ঢাকা ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাজার নিরাপত্তার দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত তুরস্ক: এরদোগান

নওরোজ আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • Update Time : ০৯:৪৬:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৬৬ Time View

আমরা বিশ্বাস করি গাজায় আঞ্চলিক নেতাদের সহযোগিতায় একটি নতুন নিরাপত্তাব্যবস্থার প্রয়োজন। যদি এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়, সে ব্যাপারে তুরস্ক দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

মঙ্গলবার তুরস্কের মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এরদোগান বলেন, ইসরাইল মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ করছে। দেশটিকে অবিলম্বে এসব বন্ধ করতে হবে।

এরদোগান বলেন, ফিলিস্তিনের গাজায় ‘মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ করছে ইসরাইল। আর ইসরাইলি বাহিনীর এমন কর্মকাণ্ডে সহায়তা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলো।

তিনি বলেন, গাজায় যুদ্ধাপরাধ সংঘটনকারীদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের আলোচনা চলমান আছে। সেখানে স্থায়ী শান্তির পথ অনুসরণ করতে হবে।

এরদোগান ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধে জড়িত থাকার জন্য পশ্চিমাদের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, পশ্চিমাবিশ্ব প্রধানত ইউরোপীয় দেশগুলো গাজায় আবারও ব্যর্থ হয়েছে। তারা তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা সম্পূর্ণভাবে হারিয়ে ফেলেছে।

ইসরাইল হামলা শুরুর পর রোববার পর্যন্ত ৮ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন বলে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়মিত ব্রিফিংয়ে জানিয়েছে। এর মধ্যে ৩ হাজারের বেশি শিশু এবং ২ হাজারের বেশি নারী। আহত হয়েছেন ২০ হাজারের বেশি মানুষ।

এখনো ধ্বংসস্তূপের নিচে প্রায় এক হাজার মরদেহ পড়ে আছে। এ ছাড়া পশ্চিমতীরেও হামলা বাড়িয়েছে ইসরাইলি বাহিনী।

অন্যদিকে ইসরাইলে হামাসের হামলায় এখন পর্যন্ত এক হাজার ৪০০ জনের বেশি নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩৩১ জন সেনা। এ ছাড়া নিজেদের বন্দিদের মুক্ত করে আনতে দুই শতাধিক ইসরাইলিকে জিম্মি করে রেখেছেন হামাসযোদ্ধারা। জিম্মিদের বেশ কয়েকজন পশ্চিমা দেশগুলোর দ্বৈত নাগরিক।

Please Share This Post in Your Social Media

গাজার নিরাপত্তার দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত তুরস্ক: এরদোগান

Update Time : ০৯:৪৬:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ নভেম্বর ২০২৩

আমরা বিশ্বাস করি গাজায় আঞ্চলিক নেতাদের সহযোগিতায় একটি নতুন নিরাপত্তাব্যবস্থার প্রয়োজন। যদি এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়, সে ব্যাপারে তুরস্ক দায়িত্ব নিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান।

মঙ্গলবার তুরস্কের মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এরদোগান বলেন, ইসরাইল মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ করছে। দেশটিকে অবিলম্বে এসব বন্ধ করতে হবে।

এরদোগান বলেন, ফিলিস্তিনের গাজায় ‘মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ করছে ইসরাইল। আর ইসরাইলি বাহিনীর এমন কর্মকাণ্ডে সহায়তা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলো।

তিনি বলেন, গাজায় যুদ্ধাপরাধ সংঘটনকারীদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের আলোচনা চলমান আছে। সেখানে স্থায়ী শান্তির পথ অনুসরণ করতে হবে।

এরদোগান ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধে জড়িত থাকার জন্য পশ্চিমাদের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, পশ্চিমাবিশ্ব প্রধানত ইউরোপীয় দেশগুলো গাজায় আবারও ব্যর্থ হয়েছে। তারা তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা সম্পূর্ণভাবে হারিয়ে ফেলেছে।

ইসরাইল হামলা শুরুর পর রোববার পর্যন্ত ৮ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন বলে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়মিত ব্রিফিংয়ে জানিয়েছে। এর মধ্যে ৩ হাজারের বেশি শিশু এবং ২ হাজারের বেশি নারী। আহত হয়েছেন ২০ হাজারের বেশি মানুষ।

এখনো ধ্বংসস্তূপের নিচে প্রায় এক হাজার মরদেহ পড়ে আছে। এ ছাড়া পশ্চিমতীরেও হামলা বাড়িয়েছে ইসরাইলি বাহিনী।

অন্যদিকে ইসরাইলে হামাসের হামলায় এখন পর্যন্ত এক হাজার ৪০০ জনের বেশি নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩৩১ জন সেনা। এ ছাড়া নিজেদের বন্দিদের মুক্ত করে আনতে দুই শতাধিক ইসরাইলিকে জিম্মি করে রেখেছেন হামাসযোদ্ধারা। জিম্মিদের বেশ কয়েকজন পশ্চিমা দেশগুলোর দ্বৈত নাগরিক।