ঢাকা ১০:১৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গোবিন্দগঞ্জে নিখোঁজ হওয়া সেই দুই বান্ধবী ১৭ দিন পর উদ্ধার

আঃ খালেক মন্ডল, গাইবান্ধা
  • Update Time : ১০:৩৬:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুন ২০২৩
  • / ১৩৭ Time View

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের চাঞ্চল্যকর এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে উধাও দুই বান্ধবীকে ১৭ দিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার লিয়া খাতুন (১৮) ও হিমা খাতুন (১৭) নামের দুই বান্ধবী নিখোঁজ হয়েছিল। ঘটনার ১৭ দিন পর ঢাকা থেকে তাদের উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ জুন) সকালে ঢাকার আশুলিয়া এলাকা থেকে প্রযুক্তি ব্যবহার করে উদ্ধারের পর বিকেলে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে গোবিন্দগঞ্জ থানার পুলিশ।

গত ৩১ মে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে তারা নিখোঁজ হয়েছিল। তারা স্বাবলম্বী হওয়ার উদ্দেশ্যেই বাড়ি ছেড়েছিল দাবী করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ জুন) গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশের একটি অভিযানিক দল ঢাকার আশুলিয়া বাইপাইল তাদের ভাড়া বাসা থেকে উদ্ধার করে। বাড়িতে কাউকে কিছু না জানিয়ে ঢাকার পোশাক কারখানায় চাকরির উদ্দেশ্যে পাড়ি জমিয়ে ছিল বলে পুলিশকে জানায় ওই দুই বান্ধবী।

নিখোঁজ দুই তরুণীর একজন উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের দক্ষিণ ছয়ঘড়িয়া (পাছপাড়া) গ্রামের মেয়ে লিয়া খাতুন (১৮)এর পিতা বাবু মিয়া জানান,তার মেয়ে ও একই ইউনিয়নের সিংগা গ্রামের আব্দুল হামিদ মিয়ার মেয়ে হিমা খাতুন (১৭) স্থানীয় ছয়ঘড়িয়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

গত ৩১ মে মহিমাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে শেষ পরীক্ষা দিয়ে কয়েকজন বান্ধবীসহ একটি অটোভ্যান যোগে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়। কিন্তু তারা বাড়িতে ফিরে না আসায় খোঁজাখুঁজি শুরু করে তাদের না পাওয়ায় গত ২ জুন গোবিন্দগঞ্জ থানায় পৃথক দুটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করা হয়। এরই ফলশ্রতিতে গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ ফোন ট্রাকিংসহ প্রযুক্তির ব্যবহার করে তাদের অবস্থান চিহ্নিত করে।

আজ শনিবার দুজনকেই উদ্ধার করে পরিবারের হাতে তুলে দেন। অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া গোবিন্দগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দীপক কুমার জানান, প্রাথমিকভাবে ওই দুই বান্ধবীকে অপহরণের কোন আলামত পাওয়া যাযনি।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বাবলম্বী হওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি ছেড়ে ঢাকায় গিয়ে পোশাক কারখানায় চাকুরি নেয়ার চেষ্টা করছিল বলে জানিয়েছে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইজার উদ্দিন জানান, উদ্ধার হওয়া দুই বান্ধবী আত্ননির্ভরতা অর্জনের জন্য পরিবারের কাছে অনুমতি চেয়ে না পেয়ে কাউকে না জানিয়ে ঢাকায় যায়। সেখানে তারা দুজন দিলে একটি রুম ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে কাজের অনুসন্ধান করতে থাকে। ইতিমধ্যে একজন সেখানকার একটি তৈরী পোষাক কারখানায় চাকুরী শুরু করে। যেহেতু তাদের বয়স কম সেহেতু অভিভাবকদের আবেদনের প্রেক্ষিতে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের দক্ষিণ ছয়ঘড়িয়া (পাছপাড়া) গ্রামের বাবু মিয়ার মেয়ে লিয়া খাতুন ও সিংগা গ্রামের আব্দুল হামিদ মিয়ার হিমা খাতুন স্থানীয় ছয়ঘড়িয়া দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। গত (৩১ মে) মহিমাগঞ্জ কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা শেষে কয়েকজন বান্ধবীসহ একই সাথে অটোভ্যানযোগে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়।

এরপর বেলা শেষে সন্ধ্যা গড়িয়ে এলে তারা বাড়িতে না পৌঁছায় অভিভাবকেরা চিন্তায় পড়ে যায়। তখন সহপাঠীদের বাড়িতে খোঁজ নিতে শুরু করে তারা। পরবর্তী আত্নীয়- স্বজনসহ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করা হয় । কোথাও তাদের সন্ধান না পেয়ে হিমা খাতুন ও লিয়া খাতুনের পরিবার থেকে গত (২ জুন)থানায় পৃথকভাবে দুটি সাধারণ ডায়েরি করেন।এরপর পুলিশ তাদের উদ্ধার তৎপরতা চালায়। এরই একপর্যায়ে শনিবার ওইস্থান থেকে শিলা ও হিমাকে উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইজার উদ্দিন বলেন, উদ্ধার হওয়া শিলা ও হিমা নিজেদের নির্ভরশীল করার লক্ষ্যে ঢাকার পোশাক কারখানায় চাকুরি উদ্দেশ্য পাড়ি জমিয়েছিল। সেখানে দুজনে বাসা ভাড়া নিয়ে চাকরি খুঁজতে থাকে। পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের উদ্ধার করে স্বজনদের জিম্মায় দেওয়া হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

গোবিন্দগঞ্জে নিখোঁজ হওয়া সেই দুই বান্ধবী ১৭ দিন পর উদ্ধার

Update Time : ১০:৩৬:২৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুন ২০২৩

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের চাঞ্চল্যকর এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে উধাও দুই বান্ধবীকে ১৭ দিন পর উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার লিয়া খাতুন (১৮) ও হিমা খাতুন (১৭) নামের দুই বান্ধবী নিখোঁজ হয়েছিল। ঘটনার ১৭ দিন পর ঢাকা থেকে তাদের উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ জুন) সকালে ঢাকার আশুলিয়া এলাকা থেকে প্রযুক্তি ব্যবহার করে উদ্ধারের পর বিকেলে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে গোবিন্দগঞ্জ থানার পুলিশ।

গত ৩১ মে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে তারা নিখোঁজ হয়েছিল। তারা স্বাবলম্বী হওয়ার উদ্দেশ্যেই বাড়ি ছেড়েছিল দাবী করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ জুন) গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশের একটি অভিযানিক দল ঢাকার আশুলিয়া বাইপাইল তাদের ভাড়া বাসা থেকে উদ্ধার করে। বাড়িতে কাউকে কিছু না জানিয়ে ঢাকার পোশাক কারখানায় চাকরির উদ্দেশ্যে পাড়ি জমিয়ে ছিল বলে পুলিশকে জানায় ওই দুই বান্ধবী।

নিখোঁজ দুই তরুণীর একজন উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের দক্ষিণ ছয়ঘড়িয়া (পাছপাড়া) গ্রামের মেয়ে লিয়া খাতুন (১৮)এর পিতা বাবু মিয়া জানান,তার মেয়ে ও একই ইউনিয়নের সিংগা গ্রামের আব্দুল হামিদ মিয়ার মেয়ে হিমা খাতুন (১৭) স্থানীয় ছয়ঘড়িয়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

গত ৩১ মে মহিমাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে শেষ পরীক্ষা দিয়ে কয়েকজন বান্ধবীসহ একটি অটোভ্যান যোগে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়। কিন্তু তারা বাড়িতে ফিরে না আসায় খোঁজাখুঁজি শুরু করে তাদের না পাওয়ায় গত ২ জুন গোবিন্দগঞ্জ থানায় পৃথক দুটি সাধারণ ডায়রি (জিডি) করা হয়। এরই ফলশ্রতিতে গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ ফোন ট্রাকিংসহ প্রযুক্তির ব্যবহার করে তাদের অবস্থান চিহ্নিত করে।

আজ শনিবার দুজনকেই উদ্ধার করে পরিবারের হাতে তুলে দেন। অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া গোবিন্দগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দীপক কুমার জানান, প্রাথমিকভাবে ওই দুই বান্ধবীকে অপহরণের কোন আলামত পাওয়া যাযনি।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বাবলম্বী হওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি ছেড়ে ঢাকায় গিয়ে পোশাক কারখানায় চাকুরি নেয়ার চেষ্টা করছিল বলে জানিয়েছে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ইজার উদ্দিন জানান, উদ্ধার হওয়া দুই বান্ধবী আত্ননির্ভরতা অর্জনের জন্য পরিবারের কাছে অনুমতি চেয়ে না পেয়ে কাউকে না জানিয়ে ঢাকায় যায়। সেখানে তারা দুজন দিলে একটি রুম ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে কাজের অনুসন্ধান করতে থাকে। ইতিমধ্যে একজন সেখানকার একটি তৈরী পোষাক কারখানায় চাকুরী শুরু করে। যেহেতু তাদের বয়স কম সেহেতু অভিভাবকদের আবেদনের প্রেক্ষিতে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

পুলিশ জানায়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কোচাশহর ইউনিয়নের দক্ষিণ ছয়ঘড়িয়া (পাছপাড়া) গ্রামের বাবু মিয়ার মেয়ে লিয়া খাতুন ও সিংগা গ্রামের আব্দুল হামিদ মিয়ার হিমা খাতুন স্থানীয় ছয়ঘড়িয়া দ্বি-মূখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। গত (৩১ মে) মহিমাগঞ্জ কেন্দ্র থেকে পরীক্ষা শেষে কয়েকজন বান্ধবীসহ একই সাথে অটোভ্যানযোগে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়।

এরপর বেলা শেষে সন্ধ্যা গড়িয়ে এলে তারা বাড়িতে না পৌঁছায় অভিভাবকেরা চিন্তায় পড়ে যায়। তখন সহপাঠীদের বাড়িতে খোঁজ নিতে শুরু করে তারা। পরবর্তী আত্নীয়- স্বজনসহ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করা হয় । কোথাও তাদের সন্ধান না পেয়ে হিমা খাতুন ও লিয়া খাতুনের পরিবার থেকে গত (২ জুন)থানায় পৃথকভাবে দুটি সাধারণ ডায়েরি করেন।এরপর পুলিশ তাদের উদ্ধার তৎপরতা চালায়। এরই একপর্যায়ে শনিবার ওইস্থান থেকে শিলা ও হিমাকে উদ্ধার করে।

এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইজার উদ্দিন বলেন, উদ্ধার হওয়া শিলা ও হিমা নিজেদের নির্ভরশীল করার লক্ষ্যে ঢাকার পোশাক কারখানায় চাকুরি উদ্দেশ্য পাড়ি জমিয়েছিল। সেখানে দুজনে বাসা ভাড়া নিয়ে চাকরি খুঁজতে থাকে। পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের উদ্ধার করে স্বজনদের জিম্মায় দেওয়া হয়।