ঢাকা ০২:৫৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারায়ণগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

Reporter Name
  • Update Time : ০৩:২৩:১২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০২৩
  • / ১৮০ Time View

নারায়ণগঞ্জে স্ত্রীকে হত্যার অপরাধে স্বামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত৷ একইসঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ১ লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক উম্মে সরাবন তহুরা এই রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির নাম মো. শামীম (৪৫)। তিনি মুন্সিগঞ্জের নয়াগাঁও পূর্বপাড়া এলাকার সাহাব উদ্দিনের ছেলে। তার স্ত্রী নিহত খাদিজা আক্তার একই এলাকার মৃত আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদারের মেয়ে।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান বলেন, দাম্পত্য কলহের জেরে ২০১৩ সালের ২৬ জানুয়ারি আসামি শামীম তার স্ত্রী খাদিজা আক্তারকে চাপাতি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে পালিয়ে যান। পরে এই ঘটনায় খাদিজার ভাই বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার রায়ে আদালত তাকে যাবজ্জীবন সাজা প্রদান করেছেন৷

রায় ঘোষণাকালে আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Please Share This Post in Your Social Media

নারায়ণগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

Update Time : ০৩:২৩:১২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০২৩

নারায়ণগঞ্জে স্ত্রীকে হত্যার অপরাধে স্বামীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত৷ একইসঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ১ লাখ টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ১ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক উম্মে সরাবন তহুরা এই রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির নাম মো. শামীম (৪৫)। তিনি মুন্সিগঞ্জের নয়াগাঁও পূর্বপাড়া এলাকার সাহাব উদ্দিনের ছেলে। তার স্ত্রী নিহত খাদিজা আক্তার একই এলাকার মৃত আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদারের মেয়ে।

আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান বলেন, দাম্পত্য কলহের জেরে ২০১৩ সালের ২৬ জানুয়ারি আসামি শামীম তার স্ত্রী খাদিজা আক্তারকে চাপাতি দিয়ে জবাই করে হত্যা করে পালিয়ে যান। পরে এই ঘটনায় খাদিজার ভাই বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার রায়ে আদালত তাকে যাবজ্জীবন সাজা প্রদান করেছেন৷

রায় ঘোষণাকালে আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।