ঢাকা ০৭:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ
পাঁচ কোটি টাকার বিনিয়োগ হারালেন আয়ামান সাদিক নোয়াখালীতে নকল ক্যাবল বিক্রির দায়ে জরিমানা কোটা সংস্কার আন্দোলনে যাওয়ায় ইবি শিক্ষার্থীকে বেধরক মারধর  পিবিআই এর দুই কর্মকর্তার বদলী জনিত বিদায়ী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত মোটরসাইকেল নিয়ে বিরোধ: নোয়াখালীতে বসতঘরে ঢুকে যুবককে গুলি করে হত্যা ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগরে সওজের জায়গায় অবৈধ দখলে থাকা দোকানপাট উচ্ছেদ দুই বঙ্গকন্যা ব্রিটিশ মন্ত্রীসভায় স্থান পাওয়ায় বঙ্গবন্ধু লেখক-সাংবাদিক ফোরামের আনন্দ সভা নতুন আশ্রয়ণের ঘর নির্মাণে খুশী গাইবান্ধার চরাঞ্চলের মানুষ গ্যাস সংকটে চার মাস ধরে শাহজালাল সার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ সুবর্ণচরে বৃদ্ধকে জবাই করে হত্যা, গ্রেপ্তার ৩

কুয়াকাটায় পর্যটক নিরাপত্তায় ট্যুরিস্ট পুলিশের সক্ষমতা বৃদ্ধি শীর্ষক প্রশিক্ষণ

Reporter Name
  • Update Time : ০৬:২৭:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩
  • / ১২২ Time View

এইচ এম মোজাহিদুল ইসলাম নান্নু, পটুয়াখালীঃ ট্যুরিস্ট পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স কর্তৃক টুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের পুলিশ সদস্যদের নিয়ে জোন ভিত্তিক “পর্যটন গন্তব্য সুরক্ষা ও পর্যটন নিরাপত্তায় টুরিস্ট পুলিশের সক্ষমতা” বৃদ্ধি শীর্ষক ইন হাউজ কোর্স আজ ৮ মে ২০২৩খ্রিঃ কুয়াকাটা পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে উদ্বোধন করা হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে প্রশিক্ষণ কোর্সের শুভ উদ্বোধন করেন জনাব বিধান ত্রিপুরা,পিপিএম (বার),অতিরিক্ত ডিআইজি ,ট্যুরিস্ট পুলিশ (খুলনা ও বরিশাল)ডিভিশন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র মোঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার , কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি জনাব মো: নাসির উদ্দিন বিপ্লব। উক্ত প্রশিক্ষণে কোর্সে ২০ জন প্রশিক্ষনার্থী অংশগ্রহণ করেন।

উদ্বোধনী ভাষনে প্রধান অতিথি বলেন কুয়াকাটা সী-বীচে দিন দিন পর্যটক সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাই দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ট্যুরিস্ট স্পট সমুহ নিরাপদ রাখার জন্য ট্যুরিস্ট পুলিশ নিরলস ভাবে কাজ করছে। পর্যটকদের সেবায় ট্যুরিস্ট পুলিশ পেশাদারিত্ব বজায় রেখে পর্যটক বান্ধব পুলিশ হিসেবে কাজ করবে। এই প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য হচ্ছে টুরিস্ট পুলিশ সদস্যদের পেশাগত মান দক্ষতা বৃদ্ধি করা। স্থানীয় সমস্যা ও চ্যালেঞ্জসমূহ জেনে সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নিজেদের একজন দক্ষ সদস্য হিসেবে গড়ে তুলবে । টুরিস্ট পুলিশের সদস্যরা একজন এম্বাসেডর, একজন গাইড হিসেবে কাজ করে সেবার মান কে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাবেন।

তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজেই টুরিস্ট পুলিশ সৃষ্টি করেছেন। দক্ষিণ এশীয় দেশগুলিতে ট্যুরিজম সেক্টর অর্থনীতিতে অনেক বড় অবদান রাখছে, বাংলাদেশেও পর্যটন সেক্টর এর মাধ্যমে জিডিপি সহ অর্থনীতিতে আরো অনেক বেশি অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। বিশেষ অতিথি কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আনোয়ার হোসেন বলেন,কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে আগত পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য ট্যুরিস্ট পুলিশ দিন-রাত্রী নিরলসভাবে কাজ করছে, টুরিস্ট পুলিশ আছে বলেই আজ পর্যটক দর্শনার্থীরা নির্বিঘ্নে, সুন্দর একটা পরিবেশে কুয়াকাটায় ভ্রমণ করতে পারছেন। এই প্রশিক্ষণ পর্যটন এলাকায় ট্যুরিস্ট পুলিশের সক্ষমতা আরো বৃদ্ধি করবে।

কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব বলেন কুয়াকাটায় বর্তমানে টুরিস্ট পুলিশ অত্যন্ত আন্তরিকতার সহিত পেশাদারিত্ব বজায় রেখে পর্যটক ও দর্শনার্থীদের কাঙ্খিত সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। নারী শিশুসহ আগত পর্যটকদের সাথে ট্যুরিস্ট পুলিশের আন্তরিকতা বৃদ্ধি করতে এই প্রশিক্ষণ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে । ট্যুরিজম সেক্টর শৃংখলার দায়িত্ব পালন করে ট্যুরিস্ট পুলিশ। প্রশিক্ষণ কোর্সের সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন এই প্রশিক্ষন গ্রহন করে ট্যুরিস্ট পুলিশের কর্মকর্তারা কর্মক্ষেত্র তথা কুয়াকাটা সী-বীচ উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা গুরুত্বপূর্ণ রাখবে। স্থানীয় সকল স্টেকহোল্ডারদের সাথে সুসম্পর্ক রেখে সমন্বিতভাবে কাজ করে বাংলাদেশের ইকোনমিতে ভূমিকা রাখবে পুলিশ।

Please Share This Post in Your Social Media

কুয়াকাটায় পর্যটক নিরাপত্তায় ট্যুরিস্ট পুলিশের সক্ষমতা বৃদ্ধি শীর্ষক প্রশিক্ষণ

Reporter Name
Update Time : ০৬:২৭:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ মে ২০২৩

এইচ এম মোজাহিদুল ইসলাম নান্নু, পটুয়াখালীঃ ট্যুরিস্ট পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স কর্তৃক টুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোনের পুলিশ সদস্যদের নিয়ে জোন ভিত্তিক “পর্যটন গন্তব্য সুরক্ষা ও পর্যটন নিরাপত্তায় টুরিস্ট পুলিশের সক্ষমতা” বৃদ্ধি শীর্ষক ইন হাউজ কোর্স আজ ৮ মে ২০২৩খ্রিঃ কুয়াকাটা পৌরসভার সম্মেলন কক্ষে উদ্বোধন করা হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে প্রশিক্ষণ কোর্সের শুভ উদ্বোধন করেন জনাব বিধান ত্রিপুরা,পিপিএম (বার),অতিরিক্ত ডিআইজি ,ট্যুরিস্ট পুলিশ (খুলনা ও বরিশাল)ডিভিশন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র মোঃ আনোয়ার হোসেন হাওলাদার , কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি জনাব মো: নাসির উদ্দিন বিপ্লব। উক্ত প্রশিক্ষণে কোর্সে ২০ জন প্রশিক্ষনার্থী অংশগ্রহণ করেন।

উদ্বোধনী ভাষনে প্রধান অতিথি বলেন কুয়াকাটা সী-বীচে দিন দিন পর্যটক সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাই দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ট্যুরিস্ট স্পট সমুহ নিরাপদ রাখার জন্য ট্যুরিস্ট পুলিশ নিরলস ভাবে কাজ করছে। পর্যটকদের সেবায় ট্যুরিস্ট পুলিশ পেশাদারিত্ব বজায় রেখে পর্যটক বান্ধব পুলিশ হিসেবে কাজ করবে। এই প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্য হচ্ছে টুরিস্ট পুলিশ সদস্যদের পেশাগত মান দক্ষতা বৃদ্ধি করা। স্থানীয় সমস্যা ও চ্যালেঞ্জসমূহ জেনে সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় নিজেদের একজন দক্ষ সদস্য হিসেবে গড়ে তুলবে । টুরিস্ট পুলিশের সদস্যরা একজন এম্বাসেডর, একজন গাইড হিসেবে কাজ করে সেবার মান কে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যাবেন।

তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজেই টুরিস্ট পুলিশ সৃষ্টি করেছেন। দক্ষিণ এশীয় দেশগুলিতে ট্যুরিজম সেক্টর অর্থনীতিতে অনেক বড় অবদান রাখছে, বাংলাদেশেও পর্যটন সেক্টর এর মাধ্যমে জিডিপি সহ অর্থনীতিতে আরো অনেক বেশি অবদান রাখার সুযোগ রয়েছে। বিশেষ অতিথি কুয়াকাটা পৌরসভার মেয়র আনোয়ার হোসেন বলেন,কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে আগত পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য ট্যুরিস্ট পুলিশ দিন-রাত্রী নিরলসভাবে কাজ করছে, টুরিস্ট পুলিশ আছে বলেই আজ পর্যটক দর্শনার্থীরা নির্বিঘ্নে, সুন্দর একটা পরিবেশে কুয়াকাটায় ভ্রমণ করতে পারছেন। এই প্রশিক্ষণ পর্যটন এলাকায় ট্যুরিস্ট পুলিশের সক্ষমতা আরো বৃদ্ধি করবে।

কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব বলেন কুয়াকাটায় বর্তমানে টুরিস্ট পুলিশ অত্যন্ত আন্তরিকতার সহিত পেশাদারিত্ব বজায় রেখে পর্যটক ও দর্শনার্থীদের কাঙ্খিত সেবা প্রদান করে যাচ্ছেন। নারী শিশুসহ আগত পর্যটকদের সাথে ট্যুরিস্ট পুলিশের আন্তরিকতা বৃদ্ধি করতে এই প্রশিক্ষণ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে । ট্যুরিজম সেক্টর শৃংখলার দায়িত্ব পালন করে ট্যুরিস্ট পুলিশ। প্রশিক্ষণ কোর্সের সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন এই প্রশিক্ষন গ্রহন করে ট্যুরিস্ট পুলিশের কর্মকর্তারা কর্মক্ষেত্র তথা কুয়াকাটা সী-বীচ উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা গুরুত্বপূর্ণ রাখবে। স্থানীয় সকল স্টেকহোল্ডারদের সাথে সুসম্পর্ক রেখে সমন্বিতভাবে কাজ করে বাংলাদেশের ইকোনমিতে ভূমিকা রাখবে পুলিশ।