ঢাকা ১১:৪০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় গৃহবধুকে হাত পা-বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

Reporter Name
  • Update Time : ০৭:১০:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩
  • / ১১৮ Time View

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের তরফবাজিদ গ্রামে এক গৃহবধুকে হাত-পা বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্বামীসহ তার পরিবারের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, ৭ই অষ্টোম্বর ২০২১ সালে প্রেম করে সদর উপজেলার গিদারী ইউনিয়নের মধু শেখের তৃতীয় ছেলে নবিকুল ইসলামের সাথে সাদুল্যাপুরের জামালপুরের ইউনিয়নের তরফবাজিদ গ্রামের বাদশা মিয়া মেয়ে বিউটি খাতুনের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য বিউটি স্বামী নবিকুল ইসলাম বিউটির ও বিউটির পরিবারকে চাপ দিয়ে আসছিল। বিউটি যৌতুক দিতে অস্বীকার করায় এরই জের ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্য পারিবারিক দন্দ কলহ চলে আসছিল।গেল ইদে বিউটি বাবার বাড়িতে বেড়াতে যায়। আজ দুপরে বিউটি বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি আসলে তার বড় ভাসুর মোজাম্মেল বিউটিকে দেখে উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করতে থাকে। পরে নবিজলের মেজো ভাই শফিকুল ইসলাম ও তার মা আছিয়া বেগম বাড়ির উঠানে নিয়ে গিয়ে বিউটি বেগমকে বেদম মারধর করে। পরে বিউটি আহত অবস্থায় চিৎকার করতে থাকলে পাশে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে হাত- পা বেধে অবুরুদ্ধ করে রাখে।

বিষয়টি জানতে পেয়ে স্থানীয়রা জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ ফোন করে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হাত – পা বাধা অবস্থায় বিউটি বেগমকে উদ্ধার করে। পরে চিকিৎসার জন্য বিউটিকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ঘটনায় নির্যাতিত ওই গৃহবধু বাবা বাদশা মিয়া বাদী হয়ে সাদুল্যাপুর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

গাইবান্ধায় গৃহবধুকে হাত পা-বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

Update Time : ০৭:১০:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০২৩

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের তরফবাজিদ গ্রামে এক গৃহবধুকে হাত-পা বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্বামীসহ তার পরিবারের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, ৭ই অষ্টোম্বর ২০২১ সালে প্রেম করে সদর উপজেলার গিদারী ইউনিয়নের মধু শেখের তৃতীয় ছেলে নবিকুল ইসলামের সাথে সাদুল্যাপুরের জামালপুরের ইউনিয়নের তরফবাজিদ গ্রামের বাদশা মিয়া মেয়ে বিউটি খাতুনের বিয়ে হয়।

বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য বিউটি স্বামী নবিকুল ইসলাম বিউটির ও বিউটির পরিবারকে চাপ দিয়ে আসছিল। বিউটি যৌতুক দিতে অস্বীকার করায় এরই জের ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্য পারিবারিক দন্দ কলহ চলে আসছিল।গেল ইদে বিউটি বাবার বাড়িতে বেড়াতে যায়। আজ দুপরে বিউটি বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়ি আসলে তার বড় ভাসুর মোজাম্মেল বিউটিকে দেখে উত্তেজিত হয়ে গালমন্দ করতে থাকে। পরে নবিজলের মেজো ভাই শফিকুল ইসলাম ও তার মা আছিয়া বেগম বাড়ির উঠানে নিয়ে গিয়ে বিউটি বেগমকে বেদম মারধর করে। পরে বিউটি আহত অবস্থায় চিৎকার করতে থাকলে পাশে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে হাত- পা বেধে অবুরুদ্ধ করে রাখে।

বিষয়টি জানতে পেয়ে স্থানীয়রা জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ ফোন করে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হাত – পা বাধা অবস্থায় বিউটি বেগমকে উদ্ধার করে। পরে চিকিৎসার জন্য বিউটিকে গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে ভর্তি করায়। এ ঘটনায় নির্যাতিত ওই গৃহবধু বাবা বাদশা মিয়া বাদী হয়ে সাদুল্যাপুর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।