ঢাকা ০৬:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
বিমানবন্দর-টঙ্গী থেকে ধারালো অস্ত্রসহ ৮ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার কিশোরগঞ্জে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুলের উন্নয়ন খাতের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সাংবাদিককে ৫ বছরের অভিজ্ঞতা ও গ্র্যাজুয়েট হতে হবে বেনজীরের আরও ১১৩ দলিলের সম্পদ ও গুলশানের ৪টি ফ্ল্যাট জব্দের আদেশ সুজানগরে গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে কাউকে ছাড় দেব না : ইসি রাশেদা ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে একটি বাড়ি থেকে ১২ কোটি রুপির স্বর্ণ জব্দ সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বৈধপথে রেমিট্যান্স প্রেরণের আহ্বান প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর ঝালকাঠিতে রেমালের প্রভাবে নদীর পানি বেড়েছে ২১৭ নেতাকে বহিষ্কার করল বিএনপি

ধর্মীয় বিশ্বাসের ভিত্তিতে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করে না তেহরান: খামেনি

নওরোজ আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • Update Time : ০৯:৩৪:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ জুন ২০২৩
  • / ২৬৯ Time View

ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি । ছবি- সংগৃহীত

ইরান যদি পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে চাইত, তাহলে পশ্চিমা দেশগুলো আটকাতে পারত না- পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে পশ্চিমাদের সঙ্গে তেহরান উত্তেজনার মধ্যে এমন মন্তব্য করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি। তিনি জানিয়েছেন, মূলত ধর্মীয় বিশ্বাস থেকেই গণবিধ্বংসী পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করেন না তারা।

রোববার সাংবাদিকদের খামেনি বলেছেন, তেহরানের পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে আলোচনা সম্পূর্ণ মিথ্যা। পশ্চিমারা এটি জানে। ধর্মীয় বিশ্বাসের দিক থেকে আমরা পারমাণবিক অস্ত্র চাই না। অন্যথায় তারা এটি বন্ধ করতে পারত না।

ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা বলেন, চুক্তিতে (পশ্চিমের সঙ্গে) কোনো ভুল নেই, তবে আমাদের পারমাণবিক শিল্পের অবকাঠামোকে স্পর্শ করা উচিত হবে না। সুরক্ষা কাঠামোর অধীনে জাতিসংঘের পারমাণবিক পর্যবেক্ষণ সংস্থার সঙ্গে তেহরানের কাজ চালিয়ে যাওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে ছয়টি বড় শক্তির সঙ্গে ইরানের ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তি পুনরুজ্জীবিত করতে তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে পরোক্ষ আলোচনা সেপ্টেম্বর থেকে অচলাবস্থায় রয়েছে। উভয় পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে অযৌক্তিক দাবি করার অভিযোগ এনেছে। ২০১৮ তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তিটি বাতিল করেন। তার প্রতিক্রিয়ায় ২০১৯ সাল থেকে ইরান চুক্তির শর্তাবলী লঙ্ঘন শুরু করে।

এর আগে শুক্রবার রাশিয়াকে ড্রোন উৎপাদন কারখানা তৈরিতে ইরান সহায়তা করছে বলে অভিযোগ তুলেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন গোয়েন্দা তথ্যের উদ্ধৃতি দিয়ে এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ তোলেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, রাশিয়া সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে কিয়েভে হামলা এবং ইউক্রেনের জনগণকে আতঙ্কিত করতে ইরানি ইউএভি ব্যবহার করছে। এতে রাশিয়া-ইরান সামরিক অংশীদারিত্ব আরও গভীর হচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। সূত্র: আনাদুল এজেন্সি

Please Share This Post in Your Social Media

ধর্মীয় বিশ্বাসের ভিত্তিতে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করে না তেহরান: খামেনি

Update Time : ০৯:৩৪:৫২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১১ জুন ২০২৩

ইরান যদি পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করতে চাইত, তাহলে পশ্চিমা দেশগুলো আটকাতে পারত না- পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে পশ্চিমাদের সঙ্গে তেহরান উত্তেজনার মধ্যে এমন মন্তব্য করেছেন দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি। তিনি জানিয়েছেন, মূলত ধর্মীয় বিশ্বাস থেকেই গণবিধ্বংসী পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করেন না তারা।

রোববার সাংবাদিকদের খামেনি বলেছেন, তেহরানের পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে আলোচনা সম্পূর্ণ মিথ্যা। পশ্চিমারা এটি জানে। ধর্মীয় বিশ্বাসের দিক থেকে আমরা পারমাণবিক অস্ত্র চাই না। অন্যথায় তারা এটি বন্ধ করতে পারত না।

ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা বলেন, চুক্তিতে (পশ্চিমের সঙ্গে) কোনো ভুল নেই, তবে আমাদের পারমাণবিক শিল্পের অবকাঠামোকে স্পর্শ করা উচিত হবে না। সুরক্ষা কাঠামোর অধীনে জাতিসংঘের পারমাণবিক পর্যবেক্ষণ সংস্থার সঙ্গে তেহরানের কাজ চালিয়ে যাওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে ছয়টি বড় শক্তির সঙ্গে ইরানের ২০১৫ সালের পারমাণবিক চুক্তি পুনরুজ্জীবিত করতে তেহরান ও ওয়াশিংটনের মধ্যে পরোক্ষ আলোচনা সেপ্টেম্বর থেকে অচলাবস্থায় রয়েছে। উভয় পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে অযৌক্তিক দাবি করার অভিযোগ এনেছে। ২০১৮ তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চুক্তিটি বাতিল করেন। তার প্রতিক্রিয়ায় ২০১৯ সাল থেকে ইরান চুক্তির শর্তাবলী লঙ্ঘন শুরু করে।

এর আগে শুক্রবার রাশিয়াকে ড্রোন উৎপাদন কারখানা তৈরিতে ইরান সহায়তা করছে বলে অভিযোগ তুলেছে যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন গোয়েন্দা তথ্যের উদ্ধৃতি দিয়ে এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ তোলেন হোয়াইট হাউসের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, রাশিয়া সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে কিয়েভে হামলা এবং ইউক্রেনের জনগণকে আতঙ্কিত করতে ইরানি ইউএভি ব্যবহার করছে। এতে রাশিয়া-ইরান সামরিক অংশীদারিত্ব আরও গভীর হচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। সূত্র: আনাদুল এজেন্সি