ঢাকা ০৫:০৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দাদা-দাদির কবরের পাশে চিরনিদ্রায় সাংবাদিক নাদিম

স্টাফ রিপোটার
  • Update Time : ১১:০৩:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩
  • / ৮৮ Time View

পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় তাঁর গ্রামের বাড়ি বকশীগঞ্জের নিলাখিয়া ইউনিয়নের গোমের চর ঈদগাহ মাঠে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। তার আগে সকাল ১০টায় বকশীগঞ্জ পৌর শহরের নূর মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় নাদিমের বাবা আব্দুল করিম বলেন, তাঁর ছেলে নাদিমকে বাবু চেয়ারম্যানের হুকুমে খুন করা হয়েছে। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নিউজ করার জন্যই তার ছেলেকে জীবন দিতে হয়েছে। ছেলের খুনিদের ফাঁসি চাই।

জানাজার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, জামালপুর জেলা পরিষদ সদস্য জয়নাল আবেদীন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জুম্মান, জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা সহ প্রমুখ্য।

জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা বলেন, সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী নাদিম হত্যার মূলহোতা সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুসহ সকল হামলাকারী আটক না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

বুধবার রাত ১০টার দিকে পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে বাংলানিউজের জেলা প্রতিনিধি ও একাত্তর টেলিভিশনের সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিমের ওপর হামলা করে সন্ত্রাসীরা। বকশিগঞ্জ সরকারি কলেজ মোড় এলাকায় মোটরসাইলের গতিরোধ করে তাঁকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। পরে ১০-১২ জন সন্ত্রাসী এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। পরে নাদিমকে অজ্ঞান অবস্থায় নির্জন জায়গায় ফেলে রেখে যায় সন্ত্রাসীরা। তাঁকে প্রথমে বকশীগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখান থেকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।

 

Please Share This Post in Your Social Media

দাদা-দাদির কবরের পাশে চিরনিদ্রায় সাংবাদিক নাদিম

Update Time : ১১:০৩:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৬ জুন ২০২৩

পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় তাঁর গ্রামের বাড়ি বকশীগঞ্জের নিলাখিয়া ইউনিয়নের গোমের চর ঈদগাহ মাঠে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। তার আগে সকাল ১০টায় বকশীগঞ্জ পৌর শহরের নূর মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় নাদিমের বাবা আব্দুল করিম বলেন, তাঁর ছেলে নাদিমকে বাবু চেয়ারম্যানের হুকুমে খুন করা হয়েছে। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নিউজ করার জন্যই তার ছেলেকে জীবন দিতে হয়েছে। ছেলের খুনিদের ফাঁসি চাই।

জানাজার আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, জামালপুর জেলা পরিষদ সদস্য জয়নাল আবেদীন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম জুম্মান, জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা সহ প্রমুখ্য।

জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা বলেন, সাংবাদিক গোলাম রাব্বানী নাদিম হত্যার মূলহোতা সাধুরপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুসহ সকল হামলাকারী আটক না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

বুধবার রাত ১০টার দিকে পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে বাড়ি ফেরার পথে বাংলানিউজের জেলা প্রতিনিধি ও একাত্তর টেলিভিশনের সাংবাদিক গোলাম রব্বানী নাদিমের ওপর হামলা করে সন্ত্রাসীরা। বকশিগঞ্জ সরকারি কলেজ মোড় এলাকায় মোটরসাইলের গতিরোধ করে তাঁকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। পরে ১০-১২ জন সন্ত্রাসী এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে রক্তাক্ত করে। পরে নাদিমকে অজ্ঞান অবস্থায় নির্জন জায়গায় ফেলে রেখে যায় সন্ত্রাসীরা। তাঁকে প্রথমে বকশীগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখান থেকে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার সকালে তাঁকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।