদিয়া এলাকার শহিদ,সবুজ, ইব্রাহিমসহ চার জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে খিলগাঁও থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

মো. হানিফ জানান, গত বৃহস্পতিবার মেরাদিয়া নয়াপাড়া এলাকায় রিকশার গ্যারেজে ইয়াবা সেবন ও জুয়া খেলার সময় পুলিশের কাছে আটক হয় শহিদসহ কয়েকজন জুয়ারি। ঐ রাতেই থানা থেকে তারা মুক্ত হন। গত শুক্রবার সকালে পুলিশকে সংবাদ দেওয়ার অভিযোগ এনে ইমরানকে লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে আহত করেন শহিদ ও তার লোকজন। পরে স্থানীয়রা ইমরানকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে তিনি মারা যান।

খিলগাঁও থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবু তালেব জানান, গত শুক্রবার নয়াপাড়া এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জেরে স্থানীয় শহিদসহ আসামিরা টাইলস মিস্ত্রী মো. ইমরানকে লোহার পাইপ দিয়ে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। পরে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতাল ভর্তি করে। সেখানে ইমরানের অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে তিনি মারা যান। গতকাল ময়নাতদন্তের শেষে বিকেলে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

ইমরান কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার কালীবাজার কৃষ্ণপুর গ্রামের বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি মেরাদিয়া নয়াপাড়ায় পরিবার নিয়ে থাকতেন।