ঢাকা ১২:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী

আরে বেটা সাহস থাকলে বাংলাদেশে ফিরা আয়

আলম খান
  • Update Time : ০৫:২০:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৮৯ Time View

লন্ডনে বসবাসকারী বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‌আরে ব্যাটা তোর যদি সাহস থাকে, তাহলে বাংলাদেশে ফিইর‌্যা আয়, আমরা একটু দেখি।’

রোববার (১২ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নরসিংদীর মোসলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের জনসভায় এ কথা বলেন তিনি।

তারেক রহমান পালিয়ে লন্ডনে আছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘আর সে সেখান থেকে আগুন জ্বালাতে বলছে। আরে ব্যাটা তোর যদি সাহস থাকে, তাহলে বাংলাদেশে ফিইর‌্যা আয়, আমরা একটু দেখি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান ২০০৭ সালে মুচলেকা দিয়েছিল জীবনে আর রাজনীতি করবে না। এখন লন্ডনে গিয়ে বসে আছে। সে এত টাকা কোথায় পায়!।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তারেক রহমান অস্ত্র চোরাকারবারির সঙ্গে জড়িত। গ্রেনেড হামলা করে আইভি রহমানসহ অনেক নেতা-কর্মীকে মেরেছে। মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত।’

বিএনপির উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ‘এতিমের টাকা আত্মসাৎ করে খালেদা জিয়া এখন জেলে। আমি দয়া করে তাকে বাসায় থাকার অনুমতি দিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাদের নেতা কই? তাদের কথা মানুষ শোনে না। বিএনপি হত্যাকারী। জামায়াত যুদ্ধাপরাধী। খালেদার ছেলে খুনি তারেক জিয়া। গ্রেনেড হামলা করে আইভি রহমানকে হত্যা করেছে। এত টাকা কোথায় পায়? অস্ত্র চোরাচালানি করে। মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত। পালিয়ে থাকে লন্ডনে।

শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘চোরাগোপ্তা হামলা করে সরকার হটানো যায় না। মানুষ যদি সঙ্গে না থাকে তবে আন্দোলন হয় না। বিএনপি একটি সন্ত্রসী দল, আর জামায়াত হলো যুদ্ধাপরাধী দল। তাদের কথা এ দেশের মানুষ শোনে না। তাদের কিছু লোক আছে তারাই নাচানাচি করে।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী পুলিশ, ‘সাংবাদিক ও হাসপাতালে হামলার সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ওরা পুলিশ হাসপাতালে হামলা চালিয়ে অ্যাম্বুলেন্স পুড়িয়ে দিয়েছে। আপনারা দেখেছেন ফিলিস্তিনের হাসপাতালে ইসরাইল হামলা চালিয়ে মানুষ হত্যা করছে। বিএনপিও তাদের জারজ সন্তান কি না, নয়তো তাদের মতোই কীভাবে তারা হামলা চালাচ্ছে?’

এর আগে, প্রধানমন্ত্রী ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা উদ্বোধন করেন। দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ পরিবেশবান্ধব এই সারকারখানা উদ্বোধন উপলক্ষে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে প্রকাশিত সার কারখানা স্মারক ডাকটিকিট, উদ্বোধনী খাম ও সিলমোহর অবমুক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর বিকেল ৩টার দিকে মোসলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে জনসভায় যোগ দেন তিনি। জনসভা শেষে সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকার উদ্দেশে হেলিকপ্টারে উঠবেন প্রধানমন্ত্রী।

Please Share This Post in Your Social Media

তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী

আরে বেটা সাহস থাকলে বাংলাদেশে ফিরা আয়

Update Time : ০৫:২০:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ নভেম্বর ২০২৩

লন্ডনে বসবাসকারী বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‌আরে ব্যাটা তোর যদি সাহস থাকে, তাহলে বাংলাদেশে ফিইর‌্যা আয়, আমরা একটু দেখি।’

রোববার (১২ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে নরসিংদীর মোসলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে আওয়ামী লীগের জনসভায় এ কথা বলেন তিনি।

তারেক রহমান পালিয়ে লন্ডনে আছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘আর সে সেখান থেকে আগুন জ্বালাতে বলছে। আরে ব্যাটা তোর যদি সাহস থাকে, তাহলে বাংলাদেশে ফিইর‌্যা আয়, আমরা একটু দেখি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমান ২০০৭ সালে মুচলেকা দিয়েছিল জীবনে আর রাজনীতি করবে না। এখন লন্ডনে গিয়ে বসে আছে। সে এত টাকা কোথায় পায়!।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘তারেক রহমান অস্ত্র চোরাকারবারির সঙ্গে জড়িত। গ্রেনেড হামলা করে আইভি রহমানসহ অনেক নেতা-কর্মীকে মেরেছে। মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত।’

বিএনপির উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ‘এতিমের টাকা আত্মসাৎ করে খালেদা জিয়া এখন জেলে। আমি দয়া করে তাকে বাসায় থাকার অনুমতি দিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাদের নেতা কই? তাদের কথা মানুষ শোনে না। বিএনপি হত্যাকারী। জামায়াত যুদ্ধাপরাধী। খালেদার ছেলে খুনি তারেক জিয়া। গ্রেনেড হামলা করে আইভি রহমানকে হত্যা করেছে। এত টাকা কোথায় পায়? অস্ত্র চোরাচালানি করে। মানি লন্ডারিংয়ের সঙ্গে জড়িত। পালিয়ে থাকে লন্ডনে।

শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘চোরাগোপ্তা হামলা করে সরকার হটানো যায় না। মানুষ যদি সঙ্গে না থাকে তবে আন্দোলন হয় না। বিএনপি একটি সন্ত্রসী দল, আর জামায়াত হলো যুদ্ধাপরাধী দল। তাদের কথা এ দেশের মানুষ শোনে না। তাদের কিছু লোক আছে তারাই নাচানাচি করে।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী পুলিশ, ‘সাংবাদিক ও হাসপাতালে হামলার সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ওরা পুলিশ হাসপাতালে হামলা চালিয়ে অ্যাম্বুলেন্স পুড়িয়ে দিয়েছে। আপনারা দেখেছেন ফিলিস্তিনের হাসপাতালে ইসরাইল হামলা চালিয়ে মানুষ হত্যা করছে। বিএনপিও তাদের জারজ সন্তান কি না, নয়তো তাদের মতোই কীভাবে তারা হামলা চালাচ্ছে?’

এর আগে, প্রধানমন্ত্রী ঘোড়াশাল-পলাশ ইউরিয়া সার কারখানা উদ্বোধন করেন। দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ পরিবেশবান্ধব এই সারকারখানা উদ্বোধন উপলক্ষে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে প্রকাশিত সার কারখানা স্মারক ডাকটিকিট, উদ্বোধনী খাম ও সিলমোহর অবমুক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর বিকেল ৩টার দিকে মোসলেহ উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে জনসভায় যোগ দেন তিনি। জনসভা শেষে সন্ধ্যা ৬টায় ঢাকার উদ্দেশে হেলিকপ্টারে উঠবেন প্রধানমন্ত্রী।