ঢাকা ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোবিন্দগঞ্জ আদালতে ২২ লাখ টাকার জব্দকৃত মাদক ধ্বংস 

Reporter Name
  • Update Time : ১১:০৭:৫৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩
  • / ১১০ Time View

গাইবান্ধা থেকে আঃ খালেক মন্ডলঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (চৌকি) আদালতে বিভিন্ন সময়ে ২২ মাদক মামলায় জব্দকৃত মাদকসমূহ ধ্বংস করেছে। উদ্ধারকৃত মাদকসমূহের আনুমানিক মূল্য প্রায় ২২ লাখ ২ হাজার একশ’ টাকা।

শনিবার (১৩ মে) বিকেলে আদালত চত্বরে জব্দকৃত মাদকসমূহ ধ্বংস করা হয়। এসময় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুল হাসান, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম, জেলা মাদকদ্রব্যের মামুনুর রশিদ, কোর্ট সাব-ইন্সপেক্টর ক্ষিরোদ চন্দ্র বর্মন,সেকেন্ড অফিসার সঞ্জয়, এস আই জসিম,ডিবির অফিসার প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক রাসেল কবির,আনন্দ টিভির প্রতিনিধি উজ্জ্বল হক প্রধান,সুমন সরকার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জব্দকৃত মালামালের মধ্যে রয়েছে- ৭ মামলায় ৯৩ কেজি ৩০০ গ্রাম গাঁজা, যার আনুমানিক মূল্য ৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা; ৫ মামলায় ১১৪১ বোতল ফেন্সিডিল, যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ ৭০ হাজার ৫০০ টাকা; ৫ মামলায় ইয়াবা ৮২৯পিস, যার আনুমানিক মূল্য ১ লাখ ৬৫ হাজার ৮০০টাকা; ২ মামলায় টেফেনডাডল ৫১, যার আনুমিনক মূল্য ৫ হাজার ১শ’; ২ মামলায় ইনজেকশন প্যাথাড্রিন ৫৩০৭ পিস, যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ ৩০ হাজার ৭০০ টাকা।

Please Share This Post in Your Social Media

গোবিন্দগঞ্জ আদালতে ২২ লাখ টাকার জব্দকৃত মাদক ধ্বংস 

Update Time : ১১:০৭:৫৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ মে ২০২৩

গাইবান্ধা থেকে আঃ খালেক মন্ডলঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (চৌকি) আদালতে বিভিন্ন সময়ে ২২ মাদক মামলায় জব্দকৃত মাদকসমূহ ধ্বংস করেছে। উদ্ধারকৃত মাদকসমূহের আনুমানিক মূল্য প্রায় ২২ লাখ ২ হাজার একশ’ টাকা।

শনিবার (১৩ মে) বিকেলে আদালত চত্বরে জব্দকৃত মাদকসমূহ ধ্বংস করা হয়। এসময় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুল হাসান, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম, জেলা মাদকদ্রব্যের মামুনুর রশিদ, কোর্ট সাব-ইন্সপেক্টর ক্ষিরোদ চন্দ্র বর্মন,সেকেন্ড অফিসার সঞ্জয়, এস আই জসিম,ডিবির অফিসার প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক রাসেল কবির,আনন্দ টিভির প্রতিনিধি উজ্জ্বল হক প্রধান,সুমন সরকার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জব্দকৃত মালামালের মধ্যে রয়েছে- ৭ মামলায় ৯৩ কেজি ৩০০ গ্রাম গাঁজা, যার আনুমানিক মূল্য ৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা; ৫ মামলায় ১১৪১ বোতল ফেন্সিডিল, যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ ৭০ হাজার ৫০০ টাকা; ৫ মামলায় ইয়াবা ৮২৯পিস, যার আনুমানিক মূল্য ১ লাখ ৬৫ হাজার ৮০০টাকা; ২ মামলায় টেফেনডাডল ৫১, যার আনুমিনক মূল্য ৫ হাজার ১শ’; ২ মামলায় ইনজেকশন প্যাথাড্রিন ৫৩০৭ পিস, যার আনুমানিক মূল্য ৫ লাখ ৩০ হাজার ৭০০ টাকা।