ঢাকা ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোবিন্দগঞ্জে বসতবাড়ি নিয়ে দ্বন্দ্বে আহত ২

Reporter Name
  • Update Time : ১২:০১:৩৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩
  • / ৭১ Time View

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের পল্লীতে বসতবাড়ির জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে দুইজনকে রক্তাক্ত জখম ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (২৪ মে) দুপুরে উপজেলার শাখাহার ইউপির দশলাল গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। ওই গ্রামের মৃত আ. রাজ্জাকের ছেলে সবুজ মিয়ার ভাগী-শরীকদের সাথে দ্বন্দ্বে অভিযুক্ত মোখলেছুর রহমানের ছেলে আমিরুল গংরা ঘটনাটি ঘটায়। এ ঘটনায় আমিরুল সহ ৮ জনকে অভিযুক্ত করে গোবিন্দগঞ্জ থানায় লিখিত এজাহার জমা দিয়েছে ভুক্তভোগী সবুজ মিয়া।

জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে মানবিক আবেদনে ও সবুজ মিয়ার দাদির আন্তরিকতায় তাদের জমিতে বাড়ি-ঘর করে বসবাস করছিল আমিরুল ইসলাম গংরা। ওই দাদির মৃত্যু হলে শরিকরা আমিরুলদের নিজেদের জায়গায় বাড়ি-ঘর স্থানান্তরের অনুরোধ জানান। তারা নিজেরা সম্মতি দিয়ে সময় নিলেও প্রতিবেশিদের প্ররোচনায় তা ভঙ্গ করে; যা নিয়ে স্থানীয়ভাবে শালিসি বৈঠকে তারা পুনরায় সময় নিলেও তালবাহানা করতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা বাড়ি-ঘর ভেঙ্গে জায়গা ছেড়ে দিতে সবুজ গংদের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে। তা দিতে অস্বীকার করায় বিভিন্ন সময় আমিরুল গংরা নানা ধরনের হুমকি অব্যাহত রাখে।

ঘটনার দিন বুধবার সবুজের চাচা আনোয়ার হোসেনকে সংঘবদ্ধভাবে মারপিটে রক্তাক্ত জখম করে। তাকে উদ্ধারে অভিযোগকারী সবুজের মা দেবরকে উদ্ধারের চেষ্টাকালে তাকেও শ্লীলতাহানি সহ মারপিটে গুরুতর আহত করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। প্রতিবেশি ও স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।

এজাহার জমার বিষয়টি নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইজার উদ্দিন জানান, দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Tag :

Please Share This Post in Your Social Media

গোবিন্দগঞ্জে বসতবাড়ি নিয়ে দ্বন্দ্বে আহত ২

Update Time : ১২:০১:৩৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০২৩

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের পল্লীতে বসতবাড়ির জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে দুইজনকে রক্তাক্ত জখম ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (২৪ মে) দুপুরে উপজেলার শাখাহার ইউপির দশলাল গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। ওই গ্রামের মৃত আ. রাজ্জাকের ছেলে সবুজ মিয়ার ভাগী-শরীকদের সাথে দ্বন্দ্বে অভিযুক্ত মোখলেছুর রহমানের ছেলে আমিরুল গংরা ঘটনাটি ঘটায়। এ ঘটনায় আমিরুল সহ ৮ জনকে অভিযুক্ত করে গোবিন্দগঞ্জ থানায় লিখিত এজাহার জমা দিয়েছে ভুক্তভোগী সবুজ মিয়া।

জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে মানবিক আবেদনে ও সবুজ মিয়ার দাদির আন্তরিকতায় তাদের জমিতে বাড়ি-ঘর করে বসবাস করছিল আমিরুল ইসলাম গংরা। ওই দাদির মৃত্যু হলে শরিকরা আমিরুলদের নিজেদের জায়গায় বাড়ি-ঘর স্থানান্তরের অনুরোধ জানান। তারা নিজেরা সম্মতি দিয়ে সময় নিলেও প্রতিবেশিদের প্ররোচনায় তা ভঙ্গ করে; যা নিয়ে স্থানীয়ভাবে শালিসি বৈঠকে তারা পুনরায় সময় নিলেও তালবাহানা করতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা বাড়ি-ঘর ভেঙ্গে জায়গা ছেড়ে দিতে সবুজ গংদের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে। তা দিতে অস্বীকার করায় বিভিন্ন সময় আমিরুল গংরা নানা ধরনের হুমকি অব্যাহত রাখে।

ঘটনার দিন বুধবার সবুজের চাচা আনোয়ার হোসেনকে সংঘবদ্ধভাবে মারপিটে রক্তাক্ত জখম করে। তাকে উদ্ধারে অভিযোগকারী সবুজের মা দেবরকে উদ্ধারের চেষ্টাকালে তাকেও শ্লীলতাহানি সহ মারপিটে গুরুতর আহত করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। প্রতিবেশি ও স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।

এজাহার জমার বিষয়টি নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইজার উদ্দিন জানান, দ্রুত তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।