ঢাকা ০১:৪১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

দৌলতপুরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হামলা,আহত ৫,আশংকাজনক ২

আবদুস সবুর
  • Update Time : ১০:৫৫:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ মার্চ ২০২৪
  • / ৫২ Time View

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্বপরিবারের উপর হামলা হয়েছে। ১৭ই ফেব্রুয়ারি সকাল ৮:৩০ ঘটিকায় চার নম্বর মরিচা ইউনিয়নের বৈরাগীরচর মোল্লাপাড়ার আমজাদের বাড়িতে হামলার এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৫ জন এদের মধ্যে গুরুতর আহত ২ জন। আহতরা হলেন আমজাদ প্রামানিক, সুমিতা খাতুন,রাজ্জাক প্রামানিক,নিহায়া ও সুমিতা খাতুন।

হামলার শিকার পরিবার সূত্রে জানা যায়,দীর্ঘদিন ধরে জমি- জমা সংক্রান্ত বিষয়ে আমজাদ প্রামানিকের পরিবারে সাথে একই এলাকার বাসিন্দা নামকরা সুদ কারবারি টগর মোল্লার পরিবারের বিরোধ চলছে। পূর্ব শত্রুতার এই জের ধরেই হঠাৎ সুদ কারবারি টগর মোল্লা তার বাহিনী নিয়ে এসে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাড়িতে হমলা চালায়।

এছাড়াও হামলার শিকার গুরুতর আহত রাজ্জাক বলেন,টগর মোল্লা(৪০),জিয়া(৩৫),আকবর মোল্লা(৫০),সজিব মোল্লা(২৫),নাহারুল মোল্লা (৪০),মহিদুল মোল্লা (৪৫),শহিদুল মোল্লা(৩৬),হেদায়েত মোল্লা (৩৫),হায়দার মোল্লা(৪২),নজু মোল্লা(৪৮),তমায়েন মোল্লা (২৫),হাবিল মোল্লা(৪২),পিতা:-আজিম মোল্লা, রুমন মোল্লা (২০),সাইদুল মোল্লা,শহর মোল্লা, কাবিল (৪৫) সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৮ থেকে ১০ জন এসে এই অতর্কিত হামলা চালায়।

এ হামলায় একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়।আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তাদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা অশংকাজনক হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন,পরে রাজ্জাক প্রামানিক কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহন করেন ও রমজান প্রামানিকের শারিরীক অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রেফার্ড হয়। এর মধ্যে রাজ্জাক ও রমজান প্রামানিকের ভাই আমজাদ প্রামানিক বাদী হয়ে দৌলতপুর থানাতে এজাহার দায়ের করেন।

এদিকে প্রাথমিক চিকিৎসার ভিত্তিতেই মামলা হওয়াতে আসামিরা ২৪ ঘন্টার মধ্যেই আদালত থেকে জামিনে বেরিয়ে যায়।গুরুতর আহত রমজান প্রামানিক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,আমি রমজান রাজশাহী হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে জিবন লড়ছে,আমার দুই হাত পঙ্গু করে দিয়েছে আসামিরা,আমি চিকিৎসাধীন ছিলাম ৩০ দিন,পুরোপুরি সুস্থ না হতেই আসামিরা কিভাবে জামিন পেলো! তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে সুষ্ঠ তদন্তর সহীত উপযুক্ত বিচারের দাবি করেন।

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি নওরোজকে বলেন, হামলার শিকার ব্যাক্তিদের মধ্যে বাদী আমজাদ প্রামানিকের দেওয়া এজাহার মূলে মামলা লিপিবদ্ধ হয়,গুরুতর আহত দুই হাত অকেজো হয়ে যাওয়া হামলার শিকার রমজান প্রামানিকের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি নওরোজকে আরো বলেন, এমসির আবেদন করা হয়েছে,রিপোর্ট পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

নতুন করে মামলা করা যাবে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, একই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আবারো এজাহার দায়ের করা হলে,মামলা এন্ট্রি করা ওসি সাহেবের বিষয়। তবে আমি সার্বিক সহযোগীতা করবো।

Please Share This Post in Your Social Media

দৌলতপুরে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হামলা,আহত ৫,আশংকাজনক ২

Update Time : ১০:৫৫:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৮ মার্চ ২০২৪

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে স্বপরিবারের উপর হামলা হয়েছে। ১৭ই ফেব্রুয়ারি সকাল ৮:৩০ ঘটিকায় চার নম্বর মরিচা ইউনিয়নের বৈরাগীরচর মোল্লাপাড়ার আমজাদের বাড়িতে হামলার এ ঘটনাটি ঘটে।

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৫ জন এদের মধ্যে গুরুতর আহত ২ জন। আহতরা হলেন আমজাদ প্রামানিক, সুমিতা খাতুন,রাজ্জাক প্রামানিক,নিহায়া ও সুমিতা খাতুন।

হামলার শিকার পরিবার সূত্রে জানা যায়,দীর্ঘদিন ধরে জমি- জমা সংক্রান্ত বিষয়ে আমজাদ প্রামানিকের পরিবারে সাথে একই এলাকার বাসিন্দা নামকরা সুদ কারবারি টগর মোল্লার পরিবারের বিরোধ চলছে। পূর্ব শত্রুতার এই জের ধরেই হঠাৎ সুদ কারবারি টগর মোল্লা তার বাহিনী নিয়ে এসে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বাড়িতে হমলা চালায়।

এছাড়াও হামলার শিকার গুরুতর আহত রাজ্জাক বলেন,টগর মোল্লা(৪০),জিয়া(৩৫),আকবর মোল্লা(৫০),সজিব মোল্লা(২৫),নাহারুল মোল্লা (৪০),মহিদুল মোল্লা (৪৫),শহিদুল মোল্লা(৩৬),হেদায়েত মোল্লা (৩৫),হায়দার মোল্লা(৪২),নজু মোল্লা(৪৮),তমায়েন মোল্লা (২৫),হাবিল মোল্লা(৪২),পিতা:-আজিম মোল্লা, রুমন মোল্লা (২০),সাইদুল মোল্লা,শহর মোল্লা, কাবিল (৪৫) সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৮ থেকে ১০ জন এসে এই অতর্কিত হামলা চালায়।

এ হামলায় একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়।আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তাদের মধ্যে দুইজনের অবস্থা অশংকাজনক হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন,পরে রাজ্জাক প্রামানিক কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহন করেন ও রমজান প্রামানিকের শারিরীক অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রেফার্ড হয়। এর মধ্যে রাজ্জাক ও রমজান প্রামানিকের ভাই আমজাদ প্রামানিক বাদী হয়ে দৌলতপুর থানাতে এজাহার দায়ের করেন।

এদিকে প্রাথমিক চিকিৎসার ভিত্তিতেই মামলা হওয়াতে আসামিরা ২৪ ঘন্টার মধ্যেই আদালত থেকে জামিনে বেরিয়ে যায়।গুরুতর আহত রমজান প্রামানিক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,আমি রমজান রাজশাহী হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে জিবন লড়ছে,আমার দুই হাত পঙ্গু করে দিয়েছে আসামিরা,আমি চিকিৎসাধীন ছিলাম ৩০ দিন,পুরোপুরি সুস্থ না হতেই আসামিরা কিভাবে জামিন পেলো! তিনি আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে সুষ্ঠ তদন্তর সহীত উপযুক্ত বিচারের দাবি করেন।

এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি নওরোজকে বলেন, হামলার শিকার ব্যাক্তিদের মধ্যে বাদী আমজাদ প্রামানিকের দেওয়া এজাহার মূলে মামলা লিপিবদ্ধ হয়,গুরুতর আহত দুই হাত অকেজো হয়ে যাওয়া হামলার শিকার রমজান প্রামানিকের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি নওরোজকে আরো বলেন, এমসির আবেদন করা হয়েছে,রিপোর্ট পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

নতুন করে মামলা করা যাবে কিনা জানতে চাইলে তিনি জানান, একই ঘটনাকে কেন্দ্র করে আবারো এজাহার দায়ের করা হলে,মামলা এন্ট্রি করা ওসি সাহেবের বিষয়। তবে আমি সার্বিক সহযোগীতা করবো।