ঢাকা ১০:০০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

গোবিন্দগঞ্জে মায়ের শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে ছেলের আত্মহত্যা

আঃ খালেক মন্ডল, গাইবান্ধা
  • Update Time : ০১:০৮:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩
  • / ১০৭ Time View

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মায়ের শাড়ি দিয়ে ফাঁস নিয়ে তুষার (১৫) নামের এক স্কুলছাত্র আত্মহত্যা করেছে। শনিবার (২০ মে) বিকেলে উপজেলার সাপমারা ইউনিয়নের চক রহিমাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত তুষার একই গ্রামের অরবিন্দু চন্দ্রের ছেলে। সে সাহেবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পরিবারের বরাত দিয়ে সাপমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাকিল আকন্দ বুলবুল জানান, বিকেলে তুষার কাউকে কিছু না বলে ঘরে ঢোকে। ঘরে থাকা তার মায়ের শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস নেয়। কিছুক্ষণ পর পরিবারের লোকজন ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তাকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। তবে কেন এবং কী কারণে তুষার আত্মহত্যা করল এ ব্যাপারে পরিবারের লোকজন কিছুই বলতে পারেনি।

তিনি আরও জানান, এত কম বয়সে ছাত্রের আত্মহত্যার বিষয়টি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না পরিবার। বিষয়টি গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

গোবিন্দগঞ্জে মায়ের শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে ছেলের আত্মহত্যা

Update Time : ০১:০৮:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মায়ের শাড়ি দিয়ে ফাঁস নিয়ে তুষার (১৫) নামের এক স্কুলছাত্র আত্মহত্যা করেছে। শনিবার (২০ মে) বিকেলে উপজেলার সাপমারা ইউনিয়নের চক রহিমাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত তুষার একই গ্রামের অরবিন্দু চন্দ্রের ছেলে। সে সাহেবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

পরিবারের বরাত দিয়ে সাপমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাকিল আকন্দ বুলবুল জানান, বিকেলে তুষার কাউকে কিছু না বলে ঘরে ঢোকে। ঘরে থাকা তার মায়ের শাড়ি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস নেয়। কিছুক্ষণ পর পরিবারের লোকজন ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তাকে দেখতে পেয়ে উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। তবে কেন এবং কী কারণে তুষার আত্মহত্যা করল এ ব্যাপারে পরিবারের লোকজন কিছুই বলতে পারেনি।

তিনি আরও জানান, এত কম বয়সে ছাত্রের আত্মহত্যার বিষয়টি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছে না পরিবার। বিষয়টি গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশকে জানানো হয়েছে।