ঢাকা ০৬:৩৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

পায়ুপথ দিয়ে পেটের ভেতর ২৫ ইঞ্চি কুঁচিয়া মাছ, অস্ত্রোপচারে জ্যান্ত উদ্ধার

 মো. মুহিবুর রহমান, সিলেট
  • Update Time : ০৪:২৪:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০২৪
  • / ৩১ Time View

সিলেটে মাছ ধরতে গিয়ে সম্ররা মুন্ডা নামের এক জেলের পায়ুপথ দিয়ে ২৫ ইঞ্চি কুঁচিয়া মাছ (জেল ফিস) ঢুকে পড়ার অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটেছে। পরে সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে পেট অপারপশন করে জ্যান্ত কুঁচিয়া মাছ বের করে আনা হয়। একে সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে এ যাবৎকালের স্বরণীয় ঘটনা বলছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (২৩ মার্চ) মৌলভীবাজারে হাওরে দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী সম্ররা মুন্ডা (৫৫) কমলগঞ্জ উপজেলার মিতিঙ্গগা চা বাগানের ধনমুন্ডার পুত্র। সম্ররা মুন্ডা একজন রেজিস্ট্রার কার্ডধারী জেলে। তিনি বিভিন্ন জায়গা থেকে মাছ ধরে স্থানীয়দের কাছে বিক্রি করেন।
জানা যায়,২৩ মার্চ স্থানীয় হাওরে মাছ ধরতে গেলে হঠাৎ কোমর সমান কাদায় আটকে যান তিনি। তখন তার দুই হাতে থাকা দুটি কুঁচিয়া মাছের মধ্যে একটি পানিতে পড়ে যায় এবং আরেকটি কাঁদায় পড়ে। এ সময় তিনি অনুভব করেন তার পায়ু পথে কি যেন ঢুকছে। তবে সেটিকে গুরুত্ব দেননি তিনি।
সম্ররা মুন্ডা সেখান থেকে বাড়িতে যান এবং খাওয়া দাওয়া করেন। এরপর তার পেটে প্রচুর ব্যথা অনুভব হয়।

২৪ মার্চ রোববার স্থানীয় হাসপাতালে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। ওসমানীর চিকিৎসকরা সব শুনে এক্সের মাধ্যমে পেটের ভেতর লম্বা আকৃতির একটি বস্তু দেখতে পান। তখন কর্তব্যরত ডাক্তাররা সম্ররা মুন্ডাকে সন্ধায় অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যান। সেখানে প্রফেসর ডা. জানে আলমের নেতৃত্বে ৪ জন চিকিৎসক ২ ঘণ্টা অপারেশন চালিয়ে পেটের ভেতর থেকে একটি জ্যান্ত কুঁচিয়া (জেল ফিস) মাছ বের করে আনেন। এ ঘটনায় ডাক্তারসহ সবাই বিস্মিত।

পরে পেটের ভেতর কুচিয়া মাছের বিষয়টি জনসাধারণের মধ্যে জানাজানি হলে সিলেটজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। এ অস্ত্রোপচারে আরও অংশগ্রহণ করেন সার্জারি ইউনিট-২ এর সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. রাশেদুল ইসলাম ও ডা. তৌফিক আজিজ শাকুর।

সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালালের উপ-পরিচালক ডা. সৌমিত্র চক্রবর্তী জানান, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে অস্ত্রোপচার করে তার পেট থেকে জ্যান্ত ২৫ ইঞ্চি কুঁচিয়া মাছ (জেল ফিস) উদ্ধার করা হয়। এটা একটা অপ্রত্যাশিত ও কঠিন অপারেশন ছিল যা আমাদের টিম ভালোভাবে সম্পন্ন করেছে। রোগী পুরোপুরি সুস্থ আছেন। বর্তমানে সম্ররা মুন্ডা ওসমানী মেডিকেলের ১১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন। চিকিৎসকরা জানান, কুঁচিয়াটি সম্ররা মুন্ডার পেটের মধ্যে কিছু নাড়ি কেটে ফেলেছে। তাই পায়খানার রাস্তা বন্ধ রেখে আপাতত নল দেওয়া হয়েছে। দেড় মাস পর আরও একটি অস্ত্রোপচার করতে হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

পায়ুপথ দিয়ে পেটের ভেতর ২৫ ইঞ্চি কুঁচিয়া মাছ, অস্ত্রোপচারে জ্যান্ত উদ্ধার

Update Time : ০৪:২৪:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০২৪

সিলেটে মাছ ধরতে গিয়ে সম্ররা মুন্ডা নামের এক জেলের পায়ুপথ দিয়ে ২৫ ইঞ্চি কুঁচিয়া মাছ (জেল ফিস) ঢুকে পড়ার অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটেছে। পরে সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে পেট অপারপশন করে জ্যান্ত কুঁচিয়া মাছ বের করে আনা হয়। একে সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালে এ যাবৎকালের স্বরণীয় ঘটনা বলছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (২৩ মার্চ) মৌলভীবাজারে হাওরে দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী সম্ররা মুন্ডা (৫৫) কমলগঞ্জ উপজেলার মিতিঙ্গগা চা বাগানের ধনমুন্ডার পুত্র। সম্ররা মুন্ডা একজন রেজিস্ট্রার কার্ডধারী জেলে। তিনি বিভিন্ন জায়গা থেকে মাছ ধরে স্থানীয়দের কাছে বিক্রি করেন।
জানা যায়,২৩ মার্চ স্থানীয় হাওরে মাছ ধরতে গেলে হঠাৎ কোমর সমান কাদায় আটকে যান তিনি। তখন তার দুই হাতে থাকা দুটি কুঁচিয়া মাছের মধ্যে একটি পানিতে পড়ে যায় এবং আরেকটি কাঁদায় পড়ে। এ সময় তিনি অনুভব করেন তার পায়ু পথে কি যেন ঢুকছে। তবে সেটিকে গুরুত্ব দেননি তিনি।
সম্ররা মুন্ডা সেখান থেকে বাড়িতে যান এবং খাওয়া দাওয়া করেন। এরপর তার পেটে প্রচুর ব্যথা অনুভব হয়।

২৪ মার্চ রোববার স্থানীয় হাসপাতালে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান। ওসমানীর চিকিৎসকরা সব শুনে এক্সের মাধ্যমে পেটের ভেতর লম্বা আকৃতির একটি বস্তু দেখতে পান। তখন কর্তব্যরত ডাক্তাররা সম্ররা মুন্ডাকে সন্ধায় অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যান। সেখানে প্রফেসর ডা. জানে আলমের নেতৃত্বে ৪ জন চিকিৎসক ২ ঘণ্টা অপারেশন চালিয়ে পেটের ভেতর থেকে একটি জ্যান্ত কুঁচিয়া (জেল ফিস) মাছ বের করে আনেন। এ ঘটনায় ডাক্তারসহ সবাই বিস্মিত।

পরে পেটের ভেতর কুচিয়া মাছের বিষয়টি জনসাধারণের মধ্যে জানাজানি হলে সিলেটজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়। এ অস্ত্রোপচারে আরও অংশগ্রহণ করেন সার্জারি ইউনিট-২ এর সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. রাশেদুল ইসলাম ও ডা. তৌফিক আজিজ শাকুর।

সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালালের উপ-পরিচালক ডা. সৌমিত্র চক্রবর্তী জানান, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে অস্ত্রোপচার করে তার পেট থেকে জ্যান্ত ২৫ ইঞ্চি কুঁচিয়া মাছ (জেল ফিস) উদ্ধার করা হয়। এটা একটা অপ্রত্যাশিত ও কঠিন অপারেশন ছিল যা আমাদের টিম ভালোভাবে সম্পন্ন করেছে। রোগী পুরোপুরি সুস্থ আছেন। বর্তমানে সম্ররা মুন্ডা ওসমানী মেডিকেলের ১১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন। চিকিৎসকরা জানান, কুঁচিয়াটি সম্ররা মুন্ডার পেটের মধ্যে কিছু নাড়ি কেটে ফেলেছে। তাই পায়খানার রাস্তা বন্ধ রেখে আপাতত নল দেওয়া হয়েছে। দেড় মাস পর আরও একটি অস্ত্রোপচার করতে হবে।