ঢাকা ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
বিমানবন্দর-টঙ্গী থেকে ধারালো অস্ত্রসহ ৮ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার কিশোরগঞ্জে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুলের উন্নয়ন খাতের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সাংবাদিককে ৫ বছরের অভিজ্ঞতা ও গ্র্যাজুয়েট হতে হবে বেনজীরের আরও ১১৩ দলিলের সম্পদ ও গুলশানের ৪টি ফ্ল্যাট জব্দের আদেশ সুজানগরে গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে কাউকে ছাড় দেব না : ইসি রাশেদা ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে একটি বাড়ি থেকে ১২ কোটি রুপির স্বর্ণ জব্দ সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বৈধপথে রেমিট্যান্স প্রেরণের আহ্বান প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর ঝালকাঠিতে রেমালের প্রভাবে নদীর পানি বেড়েছে ২১৭ নেতাকে বহিষ্কার করল বিএনপি

তেজগাঁওয়ে প্রাইভেটকার থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় নারী-পুরুষের লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : ০২:২৭:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ জুন ২০২৩
  • / ১৯২ Time View

রাজধানীর তেজগাঁওয়ের থানার এলেনবাড়ি এলাকায় সরকারি স্টাফ কোয়ার্টারের গ্যারেজে একটি গাড়ি থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় এক নারী ও এক পুরুষের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন, দেলোয়ার হোসেন মোল্লা (৫৩)। তিনি একটি সরকারি অফিসের অফিস সহায়ক ছিলেন। অপরজন মৌসুমী আক্তার রানি (৪২)। তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায়।

বুধবার (৭ জুন) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে গ্যারেজের ভেতরে একটি প্রাইভেটকারে এ দুটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) এইচএম আজিমুল হক।

এইচএম আজিমুল হক জানান, বিবস্ত্র অবস্থায় প্রাইভেটকার থেকে তাঁদের লাশ উদ্ধার করা হয়। দেলোয়ার পঞ্চাশোর্ধ্ব আর রানী চল্লিশোর্ধ্ব নারী। নিহত দেলোয়ার এসএসএফের অফিস সহায়ক পদে কর্মরত ছিলেন। মরদেহ দুটি প্রাইভেটকারেই ছিল। বর্তমানে তাঁদের লাশ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

যে গাড়ি থেকে লাশটি পাওয়া গেছে, সেটি দেলোয়ারের বলেই জানা গেছে। তার সঙ্গে যে নারীর লাশ পাওয়া গেছে, তার বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি। কী করে তাদের মৃত্যু হলো সে বিষয়ে তদন্ত চলছে।

এ বিষয়ে তেজগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহ আলম বলেন, পুরুষ ব্যক্তির নাম দেলোয়ার হোসেন (৫৩)। তিনি একটি সংস্থার অফিস সহায়ক ছিলেন। তার ভাই মিন্টু মোল্লা লাশটি শনাক্ত করেছেন। আর মৃত নারীর নাম মৌসুমী আক্তার রানি (৪২)। তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায়।

দুজনের মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট নয়। তাদের বিবস্ত্র অবস্থায় পাওয়া গেছে। তাদের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্নও পাওয়া যায়নি।

স্পষ্ট মৃত্যুর কোনো আলামত নেই কিন্তু একই জায়গায় কাছাকাছি সময় দুজনের মৃত্যু রহস্য কি হতে পারে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের অবস্থা দেখে প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে, প্রাইভেটকারে তারা হয় অক্সিজেনের অভাবে মারা গেছেন অথবা উত্তেজক কিছু সেবন করেছিলেন। নারীর ব্যাগে কনডম পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তে স্পষ্ট হবে মৃত্যুর কারণ।

তেজগাঁও থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেন, তাদের মধ্যে কোনো পারিবারিক সম্পর্ক নেই। ধারণা করা হচ্ছে, তারা মাদক বা উত্তেজক কোনো কিছু সেবন করে যৌনকর্মের পর গাড়িতেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। এর পর সাফোকেশনে বা অন্য কোনো কারণে তাদের মৃত্যু হতে পারে।

তিনি বলেন, সকালে একটি ফোন আসে তেজগাঁও থানায়। ফোনে বলা হয়, একটি প্রাইভেটকারের ভেতরে দুটি লাশ রয়েছে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশের তেজগাঁও অঞ্চলের সহকারী কমিশনার মো. মাহমুদ খান বলেন, আজ ভোরে গণপূর্তের স্টাফ কোয়ার্টারের কাছের একটি পুকুরপাড়ে কাপড় দিয়ে ঢাকা অবস্থায় একটি ব্যক্তিগত গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-গ ১৪-০৭২৫) দেখতে পান লোকজন। গাড়িটির ইঞ্জিন চালু ছিল। পরে তারা কাপড়টি সরিয়ে গাড়ির পেছনের আসনে এক পুরুষ ও এক নারীর লাশ দেখতে পান। শোরগোল শুনে কাছের কোয়ার্টার থেকে দেলোয়ারের স্ত্রী ও ভাই ঘটনাস্থলে আসেন এবং থানায় ফোন দেন।

যোগাযোগ করা হলে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) আজিমুল হক বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে ধারণা করা হচ্ছে দুজনই উত্তেজক কিছু সেবন করে থাকতে পারেন। তাছাড়া প্রাইভেটকারে তাদের বিবস্ত্র অবস্থায় পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, তাদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে একটি ইউডি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Please Share This Post in Your Social Media

তেজগাঁওয়ে প্রাইভেটকার থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় নারী-পুরুষের লাশ উদ্ধার

Update Time : ০২:২৭:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ জুন ২০২৩

রাজধানীর তেজগাঁওয়ের থানার এলেনবাড়ি এলাকায় সরকারি স্টাফ কোয়ার্টারের গ্যারেজে একটি গাড়ি থেকে বিবস্ত্র অবস্থায় এক নারী ও এক পুরুষের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন, দেলোয়ার হোসেন মোল্লা (৫৩)। তিনি একটি সরকারি অফিসের অফিস সহায়ক ছিলেন। অপরজন মৌসুমী আক্তার রানি (৪২)। তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায়।

বুধবার (৭ জুন) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে গ্যারেজের ভেতরে একটি প্রাইভেটকারে এ দুটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) এইচএম আজিমুল হক।

এইচএম আজিমুল হক জানান, বিবস্ত্র অবস্থায় প্রাইভেটকার থেকে তাঁদের লাশ উদ্ধার করা হয়। দেলোয়ার পঞ্চাশোর্ধ্ব আর রানী চল্লিশোর্ধ্ব নারী। নিহত দেলোয়ার এসএসএফের অফিস সহায়ক পদে কর্মরত ছিলেন। মরদেহ দুটি প্রাইভেটকারেই ছিল। বর্তমানে তাঁদের লাশ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

যে গাড়ি থেকে লাশটি পাওয়া গেছে, সেটি দেলোয়ারের বলেই জানা গেছে। তার সঙ্গে যে নারীর লাশ পাওয়া গেছে, তার বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি। কী করে তাদের মৃত্যু হলো সে বিষয়ে তদন্ত চলছে।

এ বিষয়ে তেজগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহ আলম বলেন, পুরুষ ব্যক্তির নাম দেলোয়ার হোসেন (৫৩)। তিনি একটি সংস্থার অফিস সহায়ক ছিলেন। তার ভাই মিন্টু মোল্লা লাশটি শনাক্ত করেছেন। আর মৃত নারীর নাম মৌসুমী আক্তার রানি (৪২)। তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায়।

দুজনের মৃত্যুর কারণ স্পষ্ট নয়। তাদের বিবস্ত্র অবস্থায় পাওয়া গেছে। তাদের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্নও পাওয়া যায়নি।

স্পষ্ট মৃত্যুর কোনো আলামত নেই কিন্তু একই জায়গায় কাছাকাছি সময় দুজনের মৃত্যু রহস্য কি হতে পারে- জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাদের অবস্থা দেখে প্রাথমিক ধারণা করা হচ্ছে, প্রাইভেটকারে তারা হয় অক্সিজেনের অভাবে মারা গেছেন অথবা উত্তেজক কিছু সেবন করেছিলেন। নারীর ব্যাগে কনডম পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্তে স্পষ্ট হবে মৃত্যুর কারণ।

তেজগাঁও থানার ওসি অপূর্ব হাসান বলেন, তাদের মধ্যে কোনো পারিবারিক সম্পর্ক নেই। ধারণা করা হচ্ছে, তারা মাদক বা উত্তেজক কোনো কিছু সেবন করে যৌনকর্মের পর গাড়িতেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। এর পর সাফোকেশনে বা অন্য কোনো কারণে তাদের মৃত্যু হতে পারে।

তিনি বলেন, সকালে একটি ফোন আসে তেজগাঁও থানায়। ফোনে বলা হয়, একটি প্রাইভেটকারের ভেতরে দুটি লাশ রয়েছে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ দুটি উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠিয়েছে।

পুলিশের তেজগাঁও অঞ্চলের সহকারী কমিশনার মো. মাহমুদ খান বলেন, আজ ভোরে গণপূর্তের স্টাফ কোয়ার্টারের কাছের একটি পুকুরপাড়ে কাপড় দিয়ে ঢাকা অবস্থায় একটি ব্যক্তিগত গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-গ ১৪-০৭২৫) দেখতে পান লোকজন। গাড়িটির ইঞ্জিন চালু ছিল। পরে তারা কাপড়টি সরিয়ে গাড়ির পেছনের আসনে এক পুরুষ ও এক নারীর লাশ দেখতে পান। শোরগোল শুনে কাছের কোয়ার্টার থেকে দেলোয়ারের স্ত্রী ও ভাই ঘটনাস্থলে আসেন এবং থানায় ফোন দেন।

যোগাযোগ করা হলে তেজগাঁও বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) আজিমুল হক বলেন, পুলিশের পক্ষ থেকে ধারণা করা হচ্ছে দুজনই উত্তেজক কিছু সেবন করে থাকতে পারেন। তাছাড়া প্রাইভেটকারে তাদের বিবস্ত্র অবস্থায় পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, তাদের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে একটি ইউডি মামলার প্রস্তুতি চলছে।