ঢাকা ০৫:৩২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
বিমানবন্দর-টঙ্গী থেকে ধারালো অস্ত্রসহ ৮ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার কিশোরগঞ্জে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে স্কুলের উন্নয়ন খাতের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সাংবাদিককে ৫ বছরের অভিজ্ঞতা ও গ্র্যাজুয়েট হতে হবে বেনজীরের আরও ১১৩ দলিলের সম্পদ ও গুলশানের ৪টি ফ্ল্যাট জব্দের আদেশ সুজানগরে গৃহবধূকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ সুষ্ঠু নির্বাচনের স্বার্থে কাউকে ছাড় দেব না : ইসি রাশেদা ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে একটি বাড়ি থেকে ১২ কোটি রুপির স্বর্ণ জব্দ সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে বৈধপথে রেমিট্যান্স প্রেরণের আহ্বান প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর ঝালকাঠিতে রেমালের প্রভাবে নদীর পানি বেড়েছে ২১৭ নেতাকে বহিষ্কার করল বিএনপি

জবি অধ্যাপকের উপর স্থানীয় চেয়ারম্যানের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

Reporter Name
  • Update Time : ১০:২৬:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ মে ২০২৩
  • / ১০৬ Time View

মো রাকিব হাসান, জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মো: নজরুল ইসলামের উপর স্থানীয় চেয়ারম্যানের হামলার ঘটনার প্রতিবাদে সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও ছাত্র – ছাত্রীরা।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. লুতফর রহমান হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, কোনো শিক্ষককে নির্যাতন করা হয় তবে আমরা বসে থাকতে পারি না। শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষকের মর্যাদাকে সমুন্নত রাখতে হবে।

এসময় অভিযুক্ত চেয়ারম্যান ও মাদ্রাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহ সকলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

মানববন্ধনে কলা অনুষদের ডিন ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাদা দলের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. রইস উদদীন বলেন, অধ্যাপক নজরুল ইসলামের সাথে থাকা মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের পরিচালক জিয়াউল আহসানকে জিজ্ঞেসাবাদ করলেই আমার মনে হয় প্রকৃত ঘটনাটি বেরিয়ে আসবে। একই ঘটনায় আমাদের সহকর্মীর উপর হামলা হলো কিন্তু ওই বোর্ড পরিচালক একদম অরক্ষিত অবস্থায় সেখান থেকে ফিরে আসে। এখানেই সন্দেহ হয় ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মামুনের সাথে ওই কর্মকর্তার কোন দেনাপাওনা র যোগসাজশ আছে কিনা?

ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল অদুূদ বলেন, অধ্যাপক নজরুল ইসলামের উপর যে নেক্কারজনক হামলা করা হয়েছে তা দেশের আর কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের উপর বিগত সময়ে হয়েছে বলে আমার জানা নেই। আমার বিভাগের সহকর্মীর উপর এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত সকলের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্তিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, খুলনার কয়রার উত্তরচক আমিনিয়া বহুমুখী কামিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল নিয়োগকে কেন্দ্র করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের প্রফেসর নজরুল ইসলামকে আটকে রেখে তার ওপর নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ উঠে মহারাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ্ আল মাহমুদের বিরুদ্ধে।

অধ্যাপক নজরুল ইসলাম সেখানে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

Please Share This Post in Your Social Media

জবি অধ্যাপকের উপর স্থানীয় চেয়ারম্যানের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

Update Time : ১০:২৬:১৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ মে ২০২৩

মো রাকিব হাসান, জবি প্রতিনিধি : জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. মো: নজরুল ইসলামের উপর স্থানীয় চেয়ারম্যানের হামলার ঘটনার প্রতিবাদে সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক ও ছাত্র – ছাত্রীরা।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. লুতফর রহমান হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, কোনো শিক্ষককে নির্যাতন করা হয় তবে আমরা বসে থাকতে পারি না। শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষকের মর্যাদাকে সমুন্নত রাখতে হবে।

এসময় অভিযুক্ত চেয়ারম্যান ও মাদ্রাসা ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহ সকলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

মানববন্ধনে কলা অনুষদের ডিন ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাদা দলের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. রইস উদদীন বলেন, অধ্যাপক নজরুল ইসলামের সাথে থাকা মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের পরিচালক জিয়াউল আহসানকে জিজ্ঞেসাবাদ করলেই আমার মনে হয় প্রকৃত ঘটনাটি বেরিয়ে আসবে। একই ঘটনায় আমাদের সহকর্মীর উপর হামলা হলো কিন্তু ওই বোর্ড পরিচালক একদম অরক্ষিত অবস্থায় সেখান থেকে ফিরে আসে। এখানেই সন্দেহ হয় ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মামুনের সাথে ওই কর্মকর্তার কোন দেনাপাওনা র যোগসাজশ আছে কিনা?

ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আবদুল অদুূদ বলেন, অধ্যাপক নজরুল ইসলামের উপর যে নেক্কারজনক হামলা করা হয়েছে তা দেশের আর কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকের উপর বিগত সময়ে হয়েছে বলে আমার জানা নেই। আমার বিভাগের সহকর্মীর উপর এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত সকলের দ্রুত আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

এসময় বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্তিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, খুলনার কয়রার উত্তরচক আমিনিয়া বহুমুখী কামিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল নিয়োগকে কেন্দ্র করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের প্রফেসর নজরুল ইসলামকে আটকে রেখে তার ওপর নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ উঠে মহারাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ্ আল মাহমুদের বিরুদ্ধে।

অধ্যাপক নজরুল ইসলাম সেখানে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।